স্বাস্থ্য কুশল

রমযানে শ্বাসকষ্ট রোগীর করণীয়

ডা. মোহাম্মদ আজিজুর রহমান প্রকাশিত হয়েছে: ২১-০৫-২০১৮ ইং ০১:৫৪:৪২ | সংবাদটি ১৭২ বার পঠিত

রোগ নিয়ন্ত্রণে থাকলে শ্বাসকষ্টের রোগীদের রোযা রাখতে কোনো বাধা নেই। রোযা কোনোভাবেই হাঁপানি রোগ বাড়িয়ে দেয় না। ইনহেলার শ্বাসকষ্টের রোগীর জন্য এমন এক চিকিৎসা পদ্ধতি, যা রোগী শ্বাস-প্রশ্বাসের মাধ্যমে টেনে নেয় এবং ওষুধ শ্বাসনালীতে পৌঁছায়। অনেকেই মনে করেন, ইনহেলার হাঁপানির সর্বশেষ চিকিৎসা। ইনহেলার একবার ব্যবহার করলে পরে শ্বাসকষ্টের পরিমাণ কমানোর জন্য আর অন্য কোনো ওষুধ কাজে আসে না। তাদের জেনে রাখা ভালো,শ্বাসকষ্টের প্রথম চিকিৎসা হচ্ছে ইনহেলার।
এখন অবশ্য অনেক ডিভাইস পাওয়া যায়। তা ব্যবহারের মাধ্যমে হাঁপানিতে আক্রান্ত রোগী রোজা রাখতে পারেন। সালবিউটামল ইনহেলার ইফতারের সময় দুই পাফ এবং সেহেরির সময় দুই পাফ নিতে পারেন। আরো বলা হচ্ছে, রোযা রাখা অবস্থায় যদি কেউ ইনহেলার নেয়, তবে রোজা ভাঙবে না। কারণ ইনহেলার তো খাদ্যের পরিপূরক নয়।
ধূমপান করলে রোজা ভেঙে যাবে। ধূমপান তো নেশা। কিন্তু ইনহেলার তো নেশা নয়, এটা হচ্ছে তাকে সুস্থ রাখা। এটা সহজেই রোযা রেখে নেওয়া যাবে। তারপরও যদি কেউ না নিতে চান তবে সেহেরি এবং ইফতারের সময় দুই পাফ করে নিতে হবে।
আর এখন বিভিন্ন জেনথিন দলের আছে, ইউনিকনটেন আছে, কনটেন আছে- একটা ২০০ মিলিগ্রামের বড়ি, ইফতার করে একটি এবং সেহেরির পর একটি খাওয়া যেতে পারে। তাহলে পুরো সময়টাই শ্বাসকষ্ট থেকে মুক্ত থাকা যায়। আর রাতে শোয়ার সময় একটু মন্টিলুকাস ১০ মিলিগ্রাম ওষুধ খেয়ে খুব সহজেই রোযা রাখা যায়।
তবে এখানে কথা হচ্ছে, কিছু কিছু খাবার আছে যেগুলো খুব অ্যালার্জিতে ভরা। যেমন, গরুর মাংসের অনেক পদ হয়, অনেক হাঁপানি রোগীই আছে যাদের এই মাংসের প্রতি অ্যালার্জি আছে। চিংড়ি মাছের পদ হয়, বেগুনি থাকে-এগুলো তাকে এড়িয়ে চলতে হবে, যদি তার এসব খাদ্যে সংবেদনশীলতা থাকে। তাহলে সেগুলো তিনি খাবেন না। ইফতারটি ওইভাবে সাজিয়ে নেবেন। একজন শ্বাসকষ্টের রোগী যদি খুব পেট ভরে খায়, তবে দম নিতে সমস্যা হয়। আসলে সুস্থভাবে রোজা যেন রাখতে পারে, সে জন্য কিছু নিয়মকানুন অবশ্যই মেনে চলতে হবে। আমাদের যে মূল লক্ষ্য, সব কিছুর মধ্যে ভারসাম্য করে চলতে হবে, পরিমিতি বোধ থাকতে হবে। রোযা পরিমিতি বোধের শিক্ষা দেয়, আমরা যদি খুব বেশি ইফতার করি তাহলে রোযা রাখার সুফলটা পাবো না।

শেয়ার করুন
স্বাস্থ্য কুশল এর আরো সংবাদ
  •   গরম মশলার গুণাগুণ
  • ফুড সাপ্লিমেন্টের অবিশ্বাস্য কাহিনী
  • রমযানে সুস্থ থাকুন
  • রোগ নিরাময়ে লিচু
  • আগরের যত গুণ
  • উচ্চ রক্তচাপ মুক্তির উচ্চতর গবেষণা
  • নিয়মিত অ্যান্টাসিড সেবনে কিডনিতে পাথর হওয়ার ঝুঁকি বাড়ে
  • ব্যথানাশক ওষুধ নাকি ফিজিওথেরাপি
  • রোগ প্রতিরোধে তরমুজ
  • কণ্ঠনালির সমস্যা ও প্রতিকার
  • পিত্তথলীর ভেষজ চিকিৎসা
  • ফুটপাতের শরবত আর চাটনি : সংকটে জনস্বাস্থ্য
  • স্মৃতিশক্তি সমস্যা : করণীয়
  • যক্ষ্মা নির্মূলের এই তো সময়
  • মলদ্বারের রোগে পেটের সমস্যা
  • ব্যথার ওষুধ খাবেন সাবধানে
  • অতিরিক্ত ওজন ও স্থুলদেহী প্রসঙ্গ
  • স্বাস্থ্য রক্ষায় খতনা
  • আপনিই সুস্থ রাখতে পারেন আপনার কিডনি
  • এ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারে সতর্কতা
  • Developed by: Sparkle IT