স্বাস্থ্য কুশল

শীতের সুস্বাদু ফল

কানিজ কবির প্রকাশিত হয়েছে: ১৫-০১-২০১৮ ইং ০০:০৮:০৯ | সংবাদটি ৪৮ বার পঠিত

হিমেল হাওয়ার শীত মানেই হরেক রকম শাকসবজির বাহার। খেজুরের রস, পিঠা-পায়েশ যেন শীতের কনকনে ঠা-াকেও মিষ্টি করে তোলে। আরও মিষ্টি করে তোলে শীতের ফল। এ ঋতুর কমলা, কুল, সফেদা, জলপাই ইত্যাদি ফল মুখের স্বাদ বাড়িয়ে দেয়। এসব ফল ভিটামিন, মিনারেল, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও নানা ফাইটো নিউট্রিয়েন্টে ভরপুর থাকে।
ডালিম : ডালিম জনপ্রিয় ফলগুলোর একটি। ফলটি কারও কাছে বেদানা, কারও কাছে আনার নামে পরিচিত। আয়ুর্বেদ শাস্ত্রে তিন ধরনের ডালিমের উল্লেখ পাওয়া যায়- মধুর ডালিম, কষায় ডালিম ও টক ডালিম। মধুর ডালিমের দানা বেশি লাল, রসালো ও উপকারি। আমাশয়, হৃদরোগ, লিভার বৃদ্ধি, অনিদ্রা, অজীর্ণ, রক্তপিত্ত, অরুচি, কৃমি, শ্বেতপ্রদহ, স্মৃতিশক্তি কমে যাওয়া ইত্যাদি সমস্যায় ডালিম উপকারি।
সফেদা : সফেদা দেখতে সুন্দর না হলেও নানা গুণে সমৃদ্ধ। সুগন্ধ আর মিষ্টতার দিক দিয়ে ফলটি অনেক এগিয়ে। অপুষ্টি, পরিশ্রমজনিত ক্লান্তি, হার্টের দুর্বলতা ইত্যাদি রোগে পাকা সফেদা উপকারি। এছাড়া কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে, ত্বক উজ্জ্বল রাখতে, ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণ রাখতে সফেদার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে।
কমলা : শীতের ফলের রাজা বলা হয় কমলাকে। গুণে ফলটির তুলনা নেই। বর্তমানে আমাদের দেশের পার্বত্য অঞ্চলে কিছু কিছু কমলার চাষ হচ্ছে। কমলাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে । হৃদরোগীদের জন্য কমলা খুবই উপকারি। প্রতিদিন একটা কমলা খেলে অপুষ্টি দূর হবে, ক্যান্সার প্রতিরোধ করবে।
কুল : শীতের জনপ্রিয় ফল কুল। সচরাচর দেশের সব জায়গাতেই দেখা যায়। কুল নানা জাতের হয়। যেমন- নারকেল কুল, আপেল কুল, বাউ কুল ইত্যাদি। তবে সব জাতের কুলই উপকারি। ফোঁড়া, কোষ্ঠকাঠিন্য, হৃদরোগ, প্রদাহ, রক্ত আমাশয়, মাথাব্যথা ইত্যাদি সমস্যা কুল, কুলের পাতা, ছাল সমাধান করতে পারে।
জলপাই : শীত ঋতুর জনপ্রিয় ফল জলপাই। জলপাইয়ের পাতা ও ফল দুটোই উপকারি। ফলের রস থেকে তৈরি হয় তেল যার অনেক পুষ্টিগুণ রয়েছে। টক জাতীয় এ ফলে রয়েছে ভিটামিন এ, সি ও ই। ভিটামিনগুলো দেহের রোগজীবাণু ধ্বংস করে, উচ্চরক্তচাপ কমায়, রক্তে চর্বি জমে যাওয়ার প্রবণতা হ্রাস করে, হৃদপি-ের রক্তপ্রবাহ ভালো রাখে। কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করে, ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়ায়, কোলনের পাকস্থলির ক্যান্সার দূর করতে অগ্রণী ভূমিকা রাখে।
আমলকী : শীতের সুস্বাদু এবং উপকারি ফল আমলকী। আমলকীকে বলা হয় ভিটামিন ‘সি’-এর রাজা। আর এ ভিটামিন সি ত্বক সুরক্ষা, মাড়ি মজবুত এবং ক্যান্সার প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা পালন করে।
ঋতুভিত্তিক ফল ঋতুর অসুখ-বিসুখ প্রতিরোধ করে। এছাড়া ফলই বলের উৎস।

শেয়ার করুন
স্বাস্থ্য কুশল এর আরো সংবাদ
  • শরীরের মেদ কমাতে কমলালেবু
  • ঝাল খাবারে ক্যানসারের ঝুঁকি কমে
  • হঠাৎ হাতের কব্জিতে ব্যথা
  • ডায়রিয়া রোগে ভেষজ চিকিৎসা
  • নিরামিষের তুলনা নেই
  • রোগ প্রতিরোধে মটর শুঁটি
  • শীতকালে হাঁপানি নিয়ন্ত্রণে করণীয়
  • শীতের সুস্বাদু ফল
  • অতিরিক্ত লবণ : নানা রোগের উৎস
  • শীতে খান ফুলকপি, বাঁধাকপি
  • শিশুদের শীতকালীন রোগ থেকে বাঁচাতে যা করবেন
  • আর নয় ধূমপান, এই হোক অঙ্গীকার
  • শরীরের যে ছয়টি উপসর্গ অবহেলা নয়
  • শীতকালে প্রতিদিন গায়ে রোদ লাগানোর ১২টি উপকারীতা
  • নিঃসন্তান দম্পতিদের জন্য
  • নিয়ন্ত্রিত জীবনযাপনে ক্যান্সার প্রতিরোধ
  • রোগের লক্ষণ জানাবে চামচ!
  • ওষুধ ছাড়াই প্রশান্তি মিলবে পিরিয়ডের ব্যথায়!
  • চোখে লেন্স ব্যবহারে দৃষ্টিশক্তি হারানোর শংকা
  • জ্বর হলে কী খাবার খাবেন
  • Developed by: Sparkle IT