বিনোদন

বিশ্ববাসীকে রোহিঙ্গা শিশুদের পাশে দাঁড়াতে বললেন প্রিয়াঙ্কা

প্রকাশিত হয়েছে: ২৮-০৫-২০১৮ ইং ০২:০৯:২৪ | সংবাদটি ১৭৩ বার পঠিত

বিনোদন ডেস্ক : রোহিঙ্গাদের সমস্যা, শিশুদের স্বপ্ন নিয়ে ফেসবুক লাইভে কথা বলার সময় ভক্তদের প্রশ্ন ও নিজের উত্তরে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন হলিউড ও বলিউড অভিনেত্রী এবং ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।
এ সময় রোহিঙ্গা শিশু ও নারীদের চলমান জীবনের নানা সমস্যার কথা তুলে ধরে প্রিয়াঙ্কা বলেন, রোহিঙ্গা শিশুরা তাদের ভবিষ্যৎ সম্পর্কে কিছুই জানে না। কিন্তু বাংলাদেশে আশ্রিত জীবনে এখন তারা মৌলিক শিক্ষা পাচ্ছে। তাদের স্বাভাবিক জীবন ফিরিয়ে দিতে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।
রোহিঙ্গা শিশুটি জানে না তার সামনে কে বসে আছেন। কিন্তু প্রিয়াঙ্কা চোপড়া তো জানেন শিশুটি তার দেশ হারিয়েছে। পরিবারহীন তার পৃথিবী ল-ভ-। তাই তো শিশুটিকে একমুহূর্ত আনন্দ দেওয়ার জন্য তার সঙ্গে খেলতে শুরু করেন তিনি।
দ্বিতীয় দিনের মতো মঙ্গলবার কক্সবাজারে টেকনাফের হারিয়াখালী, উনচিপ্রাং এবং উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা আশ্রয়শিবির পরিদর্শন করেছেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। এ সময় রোহিঙ্গাদের মুখে তাদের ওপর মায়ানমার বাহিনীর বর্বর নির্যাতনের বর্ণনা শোনেন তিনি।
শুধু রোহিঙ্গা আশ্রয়শিবির পরিদর্শনই নয়, গত ২৫ আগস্ট থেকে রোহিঙ্গারা নাফ নদের যে পয়েন্ট দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকেছে, টেকনাফ সীমান্তের সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপের হারিয়াখালী বেড়িবাঁধের সেই দুর্গম এলাকাও ঘুরে দেখেছেন এই ভারতীয় অভিনেত্রী।
সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উখিয়ার রয়েল টিউলিপ হোটেল থেকে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়ক দিয়ে টেকনাফের শাহপরীর দ্বীপ হারিয়াখালী এলাকায় পৌঁছান প্রিয়াঙ্কা। গাড়ি থেকে নেমে তিনি সীমান্তে রোহিঙ্গাদের অনুপ্রবেশের স্থানগুলো ঘুরে দেখেন। শাহপরীর দ্বীপের হারিয়াখালী বেড়িবাঁধের ভাঙন স্থানে কিছু সময় হাঁটাহাঁটি করেন। সেখানে দাঁড়িয়ে নাফ নদের ওপারের মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যটি দেখেন।
হারিয়াখালী ভাঙন এলাকা পরিদর্শন শেষে প্রিয়াঙ্কা গাছের নিচে দাঁড়িয়ে স্থানীয় শিশুদের সঙ্গে কথা বলেন, হাসাহাসি করেন, খেলাধুলা করেন এবং ছবি তোলেন। এ সময় নিরাপত্তার কড়াকড়ি দেখে কিছুটা বিরক্ত হন তিনি। নিরাপত্তা কমানোর জন্য পুলিশকে অনুরোধ করেন। নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশকে তিনি বলেন, ‘আমার জন্য এত বেশি নিরাপত্তার প্রয়োজন নেই।’
এরপর সকাল ১০টার দিকে টেকনাফের নেটং পাহাড়ের উদ্দেশে রওনা হন তিনি। সেখানে পৌঁছলে নাফ নদ দিয়ে মায়ানমার থেকে কিভাবে রোহিঙ্গারা অনুপ্রবেশ করছে, তা প্রিয়াঙ্কার সামনে তুলে ধরা হয়। এখানে ১৫ মিনিট অবস্থান করেন তিনি।
পরে লেদা বিজিবি চৌকির কাছে ইউনিসেফ পরিচালিত শিশুদের খেলাধুলার জন্য তৈরি স্থান পরিদর্শন করেন। সেখান থেকে লেদা অস্থায়ী রোহিঙ্গা আশ্রয়শিবিরে যাওয়ার কথা থাকলেও তিনি যাননি। পরে প্রিয়াঙ্কাকে নিয়ে ইউনিসেফের গাড়িবহর উখিয়ার বালুখালীতে স্থাপিত অস্থায়ী রোহিঙ্গা আশ্রয়শিবিরের দিকে রওনা হয়। সেখানে অস্থায়ী রোহিঙ্গা আশ্রয়শিবির পরিদর্শন শেষে তিনি হোটেলে ফেরেন।

শেয়ার করুন
বিনোদন এর আরো সংবাদ
  • ৩০ বছর পর ফেরদৌসী মজুমদার ও সুবর্ণা মুস্তাফা
  • অবশেষে ফাঁস হলো কোথায় হানিমুনে শ্রাবন্তী
  • কত আয় করল ‘দে দে পেয়ার দে’?
  • ঈদে গান আর মডেলিংয়ে কাঙালিনীর চমক
  • দীপিকার পোশাকে পৃথিবীর উত্তপ্ত
  • ঈদ ইত্যাদিতে ফেরদৌস-পূর্ণিমা, সিয়াম-পূজা
  • ঈদে মুক্তির তালিকায় আছে তিন চলচ্চিত্র
  •   শ্রাবন্তী তৃতীয় স্বামী সম্পর্কে অজানা কথা
  • বয়স তাঁর ক্রাশ খাওয়ার!
  • ছিলেন নায়িকা, হয়ে গেলেন নতুন এ্যাসিস্ট্যান্ট
  •  নতুন ছবি নিয়ে সিয়াম-পূজা-তাসকিন
  • মিউজিক ভিডিওতে ঝুঁকছে আর্টিস্টরা
  • শাকিবকে নিয়ে মুখোমুখি ববি-বুবলী
  • বাংলাদেশি বিজ্ঞাপনে সোনাক্ষী সিনহা
  • মুক্তি পেয়েছে দুটি ছবি
  • আমাকে নতুনভাবে দেখবেন দর্শকরা : বুবলী
  • ফটোগ্রাফিতে মজেছেন পরীমনি!
  • অনন্ত জলিলের ছবির শুটিং হলিউড সিনেমার অভিজ্ঞতা
  • সেরা অভিনেতা হলেন সিয়াম, জয়া
  • অভিনেত্রী পড়শী রুমির জন্মদিন পালিত
  • Developed by: Sparkle IT