সম্পাদকীয় যদি সর্বোচ্চ আসন পেতে চাও তবে সর্বনি¤œ স্থান থেকে শুরু করো। -ডেল কার্ণেগী।

সরকারি আইনি সহায়তা

প্রকাশিত হয়েছে: ০৬-০৬-২০১৮ ইং ০২:২৪:৪৯ | সংবাদটি ১০৬ বার পঠিত

বছরে ২৫ হাজার মানুষ সরকারি আইনি সহায়তা পাচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে আইনি পরামর্শ, আদালতে মামলা পরিচালনা, শ্রমিক সহায়তা, বিকল্প পদ্ধতিতে বিরোধ নিষ্পত্তি ও তথ্য সেবা। দেশের ৬৪টি জেলা কমিটির মাধ্যমে দেয়া হচ্ছে এই আইনি সহায়তা। অসহায় ও অসচ্ছলদের আইনি সহায়তা দিতে সরকারি এই আইনি সেবা কার্যক্রমে এখন বিকল্প পদ্ধতিতে মধ্যস্থতার মাধ্যমে বিরোধ নিষ্পত্তির গুরুত্বও বাড়ছে। কারণ এই পদ্ধতিতে বিরোধ নিষ্পত্তি হয় স্বল্প সময়ে। ২০১৪ সালে জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান নীতিমালা অনুসারে সুপ্রিম কোর্টে কোন মামলায় আইনগত সেবা পেতে হলে আর্থিকভাবে অসচ্ছল ব্যক্তির বার্ষিক গড় আয় দেড় লাখ এবং অন্যান্য আদালতের ক্ষেত্রে বার্ষিক গড় আয় এক লাখ টাকার বেশি হবে না। সহজতর উপায়ে আইনি সেবা দেয়ার উদ্দেশ্যে সরকার একটি জাতীয় হেল্প লাইন কল সেন্টারও চালু করেছে।
অস্বীকার করার উপায় নেই যে, বিনা বিচারে আটক থাকতে হচ্ছে নিরীহ অসহায়দের বছরের পর বছর। তারা পাচ্ছে না আইনগত সহায়তা। অসহায় বিচারপ্রার্থীরা দ্বারে দ্বারে ঘুরছে; তারা পাচ্ছে না কোথাও এতোটুকু আশ্রয়। এদেশে এই ধরণের ঘটনা ঘটছে অহরহ। আইনগত সহায়তা পাচ্ছে না অসংখ্য মানুষ। মূলত অর্থ এবং সচেতনতার অভাবেই তারা সুবিচার প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। অথচ প্রচলিত বিধান অনুযায়ী নিঃস্ব, অসহায়, অসচ্ছল ব্যক্তিদের সরকারি আইনি সহায়তা পাওয়ার অধিকার রয়েছে। অসহায়দের আইনি সহায়তা দিতে সরকার দুই হাজার সালে আইনগত সহায়তা প্রদান আইন প্রণয়ন করে। এই আইন সফল ও বাস্তবায়ন করতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে হবে। বর্তমানে অসচ্ছল অসহায় বিচারপ্রার্থীদের খুব সামান্য অংশই সরকারি আইনি সহায়তা পাচ্ছে।
আইনগত সহায়তা প্রদান আইন অনুযায়ী যারা এই সহায়তা পাওয়ার জন্য যোগ্য তাদের মধ্যে রয়েছেন কর্মক্ষন নন, আংশিক কর্মক্ষয়, কর্মহীন বা বার্ষিক ছয় হাজার টাকার উর্ধ্বে আয় করতে অক্ষম এমন মুক্তিযোদ্ধা, বয়স্ক ভাতা পাচ্ছেন এমন কোনো ব্যক্তি, ভিজিডি কার্ডধারী দুঃস্থ মাতা এসিডদগ্ধ নারী বা শিশু, অসচ্ছল বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা, দুঃস্থ মহিলা, আর্থিক অসচ্ছলতার দরুণ আদালতে অধিকার প্রতিষ্ঠা বা আত্মপক্ষ সমর্থন করতে অসমর্থ ব্যক্তি, বিনা বিচারে আটক এমন ব্যক্তি যিনি আত্মপক্ষ সমর্থন করার যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণে আর্থিকভাবে অসচ্ছল, আদালত থেকে আর্থিকভাবে অসহায় বা অসচ্ছল বলে বিবেচিত ব্যক্তি এবং জেল কর্তৃপক্ষ কর্তৃক আর্থিকভাবে অসহায় বলে সুপারিশকৃত কোনো ব্যক্তি।
অসচ্ছলদের আইনি সহায়তা প্রদান নিশ্চিত করতে হলে প্রথমেই যারা এই সহায়তা দেবেন সেই আইনজীবীসহ সংশ্লিষ্টদের সচেতন করে তুলতে হবে। আইনগত সহায়তাপ্রাপ্ত ব্যক্তি ও তার পক্ষের সাক্ষীদের সহায়তা খরচ প্রাপ্তির ব্যবস্থা করা, বিচারপ্রার্থীকে কোর্ট ফি সহ মামলার যাবতীয় খরচ প্রদান করাসহ প্রত্যেক জেলায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতে একটি সুনির্দিষ্ট কক্ষে আইনগত সহায়তা প্রদান সংক্রান্ত তথ্যকেন্দ্র ও কার্যালয় স্থাপন করা যেতে পারে। সমাজের নিরীহ অসচ্ছল ব্যক্তিরা নানাভাবে প্রভাবশালীদের দ্বারা’ কখনও রাষ্ট্রযন্ত্র দ্বারা হয়রানী-নির্যাতনের শিকার হচ্ছে। তারা সুবিচার পাচ্ছে না। অথচ সংবিধান অনুযায়ী সব নাগরিকই আইনের দৃষ্টিতে সমান আশ্রয় লাভের অধিকারী। তাই সংবিধানকে সমুন্নত রাখতেই অসহায়দের বিনামূল্যে সরকারি আইনি সহায়তা প্রাপ্তি নিশ্চিত করতে হবে।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT