সম্পাদকীয়

পর্যটনে সমৃদ্ধি

প্রকাশিত হয়েছে: ০৬-০৩-২০১৮ ইং ২৩:৩৪:৪০ | সংবাদটি ১১৭ বার পঠিত

দেশের পর্যটন স্পটগুলোতে এখন পর্যটকদের ভীড় জমেছে। শুধু দেশে নয়, ভ্রমণ পিপাসুরা দেশের সীমানা ছাড়িয়ে অন্য দেশেও যাচ্ছেন ভ্রমণে। পর্যটন বদলে দিতে পার একটি দেশকে। পর্যটন শিল্পকে পরিচিত ও আকর্ষণীয় করে তোলার মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করা যায়। আর তাই এই মুহূর্তে সরকারি ও বেসরকারি উভয় উদ্যোক্তাদেরই সমন্বিত পদক্ষেপ গ্রহণ জরুরি। সব পর্যটন স্থানকে যথাযথ উন্নয়নের মাধ্যমে আকর্ষণীয় করে তোলা এবং উন্নত যোগাযোগ ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারের ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। দেশি বিদেশি ট্যুর অপারেটরদের সঙ্গে সম্পর্ক জোরদার করে বাংলাদেশে পর্যটন আকর্ষণগুলোর দ্বার প্রতিনিয়ত উন্মোচন করার দিকটি বিবেচনা করতে হবে। আধুনিক পর্যটন চাহিদা মোতাবেক সমন্বিত ও পরিকল্পিতভাবে পর্যটন শিল্পের উপস্থাপনই বদলে দিতে পারে বাংলাদেশের অর্থনীতি।
আদিকাল থেকেই পৃথিবীর সৌন্দর্য্য পিপাসু মানুষ সৌন্দর্য্য অবলোকনের উদ্দেশ্যে বিশ্বের এক স্থান থেকে অন্য স্থানে ভ্রমণ করতো। প্রযুক্তি ও যোগাযোগ ব্যবস্থার অভাবনীয় উন্নতির ফলে দেশ ভ্রমণ ও প্রমোদ ভ্রমণ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশ্বের উন্নত দেশগুলোর মানুষ এখন শুধু একটি দেশের সৌন্দর্য্য উপভোগের জন্যই নয়, বরং দেশটির কৃষ্টি-কালচার, মানুষের জীবন প্রণালী, বিশেষায়িত ধর্মীয় ও সামাজিক উৎসব উপভোগের উদ্দেশ্যেও ভ্রমণ করে থাকে। আর আমাদের দেশের রয়েছে সমৃদ্ধ ইতিহাস এবং গৌরবোজ্জ্বল অতীত। প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের দিক থেকেও বাংলাদেশ পৃথিবীর মধ্যে অনন্য অবস্থানে রয়েছে। ঐতিহাসিক প্রতœতাত্ত্বিক নিদর্শনগুলোও দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আকর্ষণ করছে সারা বছর।
এটা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা যে, পর্যটন শিল্পের প্রসারের মাধ্যমে দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করা সম্ভব। পর্যটন কেন্দ্রিক বিভিন্ন অর্থনৈতিক কর্মকান্ডকে ঘিরে পর্যটন অর্থনীতির ধারণা গড়ে ওঠেছে। এটাকে একটা রপ্তানি বাণিজ্য হিসেবেও অভিহিত করা যায়। বিভিন্ন সেবা ও সুবিধা দেয়ার মাধ্যমে দেশ ভ্রমণে বিদেশিদের আকৃষ্ট করলে আয় হবে বৈদেশিক মুদ্রা। পর্যটন শিল্পের সঙ্গে সম্পৃক্ত হোটেল মোটেলসহ অন্যান্য সংস্থার অর্জিত অর্থ তুলনামূলকভাবে শিল্পে উন্নত দেশ বা অঞ্চলের অর্থনৈতিক উন্নয়নে যথেষ্ট ভূমিকা রাখে। এভাবেই একটি দেশে পর্যটন অর্থনীতি আবর্তিত হয়। আর অন্যান্য পণ্য রপ্তানির তুলনায় পর্যটন শিল্প থেকে আয়ের পরিমাণ দ্রুত বর্ধনশীল।
সাম্প্রতিক বছরগুলোতে বিশ্ব পর্যটন বাজার ক্রমবর্ধনশীল ও বিকাশমান। পর্যটন শিল্প তার বহুমাত্রিক বৈশিষ্ট্যের কারণে আজ অনেক দেশেরই শীর্ষ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের খাতে পরিণত হয়েছে। পর্যটনকে কেন্দ্র করে অর্থনৈতিক বিকাশ ঘটিয়ে ইতোমধ্যেই বিশ্বের বহুদেশ প্রমাণ করেছে পর্যটন গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক শক্তি। সিঙ্গাপুর, তাইওয়ান, হংকং, থাইল্যান্ড ও মালয়েশিয়ায় জাতীয় আয়ের সিংহভাগই অর্জিত হয় এই খাত থেকে। মালদ্বীপের অর্থনীতির প্রায় সবটাই পর্যটন খাতের ওপর নির্ভরশীল। বিশ্বব্যাপী পর্যটনের গুরুত্ব বেড়ে যাওয়ায় বাংলাদেশেও পর্যটন শিল্পকে একটি প্রভাবশালী শিল্প হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে। আমাদের অর্থনীতিতে এটিকে একটি গুরুত্বপূর্ণ খাত হিসেবে মনে করছেন বিশেষজ্ঞগণ। পর্যটন শিল্পের বিকাশের মাধ্যমে ব্যাপক কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা সম্ভব; সর্বোপরি এই শিল্প অর্থনীতির সমৃদ্ধি ঘটাতে সক্ষম। তাই পর্যটন খাতের উন্নয়নে জোর দেয়া জরুরি।

 

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT