সাহিত্য

ঐতিহ্য রক্ষায় অঙ্গীকারাবদ্ধ কাগজ

মীম মিজান প্রকাশিত হয়েছে: ১০-০৬-২০১৮ ইং ০১:৫৩:২৯ | সংবাদটি ১২৯ বার পঠিত

লিটলম্যাগ সাহিত্যের প্রাণ। এই আন্দোলন অনেকটা জোরালোভাবে পরিলক্ষিত হচ্ছে আমাদের সাহিত্যাঙ্গনে। প্রায় সকল প্রতিষ্ঠিত ও জনপ্রিয় লেখকের সূতিকাগার এই লিটলম্যাগ। আপাত দৃষ্টিতে জাতীয় দৈনিকগুলোর থেকে এই লিটলম্যাগের কার্যকারিতা কিছুটা দুর্বল মনে হলেও সাহিত্যকে চাঙ্গা রেখেছে এই মাধ্যমটি। বাংলা সাহিত্যাঙ্গনের এই আন্দোলন যখন খড়স্রোতা তটিনীর মতো প্রবাহমান তখন সেই স্রোতকে আরো বেগান্বিত করতে ‘পূর্ব মুড়িয়া সাহিত্য পরিষদ’ এক যুগান্তরী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।
‘ঐতিহ্য রক্ষায় আমরা অঙ্গিকারাবদ্ধ’ স্লোগান নিয়ে বাংলাভাষী পাঠকদের পিপাসার জল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে ‘সুনাই’ ম্যাগাজিনের। ইতোমধ্যে এই বহুল পঠিত ম্যাগাজিনটির তিনটি চমৎকার সংখ্যা বের হয়েছে। পাঠক নন্দিত হয়েছে ম্যাগাজিনটি। বক্ষমান সংখ্যার ম্যাগাজিনটি হচ্ছে বিজয় দিবস সংখ্যা-২০১৭।
প্রচ্ছদটি যেমনই নিখুঁত তেমনি শৈল্পিক। শিল্পী শাহাবুদ্দিন এর চিত্র অবলম্বনে গুণী ডিজাইনার শামস্ নূর প্রচ্ছদটি এঁকেছেন। ঊর্ধ্বাংশে শহীদদের রক্তের ফল্গুধারা। একাত্তরের গণহত্যার লাশের স্তূপ। মাঝখানে এ্যাবস্ট্রাক্ট ধরনের চিত্রে মুক্তিযোদ্ধাদের ধাবমানতা। বজ্রমুষ্টিতে ধারণকৃত লাল-সবুজের পতাকার পতপত উড়ে চলা। শেষাংশে মুক্তিযুদ্ধের প্রশিক্ষণ। যুদ্ধের দৃশ্য ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের ১৬ ডিসেম্বরের আত্মসমর্পণের ছবি। প্রচ্ছদটি যেন বাংলাদেশ। বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের চিত্রকাব্য।
আশি পৃষ্ঠার কলেবরের এই পত্রিকাটি তিনটি ভাগে বিভক্ত। সম্পাদকীয় ও প্রকাশকের কথা' শিরোনামে সুনাই পত্রিকার সম্পাদক মো. মাহবুবুল আলম চৌধুরী হাছিব এর সম্পাদকীয়ের পর প্রকাশকের কথায় শাহিন আলম প্রথাগত ভুলত্রুটি মার্জনার সাথে দেখার আহ্বান জানিয়েছেন।
সাত পৃষ্ঠা থেকে ঊনচল্লিশ পৃষ্ঠা পর্যন্ত ছয়টি প্রবন্ধ-নিবন্ধ ও চারটি গল্পের সমন্বয়ের প্রথমাংশ। দ্বিতীয়াংশ চল্লিশ পৃষ্ঠা থেকে বায়ান্ন পৃষ্ঠা পর্যন্ত সতেরটি ছড়া-কবিতায় সাজানো। তৃতীয়াংশে তেপ্পান্ন পৃষ্ঠা থেকে চুয়াত্তর পৃষ্ঠা পর্যন্ত মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম যাঁরা, পূর্ব মুড়িয়ার মুক্তিযোদ্ধাদের সংক্ষিপ্ত পরিচিতি, দু’জন ভেটেরান মুক্তিযোদ্ধার সাক্ষাৎকার উপস্থাপিত হয়েছে।
