মহিলা সমাজ

অদ্ভুত কারিগর

সাইয়্যিদা সাহরা নাশীন রকসী প্রকাশিত হয়েছে: ০৯-০১-২০১৮ ইং ০১:৪১:০৪ | সংবাদটি ১৫০ বার পঠিত


গগণের নীলাম্বরী কে বানালো,
যাকে স্পর্শ করা যায় না।
প্রতিদিন প্রাতেঃ সুরুজের দর্শন।
নিশিথে চন্দ্র তারকার মেলা।
যেন কে সাজিয়ে রেখেছে সময়ের খেলা।

পারবে বানাতে প্রকৃতির অলংকার
যে পারবে সে এক অদ্ভুত কারিগর
অনেক রাজা প্রজা শক্তিধর এসেছে এ ধরায়
নাম খ্যাতি, যশ, প্রতিপত্তি ছিল অগাধ
একদিন ফুরিয়ে গেলো, সবই হলো মাটি।

মৃত্তিকা সেতো নড়চড় করে না।
তার বুকে গড়ে উঠে ফসল, দালান-কোঠা
মানবের ক্ষুন্নি বৃক্ষ থেকে আহরণ
একটি কোদালের ছেদ সে কাঁদে
ক্রন্দন কেহ শুনতে পায়, কেহ পায় না।

জগত মাতা আমার মাতৃভূমি
এ মাটিতে জন্ম নিয়ে হলাম ধন্য
আকাশে বাতাসে সোঁদা মাটির গন্ধ
ভোরে পক্ষিকুলের কিচির-মিচির রব
ঘুম ভেঙে যায় বারে বারে

যেখানে শিউলি প্রস্ফুটিত
সেখানে সুগন্ধে মাতোয়ারা
বাগিচা যেনো আলাপে মেতেছে
আধো ঘুম আধো-পরশ বুলায়
বার, বার আঁখি মেলে দেখি আমার বসুন্ধরা।

শেয়াল মামা
সাজেদা বেগম মিলা
শেয়াল মামা শেয়াল মামা
বড্ড তুমি ইয়ে
বেড়াল মাসী বলল আমায়
তোমার নাকি বিয়ে।

মুরগী ছানা হাঁস ছানা
খাও চুরি করে
এই কথা জানা হলে
পুলিশে নিবে ধরে

এত করে বলি তোমায়
চুরি করা ছাড়
ভাল হয়ে চল তুমি
সহজ পথ ধর

গোপন কথা তোমার সব
প্রকাশ করলাম আমি
দোষ ধরনা শেয়াল মামা
রাগ করো না তুমি।

তোমার বিয়েতে যাব আমি
মিঠাই মন্ডা নিয়ে
নতুন করে বরণ করাবা
ফুলের মালা দিয়ে।

নোনা অশ্রু
মুনিরা সিরাজ চৌধুরী রাজু
কাঁচা মরিচ শেষ হলে
লঙ্কা পুড়া খাই।
নুন আনতে পান্তা ফুরায়
আমার চাষী ভাই।

বানের জলে তলিয়ে গেল;
মাঠের সকল ধান,
মিলিয়ে গেল মুখের হাসি;
হারিয়ে গেল গান।

পেটের ক্ষুধায় কাতর চাষী;
বসে নদীর তীরে।
ফোঁটায় ফোঁটায় নোনা অশ্রু;
দু’চোখ বেয়ে ঝরে।

মারিয়ার জন্য
নিলুপা ইসলাম নীলু
লক্ষিসোনা মারিয়া আমার
আমার কাছে আয়
তুই কেনরে সাত সাগরের
ওপারের কোনগাঁয়?
আদর দেব, উজাড় করে
ভরে যাবে বুক
তোর কারণে এখন আমার
হারিয়ে গেছে সুখ
বন্দ ঘরে আছিস কেন?
আমায় গেলে ছেড়ে
সোহাগ দিয়ে জড়িয়ে দেব
যা আছে মোর ঘরে
তোর যদিরে মন ভরেনা
আমার আদর মেখে
সাত সাগরের কালি দিয়ে
যাব আমি লিখে
দিনের আলোয় মনে হয়
শূন্য উড়াল দেই
এতদূরে থেকেও আমি
তোর খবরটি নেই।

শিউলির সুবাসে
সালেহা আফরীন বেবী
হঠাৎ আকাশ মেঘে কালো-
আবার সূর্য কিরণে উজ্জ্বল,
আভা ছাড়ানো ঝলমল রোদ্দুর-
একদিকে ছায়া অন্যদিকে আলো
শিউলির সুবাসে সুরভিত-
প্রবাহমান ভোরের বাতাস,
এই তো আজ শরতের রূপ-
শরৎ এসেছে তাই।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT