উপ সম্পাদকীয়

শিক্ষা গ্রহণ পদ্ধতিকে আনন্দময়করণ

আহমদ শাহাব উদ্দিন প্রকাশিত হয়েছে: ১১-০১-২০১৮ ইং ০২:০৮:৩২ | সংবাদটি ২০৩ বার পঠিত

শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড। সরল এই সত্যটি শিক্ষা গ্রহণে আগ্রহ সৃষ্টিতে যেমন সহায়ক, তেমনি একটি শিক্ষিত জনগোষ্ঠির অবর্তমানে কোনো দেশ কিংবা জাতি সার্বিক সফলতার শীর্ষে আরোহণে অপারগ, তারই স্পষ্ট জানান দিচ্ছে সরল এই সত্যটি। মেরুদন্ডহীন মানুষ যেমন সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারে না, একটি শিক্ষিত জনগোষ্ঠি ছাড়া কোনো দেশ কিংবা জাতি রাজনৈতিক, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক তথা সার্বিক সফলতার সমৃদ্ধতা নিয়ে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে দাড়াতে পারে না। পরিসংখ্যান বলে দিচ্ছে, যে জাতি যতো বেশি শিক্ষিত, সে জাতি তত বেশি উন্নত এবং সমৃদ্ধ। তাই ব্যক্তি পরিবার সমাজ কিংবা রাষ্ট্রীয় উন্নতি এবং অগ্রগতির স্বার্থে দেশের প্রতিটি নাগরিকের শিক্ষা গ্রহণ করা নৈতিক দায়িত্ব। শিক্ষা মানুষকে অপকর্ম থেকে নিবৃত্ত রেখে মানুষত্ব এবং বিবেক বোধকে জাগ্রত করে। অন্ধকার থেকে আলোর পথে টেনে আনে। সৃষ্টিশীল ভাবনায় নিত্য নতুন উদ্ভাবনী দিয়ে দেশ, সমাজ এবং জনগোষ্ঠিকে আলোর পথ দেখায়। সেই দৃষ্টিকোণ থেকে অমূল্য এই সম্পদ শিক্ষাগ্রহন পদ্ধতিকে আনন্দময় এবং উৎসাহব্যঞ্জক করতে নিত্য নতুন পথ এবং মত কে অনুসন্ধান করা অপরিহার্য। এই বাস্তবতায় পৃথিবী নামক গ্রহে বসবাসকারী বিশ্বের সকল জাতিকে যুগোপযোগী শিক্ষা পদ্ধতি প্রণয়ন পূর্বক শিক্ষিত জনগোষ্ঠি গড়ে তোলা একান্তই অত্যাবশ্যক। তবেই কেবল গড়ে উঠবে একটি সুন্দর সুশৃঙ্খল আনন্দময় আবাসযোগ্য পৃথিবী।
বিদ্যা অমূল্য ধন। মহামূল্যবান এই সম্পদকে কোনো সীমারেখার বৃত্তে আবদ্ধ রেখে মূল্য নির্ধারণ করে মূল্যায়ন করা যায় না। এর মূল্য অনন্ত অসীম। শিক্ষা থেকে লব্ধ জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতায় কেউ অংশীদার হতে পারে না। শিক্ষার মানবিক গুণাবলী তাই একক এবং অভিন্ন। কিন্তু শিক্ষায় অভিজ্ঞ ব্যক্তির জ্ঞান এবং অভিজ্ঞতা সুষ্ঠু পরিবেশ এবং আলোকিত সমাজ বিনির্মাণে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। শিক্ষা মানুষকে আত্মনিয়ন্ত্রিত হয়ে চলার পথ দেখায়। শিক্ষিত ব্যক্তির বিদ্যার আলোয় আলোকিত হয় তার পরিবার সমাজ এবং রাষ্ট্র। মহামূল্যবান শিক্ষার ব্যপ্তি এবং প্রসারে শিক্ষা গ্রহণের পদ্ধতিকে তাই উন্নত মান বজায় রেখে সহজীকরণ এবং শিক্ষার্থীদের মাঝে আনন্দঘন পরিবেশ সৃষ্টি করা বাস্তব সম্মত এবং সময়ের দাবী। যে সুন্দর আনন্দময় পরিবেশ শিক্ষার্থীদের শিক্ষা গ্রহণে হাতছানি দিয়ে আলিঙ্গন করবে। যে পরিবেশ বলে দিবে, শিক্ষাই শক্তি এবং সফল সমৃদ্ধ মানুষ হিসাবে বেঁচে থাকার একমাত্র অবলম্বন। শিক্ষাই গর্বিত এবং আত্মপ্রত্যয়ী হয়ে নিজেকে তৈরি করার আবশ্যক উপাদান।
শিক্ষাগ্রহণ পদ্ধতির আনন্দময় আবহ সৃষ্টিতে দেশের প্রথিতযশা সাহিত্যিক, গবেষক, দার্শনিক এবং শিক্ষাবিদদের আগ্রহব্যঞ্জক রচনাশৈলী শিক্ষা ব্যবস্থার পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্তরণ শিক্ষায় আগ্রহ সৃষ্টিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে। এসব রচনাশৈলীতে একদিকে যেমন থাকবে সমাজের শিক্ষা বঞ্চিত পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠির জীবন মানের দৈন্যদশার করুণ চিত্র অপরদিকে থাকবে উচ্চশিক্ষায় শিক্ষিত জনগোষ্ঠির উন্নত এবং সমৃদ্ধ যাপিত জীবনের ইতিহাস এবং ঐতিহ্য। শিক্ষায় সফলতা আনন্দ। অশিক্ষায় বিফলতা নিরানন্দ। সফল এবং বিফলতার তুলনামূলক এসব রচনাশৈলী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা গ্রহণে আগ্রহী করে তুলবে। তথ্যপ্রযুক্তি, কলা, বিজ্ঞান, চিকিৎসা, আইন বাণিজ্যসহ শিক্ষার সকল বিভাগের সফলগাথা কাহিনী সম্বলিত রচনাশৈলী শিক্ষার্থীদের উচ্চশিক্ষার স্বপ্ন এবং সম্ভাবনাকে করবে নিশ্চিত এবং রোমাঞ্চকর।
প্রাথমিক থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত নির্দিষ্ট সংখ্যক মেধাবী শিক্ষার্থীদের অবৈতনিক শিক্ষা ব্যবস্থার প্রবর্তন শিক্ষার্থীদের মেধার বিকাশ এবং লালনে যেমন হবে সহায়ক অপরদিকে আর্তপীড়িত মেধাবী শিক্ষার্থীদের অবৈতনিক এই সুযোগ শিক্ষা গ্রহণের পথকে করে দিবে সুদূর প্রসারী। স্বকীয়তা বজায় রেখে সংকোচ এবং দ্বিধাহীন চিত্তে শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকদের মাঝে বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশে পাঠদান পদ্ধতি শিক্ষা গ্রহণে উৎসাহ এবং আগ্রহের পথকে অনেকটাই করে দিবে সহজতর। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত খেলাধুলা, সাহিত্য সংস্কৃতির চর্চা এবং শিক্ষিত জনগোষ্ঠির সফলগাথা জীবন কাহিনী সম্বলিত বিষয়বস্তু নিয়ে বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন শিক্ষার্থীদের মাঝে আনন্দ উৎসাহ উদ্দীপনা সৃষ্টিতে সহায়ক ভূমিকা পালন করবে। প্রতিযোগিতায় আকর্ষণীয় মূল্যবান পুরস্কার সামগ্রীসহ কৃতিত্বের প্রতিদান স্বরূপ দেশ এবং বিদেশে শিক্ষা সফর কিংবা আনন্দ ভ্রমণের ব্যবস্থা শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা গ্রহণে আনন্দঘন পরিবেশ সৃষ্টিতে নতুন মাত্রা সংযোজন করবে।
আমাকে একজন ভালো ‘মা’ দাও, আমি তোমাদেরকে একটি শিক্ষিত জাতি উপহার দিব। বিশ্বখ্যাত নেপোলিয়ানের এই উক্তি শিক্ষায় শতভাগ সফলতা এবং সমৃদ্ধির বার্তাকেই স্মরণ করিয়ে দেয়। আজ মাতৃকোলে যে শিশু লালিত হয়ে বড় হচ্ছে, পারিবারিক পর্যায় থেকে যদি তাদের শিক্ষামনষ্ক এবং মনোযোগী করে গড়ে তোলা যায়, তাহলেই কেবল প্রতিটি পরিবারে সৃষ্টি হবে একেকজন শিক্ষিত ‘মা’। যাদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা আর দিক নির্দেশনায় শিশুরা হবে শিক্ষামনষ্ক এবং বিদ্যালয়মুখী। মায়েদের সর্বাত্মক প্রচেষ্টায় অর্জিত হতে পারে শিক্ষিত জনগোষ্ঠি গঠনের শতভাগ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের সফলতা। আজ যে শিশু অবুঝ অসহায়, মাতৃকোলই যার একমাত্র ভরসা, ভবিষ্যতে তারাই হবে বিশ্ব নেতৃত্বের কর্ণধার। তাই শিশুরা যদি পরিবার থেকে প্রাথমিক শিক্ষা গ্রহণের পরিবেশ থেকে ঝরে পড়ে, মায়েদের ভবিষ্যৎমুখী শিক্ষা থেকে হয় বঞ্চিত, তাহলে শিক্ষার কাক্সিক্ষত লক্ষ্য অর্জন হবে ব্যর্থ। শিক্ষার অগ্রযাত্রাকে অব্যাহত রাখার স্বার্থে মায়েদেরকে তাই আর্থিক প্রণোদনা প্রদান, শিক্ষার প্রসার এবং বিস্তারে যুগান্তকারী পরিবর্তন এনে দিবে। এই ব্যবস্থার প্রবর্তন বিশেষ করে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রের শিশুর মায়েদেরকে শিশুদের শিক্ষায় উপযোগী করে গড়ে তুলতে সাহস এবং প্রেরণা যোগাবে। শিশুদের ভবিষ্যৎ শিক্ষাগ্রহণ থেকে ঝরে পড়া রোধে সহায়ক হবে। প্রত্যেক শিশুই পারিবারিক পরিবেশে মা, বাবার অকৃত্রিম ¯েœহ ভালোবাসায় বড় হয়ে থাকে। তাই শিশুর চাওয়া পাওয়া, আনন্দ-বেদনা, কিসে তাদের আনন্দ, কোন বিষয়টি শিশুদের মনোযোগী এবং আকৃষ্ট করে এসব মনস্থাত্ত্বিক বিষয়গুলি শিশুদের মায়েরাই পর্যবেক্ষণ করে থাকেন। শিশু মনের এসব দৃষ্টিভঙ্গিকে প্রাধান্য দিয়ে শিক্ষিত মায়েদের মতামত এবং পরামর্শের সমন্বয় পূর্বক শিশু পাঠ্যবই রচিত হলে শিশুদের কাছে তা হবে বোধগম্য এবং আনন্দদায়ক। প্রাথমিক পর্যায় থেকে শিশুরা হয়ে উঠবে শিক্ষা গ্রহণে আগ্রহী। উচ্চ শিক্ষার আগ্রহে বিভোর হবে প্রাথমিকের সকল শিক্ষার্থী।
শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীদের জ্ঞান অর্জনের পবিত্র স্থান। আনন্দঘন পরিবেশে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা গ্রহণের স্বার্থে বিশ্ব মানের পাঠ্যসূচি প্রণয়ন পূর্বক অভিজ্ঞ এবং প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত শিক্ষক মন্ডলীর মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সুন্দর এবং সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখা অত্যাধিক গুরুত্বপূর্ণ। বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের শিক্ষাগ্রহণে আগ্রহ সৃষ্টিতে রাষ্ট্রীয় কতিপয় কর্মসূচি এবং পদক্ষেপ অনস্বীকার্য। আধুনিক বিজ্ঞানসম্মত পাঠদানের স্বার্থে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রজেক্টর, কম্পিউটারসহ আধুনিক সকল যন্ত্রপাতি সরবরাহ। বিষয়বস্তুর সুষ্ঠু সাবলীল উপস্থাপনার প্রয়োজনে অভিজ্ঞ শিক্ষকমন্ডলীদের নিয়োগদান। শিক্ষা গ্রহণে উৎসাহ উদ্দীপনা সৃষ্টি হতে পারে, এমনসব বিষয়ে তহবিল সরবরাহ, শিক্ষার্থীদের আকৃষ্ট করে এমন উপযোগী পরিকল্পিত শ্রেণিকক্ষসহ নান্দনিক স্থাপনা নির্মাণ সর্বোপরি শিক্ষা জীবন শেষে চাকুরির নিশ্চয়তা বিধান শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা গ্রহণে ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে। লিখা পড়া করে যে, গাড়ি ঘোড়া চড়ে সে। এমন স্বপ্ন এবং সম্ভাবনা দিয়ে আমরা যে শিক্ষার্থীদের শিক্ষাগ্রহণে আগ্রহী করে তুলছি, শিক্ষা জীবন শেষে তাদের কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা অতীব জরুরি। শিক্ষা জীবন শেষে শিক্ষিত ব্যক্তিরা যদি বেকারত্বের অভিশাপে হয় অভিশপ্ত, কর্মহীনতায় তাদের জীবন যদি হয় দুর্বিসহ তাহলে শিক্ষার্থীরা শিক্ষা গ্রহণে হারিয়ে ফেলবে আগ্রহ। আঙুল উচিয়ে দেখিয়ে দিবে শিক্ষিত জনগোষ্ঠির বিপর্যস্থতা আর অভিশপ্তের করুণ চিত্র। এতে শিক্ষার্থীদের মাঝে নেমে আসবে হতাশা আর উদ্বেগ। শিক্ষার্থীদের মাঝে শিক্ষা গ্রহণে আনন্দ উৎসাহ উদ্দীপনা সৃষ্টির পরিকল্পনা হবে মরু মরিচীকার মতো দুঃস্বপ্নময়। শিক্ষিত জনগোষ্ঠি গড়ে তোলার স্বপ্ন এবং সম্ভাবনা হবে সুদূর পরাহত। তাই শিক্ষা জীবন শেষে শিক্ষিত জনগোষ্ঠির কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের শিক্ষা গ্রহণে আগ্রহী করে তুলবে। স্বপ্নীল স্বর্ণালী নিশ্চিত ভবিষ্যৎ প্রাপ্তির প্রত্যাশায় শিক্ষার্থীরা শিক্ষাগ্রহণে আনন্দ উদ্দীপনায় হয়ে উঠবে উদগ্রীব। সমৃদ্ধ জীবনের আস্থা ও আক্সক্ষাখার উচ্চ শিক্ষার আগ্রহে শিক্ষার্থীরা থাকবে অবিচল।
আজকের শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। শিক্ষা জীবন শেষে বর্তমান প্রজন্মের এই শিক্ষার্থীরাই তাদের মেধা মননশীলতা এবং শিক্ষার আলো দিয়ে দেশ সেবায় নিজেকে নিবেদিত করবে। তাই বর্তমান প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের মাঝে দেশাত্মবোধের চিন্তা ও চেতনা জাগ্রত হয় এমন পদ্ধতির পাঠদান শিক্ষার্থীদের শিক্ষাগ্রহণে আগ্রহের সৃষ্টি করবে। প্রতিদিন শ্রেণিকক্ষে নিয়মিত পাঠদানের পূর্বে শিক্ষাঙ্গনের মুক্তমাঠে জাতীয় সঙ্গীতের মাধ্যমে এসেম্বলী অনুষ্ঠান এবং ভবিষ্যতে শিক্ষার্থীদের দেশ সেবায় নিয়োজিত থাকার শপথ বাক্য পাঠ, শিক্ষার্থীদের শিক্ষা গ্রহণে জাতীয় চেতনায় অনুপ্রাণিত করে তুলবে। শিক্ষার্থীদের চাওয়া পাওয়া আনন্দ বেদনা বিষয়ে শিক্ষক শিক্ষার্থীদের মাঝে নিয়মিত পর্যালোচনা বৈঠক অতিশয় জরুরি। শিক্ষার্থীদের চাওয়া পাওয়ার আনন্দ বিষয়ক দাবীগুলি বিবেচনায় নিয়ে এর সুষ্ঠু সমাধান শিক্ষক শিক্ষার্থীদের মাঝে সেতুবন্ধন ছাড়াও শিক্ষার্থীদের শিক্ষা গ্রহণে আকৃষ্ট করে তুলবে। বর্তমান প্রজন্মের শিক্ষার্থীরাই আগামী দিনের আলোর দিশারী। তাদের পথ অনুসরণ করেই সৃষ্টি হবে শিক্ষায় আগ্রহ, গড়ে উঠবে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের শিক্ষিত জনগোষ্ঠি। অতএব, শিক্ষাগ্রহণ পদ্ধতির আনন্দঘন পরিবেশ বাধাগ্রস্ত হলে হুমকির মুখে পড়বে শিক্ষা ব্যবস্থা। অশিক্ষা অজ্ঞতায় সামাজিক পরিবেশ হবে ক্ষতিগ্রস্থ। অনুসরণযোগ্য আদর্শের অনুপস্থিতি শিক্ষা গ্রহণের আগ্রহকে ঠেলে দিবে বিপর্যয়ের মুখে। তাই শিক্ষায় আগ্রহ সৃষ্টিতে বিশ্বের প্রতিটি রাষ্ট্র, সমাজ এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বশীল ব্যক্তিবর্গের সজাগ দৃষ্টি রাখা প্রয়োজন। অন্যথায় অজ্ঞতা, অনাহার, চরম দারিদ্র্যতা গ্রাস করে নিবে শিক্ষায় আগ্রহ এবং আনন্দ উদ্দীপনা সৃষ্টির সম্ভাবনার সকল পথ। পরিণামে শিক্ষার অবর্তমানে বিশ্বভূবন হবে ঘোর অমানিশার ন্যায় কালো অন্ধকার। তাই শিক্ষা গ্রহণ পদ্ধতিতে আনন্দঘন পরিবেশ অব্যাহত রাখার স্বার্থে বিশ্বের প্রতিটি রাষ্ট্রের শিক্ষায় সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা জরুরি। শিক্ষাগ্রহণের আগ্রহ সৃষ্টির প্রচেষ্ঠায় বিশ্বে গড়ে উঠবে শিক্ষিত জনপদ। শিক্ষা, শান্তি ও সভ্যতার আবির্ভাবে সমৃদ্ধ হবে বিশ্বের সকল জনগোষ্ঠি। সুতরাং, শিক্ষাগ্রহণ পদ্ধতিতে আনন্দময় পরিবেশের উপস্থিতিই কেবল আমাদেরকে বিশ্ব পরিমন্ডলে উপহার দিতে পারে শিক্ষায় শতভাগ সাফল্যের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের এক শিক্ষিত জনগোষ্ঠি। অতএব, দুঃখী দৃষ্টিহীন মানুষের ন্যায় শিক্ষার অভাবে চোখ থাকতেও যেন আমরা অন্ধত্বকে বরণ করে না নেই। শিক্ষা বিহনে বিশ্বের কোথাও থেকে অশ্রুসিক্ত নয়নে কারো করুণ কণ্ঠে যেন উচ্চারিত না হয়, হায়রে কপাল মন্দ, চোখ থাকিতে অন্ধ। এ জীবন জ্বলে পুড়ে শেষতো হইলো না।
লেখক : সাবেক ব্যাংকার।

শেয়ার করুন
উপ সম্পাদকীয় এর আরো সংবাদ
  • ভেজাল প্রতিরোধে প্রয়োজন আইনের বাস্তবায়ন
  • পদ্মার সর্বনাশা ভাঙন রোধ প্রসঙ্গে
  • ডোনাল্ড ট্রাম্প ও বিশ্বব্যবস্থার ভবিষ্যৎ
  • ডা. দেওয়ান নূরুল হোসেন চঞ্চল
  • দেশীয় চ্যানেল দর্শক হারাচ্ছে কেন?
  • বিশ্ব বরেণ্যদের রম্য উপাখ্যান
  • আশুরা ও কারবালার চেতনা
  • জলবায়ু পরিবর্তন ও সংকটাপন্ন বন্যপ্রাণী
  • অধ্যাপক ডাক্তার এম.এ রকিব
  • শিশু নির্যাতন ও পাশবিকতা
  • প্রবীণদের প্রতি নবীনদের কর্তব্য
  • রাজনৈতিক বাস্তবতার নিরিখে আগস্টের শোকাবহ ঘটনাবলী
  • সংযোগ সেতু চাই
  • টিবি গেইট ও বালুচরে ব্যাংকিং সুবিধা চাই
  • হাসান মার্কেট জেল রোডে স্থানান্তর হোক
  • ২৭নং ওয়ার্ডের কিষণপুর-ঘোষপাড়ার রাস্তা মেরামত প্রসঙ্গে
  • প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ
  • দেশীয় রাবার শিল্প বাঁচান
  • পরিবর্তিত হও : ছকের বাইরে ভাবো
  • শিক্ষা ও চিকিৎসায় প্রয়োজন স্বাস্থ্যকর পরিবেশ
  • Developed by: Sparkle IT