স্বাধিকার ও স্বাধীনতার স্বপ্নের সারথি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান'র কারাবরণের দিনগুলির দিনলিপির গ্রন্থ ‘কারাগারের রোজনামচা’ নিয়ে ‘কারাগারেরর রোজনামচা ইতিহাসের অশ্রুগাথা’ শিরোনামের প্রবন্ধে অপূর্ব শর্মা বঙ্গবন্ধুর সামগ্রিক জীবনকে তুলে ধরার চেষ্টা করেছেন। বিশেষত তাঁর (বঙ্গবন্ধুর) কারাগার জীবন সম্পর্কে উক্ত বইয়ের আলোকে আলোচিত হয়েছে। এরকম ‘পূর্ব মুড়িয়া ঃ একাত্তরের একখ- বাংলাদেশ’, ‘শহিদ মাওলানা মকদ্দছ আলী ময়না মিয়া’, ‘শহিদ অধ্যাপক ড. জিসি দেব’, ‘রোহিঙ্গা সমস্যা ঃ সমাধান কোথায়?’, বিশ্ব ইতিহাসে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ’ শীর্ষক প্রবন্ধসমূহে মুক্তিযুদ্ধকে সম্যকভাবে তুলে ধরা হয়েছে। এই সাহিত্য পত্রিকাটি যে এলাকার সেই এলাকার মুক্তিযুদ্ধের অবদান নিয়ে আজিজুল পারভেজ ‘পূর্ব মুড়িয়া ঃ একাত্তরের একখ- বাংলাদেশ’ প্রবন্ধে এলাকার সূর্য সন্তানদের অবদানের কথা তুলে ধরেছেন। প্রবন্ধের প্রথম বাক্যটি তুলে ধরছি, ‘বাঙালির মুক্তি সংগ্রামের উত্তাল ঢেউ লেগেছিল এক অজপাড়াগাঁয়ে পূর্ব মুড়িয়ায়ও।’
সতেরটি ছড়া কবিতার প্রায় প্রত্যেকটিতে ফুটে উঠেছে নয়মাসের অদম্য যুদ্ধ। যুদ্ধের পিছনের কারণ। প্রেরণার বাতিঘর। একটি স্বাধীন ভূখ- ও একটি উড়ন্ত কেতন। পরের গোলামীর শিকল ভাঙ্গার বজ্র হুংকার। ত্যাগের মহিমা। কোটি কোটি মানুষের ভাগ্যের রক্তিম অরুণোদয় ইত্যাদি কাব্যিক ছন্দময়তায় ও শব্দের ব্যঞ্জনায় প্রথিত হয়েছে।
সম্পাদক মো. মাহবুবুল আলম চৌধুরী হাছিবকে আবারো সাধুবাদ জানাই যে তিনি ঐতিহ্যকে রক্ষার জন্য অঙ্গিকারাবদ্ধ হয়ে এ চমৎকার প্রকাশনাটি প্রকাশ করেছেন। জাতি যদি তার শেকড় ও ঐতিহ্যকে না জানে তাহলে তারা উন্নাসিকতায় মশগুল হবে। আর জাতি যেন উন্নাসিকতায় মশগুল না হয়ে শেকড় ও ঐতিহ্যকে অনুসরণ করে সমৃদ্ধির তোরণ গড়ে এ রকম কাজের উৎস যারা অক্লান্তভাবে আন্জাম দিচ্ছেন তাদেরকে দেশ ও জাতি স্মরণ করবে অনাদিকাল।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT