সম্পাদকীয়

ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস

প্রকাশিত হয়েছে: ২৮-০২-২০১৮ ইং ০০:৫৭:৫২ | সংবাদটি ১২৫ বার পঠিত

ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস আজ। মানবদেহে যতোসব অসুখ বিসুখ আক্রমণ করে তার মধ্যে ডায়াবেটিস একটি। ডায়াবেটিসকে ‘গুপ্তঘাতক’ বলেও অভিহিত করেছেন বিজ্ঞানীরা। কারণ, এটি নীরবে-নিভৃতে মানুষের জীবনীশক্তি ধংস করে দেয়। মানুষের কর্মক্ষমতা কেড়ে নেয়ার পাশাপাশি এই রোগটি হৃদযন্ত্র, মস্তিষ্ক, কিডনি, ত্বকসহ বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের ব্যাপক ক্ষতিসাধন করে। এই রোগটি অনিরাময়যোগ্য, তবে যথাযথ সচেতনতা অবলম্বন করলে ডায়াবেটিস রোগী স্বাভাবিক জীবন-যাপন করতে সক্ষম। আর এই সচেতনতাকে গুরুত্ব দিয়েই পালিত হচ্ছে আজ ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস।
নির্মূল হয় না-এই ধরনের রোগগুলোর মধ্যে ডায়াবেটিস অন্যতম। নারী, পুরুষ, শিশু সবারই ডায়াবেটিস হওয়ার আশংকা রয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্যসংস্থার মতে বিশ্বব্যাপী মানুষের মৃত্যু ও শারীরিক অক্ষমতার একটি অন্যতম কারণ হচ্ছে ডায়াবেটিস। চিকিৎসা বিজ্ঞান বলে, রক্তে যখন গ্লোকোজের পরিমাণ একটি নির্দিষ্ট মাত্রার বেশি থাকে, সেই অবস্থাকে ডায়াবেটিস বলা হয়। প্রধানত মানুষের অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস, অপর্যাপ্ত শারীরিক পরিশ্রম, পারিবারিক ইতিহাস, অতিরিক্ত মানসিক চাপ ও বয়স বৃদ্ধির সঙ্গে এই রোগের সম্পৃক্ততা রয়েছে। তাছাড়া, ডায়াবেটিস ও হৃদরোগের মধ্যে রয়েছে যোগসূত্র। বিজ্ঞানীদের মতে, ডায়াবেটিসমুক্ত নারীদের চেয়ে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত নারীদের হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা ছয়গুণ বেশি।
ডায়াবেটিসের কারণে রোগীদের শরীরে নানা ধরনের জটিলতা সৃষ্টি হয়। সাধারণত হৃদযন্ত্র এবং রক্তনালীর রোগ ডায়াবেটিসের একটি প্রধান জটিলতা। শুধু তাই নয়, ডায়াবেটিস যাদের আছে তাদের অকাল মৃত্যুর একটি প্রধান কারণ হচ্ছে হৃদরোগ। পরিসংখ্যানের তথ্য হচ্ছে, ডায়াবেটিস রোগীদের মধ্যে ৬৫ ভাগ মারা যায় হৃদরোগ ও স্ট্রোকে। এছাড়াও, ডায়াবেটিস রোগীদের মধ্যে ধূমপান- হৃদরোগ ও স্ট্রোকের ঝুঁকি দ্বিগুণ বাড়িয়ে দেয়। ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে চিকিৎসকেরা শারীরিক পরিশ্রম বা ব্যায়ামের ওপরই জোর দিচ্ছেন বেশি। এক্ষেত্রে তারা হাঁটাকেই প্রথম বিবেচনায় এনেছেন। তাছাড়া, খাবার-দাবারের সতর্কতার পরামর্শ দিচ্ছেন তারা।
দিনে দিনে মানবদেহে নতুন নতুন রোগের জন্ম হচ্ছে। দেখা দিচ্ছে বিভিন্ন ধরনের দূরারোগ্য ব্যাধি। এসবের চিকিৎসাও আবিষ্কৃত হচ্ছে। চলছে গবেষণা। তবে ডায়াবেটিস একটি অত্যন্ত পুরনো রোগ। মানে এই রোগটির ব্যাপারে মানুষ জানতে পেরেছে অনেক আগেই। এর নিরাময় ও চিকিৎসায় তৈরি হচ্ছে ওষুধ। যদিও এটি নিরাময়যোগ্য নয় এখন পর্যন্ত। তবে একে নিয়ন্ত্রণে রেখে স্বাভাবিক জীবন-যাপনের সুযোগ রয়েছে। আর অদূর ভবিষ্যতে ডায়াবেটিস সম্পূর্ণ নিরাময় করার চিকিৎসাও উদ্ভাবিত হবে, এমন আশাবাদ ব্যক্ত করছেন বিজ্ঞানীরা। আজকের ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবসে আমাদের প্রত্যাশা থাকবে, সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে ডায়াবেটিস সচেতনতা গড়ে তোলা ও এর চিকিৎসা সহজলভ্য করার জন্য যথাযথ উদ্যোগ নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT