শেষের পাতা

নির্বাচনী বছরে অর্থনীতির ঝুঁকি বাড়বে ॥ সিপিডি

ডাক ডেস্ক : প্রকাশিত হয়েছে: ১৪-০১-২০১৮ ইং ০৩:৩৬:৪০ | সংবাদটি ১২ বার পঠিত

 চলতি বছরের শেষের দিকে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে পারে। আর নির্বাচনকে ঘিরে অর্থনীতি বাড়তি ঝুঁকিতে পড়ার আশঙ্কা রয়েছে। তাই এ ঝুঁকি মোকাবেলায় অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনায় রক্ষণশীল নীতিতে চলার পরামর্শ দিয়েছে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি)। এছাড়া গত বছরের আর্থিক দুর্বলতা সূচক সম্পর্কে যেমন ব্যাংক দখল, অর্থপাচার, দারিদ্র্য ও  সম্পদের বৈষম্য কমানো, গুণগত প্রবৃদ্ধির বিষয়ে সমালোচনা করেছে সিপিডি।
গতকাল শনিবার রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে ‘বাংলাদেশ অর্থনীতি-২০১৭-১৮ অর্থবছর- প্রথম অন্তবর্তীকালীন পর্যালোচনা’ শীর্ষক মিডিয়া ব্রিফিংয়ে এসব মন্তব্য করেন সংস্থাটির গবেষকরা।
সিপিডির সম্মাননীয় ফেলো ড. দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য্য বলেন, অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়ে ২০১৭ সাল শুরু হলেও শেষের দিকে সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়িত হয়নি। ব্যক্তিখাতের বিনিয়োগ বাড়েনি। প্রবৃদ্ধি হলেও দারিদ্র্য বিমোচনের হার কমেছে। ফলে আয় ও সম্পদ বৈষম্য বেড়েছে।
চলতি বছর সম্পর্কে তিনি বলেন, ২০১৮ সালের সব কর্মকান্ড নির্বাচনমুখী। আগের সংস্কার হওয়ার কথা থাকলেও তা হয়নি। চলতি বছর এমন ম্যাজিক্যাল কিছু ঘটবে না যাতে বড় ধরনের সংস্কার হবে। সংস্কার করার মত রাজনৈতিক পুঁজিও নাই। গত বছরের আর্থিক ব্যবস্থাপনার দুর্বলতার সঙ্গে চলতি বছরের নির্বাচনী বাড়তি ঝঁকি যোগ হবে। এজন্য রক্ষণশীল অর্থনৈতিক ব্যবস্থাপনা কার্যকর করতে হবে। ঋণ কমাতে হবে, টাকার মূল্যমান ঠিক রাখতে হবে, মূল্যস্ফীতি বিশেষ করে চালের দাম কমাতে হবে। নির্বাচনী বছরে বহুমুখী চাপ  সামলাতে রাজনৈতি দুরদর্শিতা প্রয়োজন।
ব্যাংক খাত সম্পর্কে তিনি বলেন, ব্যাংকের সামগ্রিক সূচক আরও খারাপ হয়েছে। অপরিশোধিত ঋণের পরিমাণ বেড়েছে, প্রভিশন কমেছে, ঋণের টাকা কয়েক ব্যক্তির হাতে কেন্দ্রীভূত হয়েছে। সবচেয়ে বেশি আশঙ্কার জায়গা প্রশাসনিকভাবে ব্যাংকের মালিকানা পরিবর্তন হয়েছে।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ ব্যাংক অভ্যন্তরীণ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার দুর্বলতা কারণে এসব বিষয়ে কোন পদক্ষেপ বা সংস্কার করতে পারেনি। সংস্কারের উল্টো দিকে গেছে। ব্যাংক কোম্পানি আইন  সংশোধন করে পরিবারের হাতে ব্যাংকগুলোকে জিম্মি করার উদ্যোগ নিয়েছে। আগের রাজনৈতিক বিবেচনায় লাইসেন্স দেওয়া ব্যাংকগুলোর অবস্থা খারাপ হলেও নতুন করে আরও ব্যাংকের লাইসেন্স দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে।
তিনি বলেন, দেশের আর্থিক ব্যবস্থাপনার দুর্বলতার জন্য অর্থমন্ত্রণালয় দায়ী। অর্থমন্ত্রণালয়ের সংস্কারের উদ্যোমের অভাব ছিল। আন্তমন্ত্রণালয় সমন্বয় ঘটাতে পারেনি এবং সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষমতা দুর্বল ছিল না।
সিপিডির সম্মাননীয় ফেলো ড. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, আমদানির আড়ালে অর্থ পাচার হচ্ছে।  বিশেষ করে পোশাক শিল্পের কাঁচামাল তুলা আমদানি ৭৫ শতাংশ বেড়েছে। উৎপাদনের তার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। বিদেশি বিভিন্ন  সংস্থার হিসেবে বাংলাদেশ থেকে প্রতি বছর ৮ থেকে ৯ বিলিয়ন ডলার পাচার হচ্ছে। এর মধ্যে ৮০ ভাগই আমদানি-রপ্তানীতে মূল্যকারসাজির মাধ্যমে। বিষয়টি বাংলাদেশ ব্যাংক  ও জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের  (এনবিআর) খতিয়ে দেখা উচিত।
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড.ফাহমিদা খাতুন, গবেষণা পরিচালক খোন্দকার গোলাম মোয়াজ্জেম বক্তৃতা করেন। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন রিসার্চ ফেলো তৌফিকুল ইসলাম খান।

শেয়ার করুন
শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • লাইব্রেরি আন্দোলনের মাধ্যমে দেশের মানুষের চরিত্র বদলে দেয়া সম্ভব
  • কিডনি রোগে আক্রান্ত কলেজ ছাত্রী সুমনার সুচিকিৎসায় কমিটি গঠন
  • ডুবন্ত মানুষকে বাঁচাল ড্রোন
  • যুক্তরাষ্ট্রকে পাশ কাটিয়ে ইরানের সাথে সামরিক চুক্তি পাকিস্তানের
  • বড়লেখায় স্কুল ছাত্র নিখোঁজ, উৎকন্ঠায় পরিবার
  • মৌলভীবাজার থেকে ধান ভর্তি ট্রাক উধাও
  • পাকিস্তানের পার্লামেন্টে বাংলাদেশের সমালোচনা
  • কাজাখস্তানে বাসে আগুন লেগে ৫২ জনের মৃত্যু
  • দেশে প্রথম কম্পিউটার কারখানার যাত্রা শুরু
  • জগন্নাথপুর পৌরসভার উন্নয়নে ৫০ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন
  • ছাতকে স্ত্রী হত্যার অভিযোগে স্বামী গ্রেফতার
  • সিলেটে বিনিয়োগ শিক্ষামেলা কাল উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী
  • প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে আপন ভাতিজাকে হত্যা করেন চাচা
  • জিয়াউর রহমানের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মহানগর বিএনপির দোয়া মাহফিল
  • লিডিং ইউনিভার্সিটিকে অনেক দূর এগিয়ে নিয়ে গেছে
  • সুনামগঞ্জে প্রাণ নাশের হুমকির মামলায় ব্যবসায়ীর ২ বছরের কারাদন্ড
  • স্কুল পার্টনারশীপ প্রোগ্রাম শিক্ষা ক্ষেত্রে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করছে -------সাবেক ডেপুটি লর্ড মেয়র আলী আ
  • মোগলাবাজার থানায় রক্ষিত গরু ও প্রাইভেটকার মালিকের সন্ধান চাইছে পুলিশ
  • রাজনীতিবিদ সিরাজ উদ্দিন আহমদের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত
  • নগরীতে গ্যাস সংকট চরমে বাসা-বাড়িতে চরম জনদূর্ভোগ
  • Developed by: Sparkle IT