স্বাস্থ্য কুশল

রোগ প্রতিরোধে মটর শুঁটি

মো. জহিরুল আলম শাহীন প্রকাশিত হয়েছে: ০৫-০২-২০১৮ ইং ০০:২৮:৫৯ | সংবাদটি ১২১ বার পঠিত

মটরশুঁটি একটি সুস্বাদু ও পুষ্টিকর শীতকালীন সবজি। আমাদের দেশে যে মটরশুঁটি ফলানো হয় তা সাধারণত ডাল জাতীয় খাবার হিসেবে ব্যবহার করা হয়। তা আবার মটর নামে পরিচিত। কাঁচা অবস্থায় মাছ মাংসের সাথে রান্না করা একটি সুস্বাদু খাবার। মটরশুঁটিগুলো গোলাকৃতির ফল ও বীজ বড় ধরনের এবং দেখতে সুন্দর। মটরশুঁটির বীজ সবজি হিসেবে ব্যবহার করা হয়। তাছাড়া ডাল, চটপটি ও অন্যান্য মুখরোচক খাবার তৈরীতে ব্যবহৃত হয়। এর পাতা শাক হিসেবে খাওয়া যায়।
উদ্ভিদ জগতে মটরশুঁটির বৈজ্ঞানিক নাম চরংঁস ঝধঃরাঁস বাংলা নাম মটরশুঁটি (মটর) চধঢ়রষরড়হপবধব গোত্রের উদ্ভিদ। সবুজ ও পাকা ফল এবং বীজে থাকে স্টার্চ, অ্যালবুমিনয়েডস, তেল, গ্যালাকটো লিপিট, ট্রাইগোনেলিন ও দ্রবণীয় কার্বোহাইড্রেট। মটরশুটি নানা খাদ্য উপাদানে ভরপুর। দেহের রোগ প্রতিরোধে এ খাদ্যটি বিরাট ভূমিকা পালন করে। মটরশুঁটিতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ, বি, সি, খনিজ লবণ, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম, ফসফরাস, জিংক পাওয়া যায়। মটরশুঁটি একটি আমিষ সমৃদ্ধ খাবার। সব শাক সবজি ফলের চেয়ে বেশী আমিষ বা প্রোটিন বেশী থাকে। মটরশুঁটি গাছের শিকড়ে নডিউল সৃষ্টি হয়। এই নডিউলে রাইজোবিয়াম ব্যাকটেরিয়া থাকে। এই ব্যাকটেরিয়া বাতাস থেকে নাইট্রোজেন গ্রহণ করে গাছে সরবরাহ করে। এই নাইট্রোজেন অ্যামাইনো এসিডের একটি উপাদান। অ্যামাইনো এসিড আবার আমিষের উপাদান। আর এ কারণে মটরশুঁটিতে আমিষের পরিমাণ বেশি থাকে।
মটরশুঁটিতে যে অ্যামানো এসিড থাকে তা মানব শরীরের জন্য অত্যন্ত উপকারী। মাছ, মাংসের বিকল্প হিসেবে মটরশুঁটিতে আমিষের অভাব পূরণ করতে পারে। এতে প্রচুর পরিমাণে ডায়েটরি ফাইবার থাকে। যা কোষ্ঠকাঠিন্য সমস্যায় খুবই উপকার সাধন করে। ফলিক এসিডের একটি অন্যতম উপাদান হল মটরশুঁটি। এতে ক্যারোটিন, লুটেইন, জিয়ানথ্যানিন সহ বিভিন্ন এন্টি অক্সিডেন্ট ফ্যানভনয়েড থাকে। যা দেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।
প্রতি ১০০ গ্রাম খাবার উপযোগী মটরশুঁটিতে পুষ্টি উপাদান হলো : খাদ্য শক্তি ১২৭ কিলোক্যালরি, শর্করা ২৩০ গ্রাম, চিনি ৫.৭ গ্রাম, আঁশ ৫.১ গ্রাম, চর্বি ০.৪ গ্রাম, আমিষ ৭.৪ গ্রাম, ভিটামিন এ ৮৩ মাইক্রোগ্রাম, ভিটামিন বি-১০.৩ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি-২- ০.১২ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি-৩- ২.১ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি-৬- ০.২ মিলিগ্রাম, ভিটামিন বি-৯- ৬৫ মাইক্রোগ্রাম, বিটা ক্যারোটিন ৪৪৯ মাইক্রোগ্রাম, ভিটামিন সি ৪০ মিলিগ্রাম, ক্যালসিয়াম ২৬ মিলিগ্রাম, কর্বোহাইড্রেট ১৪.৫ গ্রাম, আয়রণ ১.৫ মিলিগ্রাম, পটাসিয়াম ২৪৪ মিলিগ্রাম, জিংক ১.২ মিলিগ্রাম, ফসফরাস ১০৮ মিলিগ্রাম, ম্যাগনেসিয়াস ৩৩ মিলিগ্রাম।
মটরশুঁটি স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী একটি সবজি। ত্বকের উজ্জ্বলতা ও চোখের দৃষ্টি শক্তি বাড়িয়ে তুলে। পেট পরিস্কার করতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। যাদের কঠিন পায়খানা হয় বা পায়খানা নিয়মিত হয় না তারা মটরশুঁটি খেলে খুবই উপকার পাবেন। রক্তের কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় মটরশুঁটি। ফলে হৃদরোগ সারাতে সাহায্য করে। অ্যান্টি অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা শরীরের বৃদ্ধি করে। মটরশুঁটিতে ভিটামিন থাকে যা শরীরের হাঁড় শক্ত করতে সাহায্য করে। ফলিক এসিড থাকে যা গর্ভবতী মায়েদের জন্য খুবই উপকারী। মটরশুঁটি টাইপ-২ ডায়াবেটিস কমাতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। মটরশুঁটিতে নিয়াসিন নামক খাদ্য উপাদান থাকায় রক্তের ক্ষতিকর কোলেস্টেরল দূর করে উপকারী কোলেস্টেরলের পরিমাণ বাড়াতে সাহায্য করে। উপকারী সবজি গাছটি বাড়ীর আশে পাশের জমিতে লাগান অথবা বাসা বাড়ীর ছাদে লাগান। পরিবারের পুষ্টির চাহিদা পূরণে এগিয়ে আসুন।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT