শেষের পাতা লাউড়ের গড়ে দুই ধর্মের মানুষের মিলনমেলা

আজ থেকে তাহিরপুরে পনতীর্থে গঙ্গা¯œান ও শাহ-আরফিনের ওরস

রমেন্দ্র নারায়ণ বৈশাখ, তাহিরপুর(সুনামগঞ্জ) থেকে ঃ প্রকাশিত হয়েছে: ১৪-০৩-২০১৮ ইং ০৩:১৩:৪৬ | সংবাদটি ১৩৪ বার পঠিত

 তাহিরপুর উপজেলার লাউডের গড় সীমান্তবর্তী এলাকায় আজ বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে ৩ দিনব্যাপী হযরত শাহ্ আরেফিন (র)এর পবিত্র ওরস এবং শ্রী শ্রী অদ্বৈত মহাপ্রভুর জন্মধামে যাদুকাটা নদীতে গঙ্গাস্নান ও বারুনী মেলা। গঙ্গাস্নান বৃহস্পতিবার ভোর ৫টা থেকে বিকেল ৫ টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে, দুই ধর্মের অনুষ্ঠান উপলক্ষে তাহিরপুর উপজেলা জুড়ে এখন উৎসবের আমেজ। ইতোমধ্যে দূর দূরান্ত থেকে আসতে শুরু করেছেন উভয় ধর্মের ভক্ত অনুরাগীরা। এতে মুসলিম ও হিন্দু ধর্মের মানুষের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে লাউড়ের গড়সহ পুরো তাহিরপুর উপজেলা।
প্রতিবছরের ন্যায় এবারও উৎসব দুটো ঘিরে শ্রীশ্রী অদ্বৈত প্রভুর মন্দির, সীমান্ত নদী যাদুকাটায় এবং সীমান্তঘেঁষা লাউড়ের গড় শাহ আরেফিন (র.) আস্তানায় লক্ষাধিক মানুষের সমাগম ঘটবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্টরা। গঙ্গাস্নান ও ওরসকে কেন্দ্র করে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ইতোমধ্যেই বিপুল সংখ্যক ভক্তবৃন্দ এ দুটি জায়গায় জমায়েত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন তারা। এদিকে, একই সময়ে দুই সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসবে আসা পূন্যার্থীরা প্রতি বছরই চাঁদাবাজি, অতিরিক্ত ভাড়া আদায়, মোটর সাইকেলসহ বিভিন্ন পরিবহনের চালকগণের দ্বারা প্রতারণার শিকার হওয়ার অভিযোগ করেছেন অনেকে। গঙ্গাস্নান এবং শাহ্ আরেফিন (র.) ওরস উপলক্ষে উৎসবের তিনদিন এবং আগে ও পরে ৫ দিন সুনামগঞ্জ থেকে যাদুকাটা নদীর পাড় ও লাউড়েরগড় পর্যন্ত, একইভাবে মধ্যনগর থেকে লাউড়েরগড় পর্যন্ত, সুরমা নদীর বিভিন্ন খেয়াঘাটে, তাহিরপুর উপজেলার সুলেমানপুরে একই নদীর দুই খেয়াঘাটে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করার অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া, বাদাঘাটের পাতারগাঁওয়ে সড়কের একটি অংশে এবং বীরেন্দ্রনগর থেকে বড়ছড়া পর্যন্ত বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের নামেও পূন্যার্থীদের নিকট থেকে টাকা আদায় করা হয়। কাউকান্দি বাজার এলাকায় কাঁচা রাস্তায় চাঁদা আদায়ের শিকার হন মোটর সাইকেল যাত্রীরা। সীমান্ত সড়ক দিয়ে আসা ময়মনসিংহ, নেত্রকোনার পূন্যার্থীরা চাঁদাবাজদের বিভিন্ন জায়গায় চাঁদা দিয়েই গঙ্গাস্নান ও শাহ আরেফিন (র.) আস্তানায় ওরস এলাকায় পৌঁছান বলে অভিযোগ রয়েছে। পূন্যার্থীরা যাতে কোন ধরণের হয়রানির শিকার না হন, সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের প্রতি দাবি জানিয়েছেন স্থানীয়রা। এ ব্যাপারে তাহিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ নন্দন কান্তি ধর বলেন, ‘এ বছর মেলা ও গঙ্গাস্নান উৎসবে নিরাপত্তার জন্য পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি ও আনসার বাহিনী নিয়োজিত থাকবে। তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পূর্নেন্দু দেব জানান, বিভিন্ন জায়গায় চাঁদাবাজি ও পরিবহন চালকদের হয়রানি রোধে প্রত্যেক এলাকার জন প্রতিনিধিদের সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে। এছাড়াও বিশেষ বিশেষ জায়গায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর লোকজন নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকবেন।

শেয়ার করুন
শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • লিডিং ইউনিভার্সিটিতে অটোমেশন সিস্টেম উদ্বোধন
  • সিলেটে অর্থমন্ত্রীর উন্নয়ন নিয়ে বিএনপির মিথ্যাচার দুঃখজনক
  • ডিজিটাল বাংলাদেশ দিবস পালিত
  • অপশাসনের পতন ঘটাতে ধানের শীষে ভোট দিন
  • শেখ হাসিনা সরকার নারীর ক্ষমতায়নের দিকে বিশেষ নজর দিয়েছে ------------শিক্ষামন্ত্রী নাহিদ
  • মধুবন মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতি’র আলোচনা ও দোয়া মাহফিল
  • দুই শিক্ষক, এক আইনজীবীসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন
  • বিয়ানীবাজারে ইউপি চেয়ারম্যান ও নবীগঞ্জে দুই বিএনপি নেতা গ্রেফতার
  • সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা
  • জৈন্তাপুরে দুই মোটর সাইকেল আরোহী ও বিয়ানীবাজারে ট্রলি মালিকের মৃত্যু
  • সাধারণ মানুষের ভালোবাসাই ধানের শীষের বিজয়ের হাতিয়ার : মুক্তাদীর
  • নিখোঁজের ১২দিন পর জকিগঞ্জে হাওর থেকে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার
  • ভোট ও ভাতের অধিকার নিশ্চিত করতে ধানের শীষে ভোট দিন ------আ.স.ম. আব্দুর রব
  • রাবেয়া খাতুন চৌধুরী ছিলেন দানবীর ড. রাগীব আলীর সকল অনুপ্রেরণার উৎস
  • গোয়াইনঘাটে গরু চোরের হামলায় গৃহকর্তা খুন
  • নেতাকর্মীদের হয়রানির অভিযোগ বিএনপি প্রার্থী ফয়সলের
  • মেজরটিলায় সাউদিয়া কার সেন্টার’র উদ্বোধন
  • কমলগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধে দায়ের কোপে যুবক খুন ॥ আটক ৩
  • গোলাপগঞ্জে বিএনপি সমর্থিত দুই ইউপি চেয়ারম্যানসহ গ্রেফতার ৩
  • রেজিস্ট্রারী মাঠে ঐক্যফ্রন্টের মহাসমাবেশ কাল
  • Developed by: Sparkle IT