শেষের পাতা

ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস উপলক্ষে জাতির পিতার প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন

প্রকাশিত হয়েছে: ০৮-০৬-২০১৮ ইং ১৯:৪৩:৪৫ | সংবাদটি ১৭ বার পঠিত

ডাক ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ঐতিহাসিক ছয় দফা দিবস উপলক্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধা নি্েবদন করেছেন।
রাজধানীর ধানমন্ডি-৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সন্মুখে রক্ষিত জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণ করে প্রধানমন্ত্রী এই শ্রদ্ধা জানান।
জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ অর্পণের পরে স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি এই মহান নেতার প্রতি সন্মান জানানোর জন্য প্রধানমন্ত্রী সেখানে কিছুক্ষণ নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।
দলের সভাপতি হিসেবে শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের নিয়ে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে আরেকটি ফুলেল শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পণ করেন।
এ সময় আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমির হোসেন আমু,তোফায়েল আহমেদ এবং মোজাফ্ফর হোসেন পল্টু, সভাপতি মন্ডলীর সদস্য মুহম্মদ ফারুক খান এবং ড.আব্দুর রাজ্জাক, দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন এবং এনামুল হক শামীম এবং দপ্তর সম্পাদক ড.আব্দুস সোবহান গোলাপ অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন।
পরে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন সহযোগী সংগঠন- মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তর ও দক্ষিণ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগ, কৃষক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ এবং স্বেচ্ছাসেবক লীগের পক্ষ থেকে জাতির পিতার প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পণ করা হয়।
১৯৬৬ সালের ৭ জুন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঘোষিত বাঙালি জাতির মুক্তির সনদ ৬-দফা দাবির পক্ষে এবং পূর্ব পাকিস্থানের স্বায়ত্বশাসনের দাবিতে দেশব্যাপী তীব্র গণআন্দোলনের সূচনা হয়।
বঙ্গবন্ধুর যাদুকরী নেতৃত্বের অধীনে আওয়ামী লগ পাকিস্তান কেন্দ্রীয় সরকারের শোষণ-বঞ্চনা ও অধীনতা অবসানে স্বায়ত্তশাসনের দাবীতে ১৯৬৬ সালের ৭ জুন দিনব্যাপী হরতাল আহ্বান করে। আওয়ামী লীগের ডাকা এ হরতালে টঙ্গি, ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জে পুলিশ ও ইপিআর’র গুলিতে মনু মিয়া, শফিক ও শামসুল হকসহ ১১ জন বাঙালি শহীদ হন।
এরপর থেকেই বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আপোষহীন সংগ্রামের ধারায় ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থানের দিকে এগিয়ে যায় পরাধীন বাঙালি জাতি।
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৬৬ সালের ৫ ফেব্রুয়ারি তাসখন্দ চুক্তিকে কেন্দ্র করে লাহোরে অনুষ্ঠিত সম্মেলনের সাবজেক্ট কমিটিতে ৬-দফা উত্থাপন করেন এবং পরের দিন সম্মেলনের আলোচ্যসূচিতে যাতে এটি স্থান পায় সে ব্যাপারে সংশি¬ষ্টদের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করেন। কিন্তু এই সম্মেলনে বঙ্গবন্ধুর এ দাবির প্রতি আয়োজকপক্ষ থেকে গুরুত্ব প্রদান করা হয়নি। তারা এ দাবি প্রত্যাখ্যান করে।
প্রতিবাদে বঙ্গবন্ধু সম্মেলনে যোগ না দিয়ে লাহোরে অবস্থানকালেই ৬-দফা উত্থাপন করেন। এ নিয়ে পশ্চিম পাকিস্তানের বিভিন্ন খবরের কাগজে বঙ্গবন্ধুকে বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা বলে চিহ্নিত করা হয়।

শেয়ার করুন
শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে ত্রিপক্ষীয় সমঝোতায় যুক্তরাষ্ট্রের সায়
  • ওসমানী বিমানবন্দরে পৌনে ৪ কোটি টাকার স্বর্ণসহ এক যাত্রী আটক
  • পেট্রোলপাম্প কর্মচারীকে ছুরিকাঘাত জ্বালানি তেল ব্যবসায়ীদের আন্দোলনের হুমকি
  • বিভিন্ন স্থানে খাদ্যসামগ্রী ও বস্ত্র বিতরণ
  • রহমানিয়া প্রতিবন্ধী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের খাদ্য বিতরণ সরকার প্রতিবন্ধীদের কল্যাণে বদ্ধ পরিকর
  • র‌্যাব এর বিশেষ মোবাইল কোর্ট অভিযানে ১৫ মাদকসেবীর কারাদন্ড
  • কোম্পানীগঞ্জে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এমপি ইমরান আহমদ
  • গোলাপগঞ্জে চুরি করতে গিয়ে এক দম্পতি এখন শ্রীঘরে
  • লৈকিকতা নয়, চরিত্র গঠন ও সাম্য প্রতিষ্ঠার নাম রোজা
  • বাংলাদেশকে হোয়াইটওয়াশ করলো আফগানিস্তান
  • সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করাই বর্তমান সরকারের ভিশন
  • হবিগঞ্জ-৪ আসনের এমপির বিরুদ্ধে অবৈধ সম্পদ অর্জন ও বিদেশে অর্থ পাচারের বিষয়ে তোলপাড়
  • জগন্নাথপুরে জমে উঠেছে ঈদ বাজার
  • নদী পাড়ের মানুষের মধ্যে স্বস্তি দোয়ারাবাজারের খাসিয়ামারা নদীতে বালু উত্তোলন বন্ধ
  • গ্রাম আদালত সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে
  • লিডিং ইউনিভার্সিটির সোশ্যাল সার্ভিসেস ক্লাবের খাদ্যসামগ্রী বিতরণ
  • ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কর কমল ২.৫ শতাংশ
  • ঐতিহাসিক ৬ দফা দিবস উপলক্ষে জাতির পিতার প্রতি প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদন
  • স্বাস্থ্য খাতে ২৩ হাজার ৩৮৩ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব
  • সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত
  • Developed by: Sparkle IT