প্রথম পাতা

২০% মহার্ঘ্য ভাতা কার্যকর ১ জুলাই থেকেই 

প্রকাশিত হয়েছে: ২৫-০৬-২০১৮ ইং ০৩:১৬:৩০ | সংবাদটি ৪৯৬ বার পঠিত

 

ডাকডেস্ক : জাতীয় বেতনস্কেলভুক্ত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য ২০ শতাংশ মহার্ঘ্য ভাতার গেজেট জারি করেছে সরকার।

গত সোমবার অর্থমন্ত্রণালয়ের এক আদেশে বলা হয়, চলতি বছরের ১ জুলাই থেকেই এ মাহার্ঘ্য ভাতা কার্যকর হবে।এতে বলা হয়, মূল বেতনের ২০ শতাংশ হারে এই ভাতার পরিমাণ হবে মাসে ১৫০০ থেকে ৬০০০ টাকা।জাতীয় বেতন স্কেলভুক্ত সব সরকারি, বেসরকারি, স্বায়ত্ত্বশাসিত ও বিশেষায়িত প্রতিষ্ঠান, সরকারি ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং সামরিক ও আধা সামরিক বাহিনীর সদস্যদের ক্ষেত্রে এই মহার্ঘ ভাতা প্রযোজ্য হবে।

সরকারের মেয়াদের শেষ সময়ে এসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা  গত রোববার এক অনুষ্ঠানে ২০ শতাংশ মহার্ঘ্য ভাতার এই ঘোষণা দেন। সরকার একটি স্থায়ী পে কমিশন গঠন করতে চায় বলেও উল্লেখ করেন তিনি।অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এর আগে জানিয়েছিলেন, চলতি অক্টোবর মাসেই সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্থায়ী পে কমিশনের ঘোষণা আসতে পারে। বর্তমানে দেশে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীর সংখ্যা ১৩ লাখ।এর মধ্যে চাকরিতে সক্রিয় আছেন প্রায় ১১ লাখ।সর্বশেষ ২০০৯ সালের ১ জুলাই সরকারি চাকুরেদের বেতন-ভাতা বাড়ানো হয়।

মাহার্ঘ্য ভাতার প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, অবসরোত্তর ছুটিতে (পিআরএল) থাকা কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ছুটির আগে সর্বশেষ যে হারে মূল বেতন পেতেন, তার ২০ শতাংশ হারে মহার্ঘ্য ভাতা পাবেন।

গত ১ জুলাই থেকে পরবর্তী নতুন জাতীয় বেতন স্কেল কার্যকর হওয়ায় আগের দিন পযন্ত যেসব কর্মকর্তা-কর্মচারী পেনশনে গিয়েছেন বা যাবেন তাদের মূল বেতনের সঙ্গে মহার্ঘ্য ভাতা যোগ করে পেনশন নির্ধারণ করা হবে। সাময়িক বরখাস্ত কর্মচারী-কর্মকর্তারা সাময়িক বরখাস্তের তারিখের আগের মূল বেতনের ৫০ শতাংশের (অর্ধেক) সঙ্গে ২০ শতাংশ হারে এ ভাতা পাবেন।

সরকার থেকে যারা পেনশন পাচ্ছেন, তারা পেনশনের বিদ্যমান অংশের ওপর ২০ শতাংশ হারে মহার্ঘ্য ভাতা পাবেন।

এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা একই হারে এ মহার্ঘ্য ভাতা পাবেন।

জাতীয় বেতনস্কেলের আওতায় চুক্তিভিত্তিক নিয়োগপ্রাপ্ত কর্মচারী-কর্মকর্তারা তাদের নির্ধারিত মূল বেতনের ভিত্তিতে এ সুবিধা পাবেন।বিনা বেতনে ছুটিতে থাকাকালীন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা এ সুবিধা পাবেন না।

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • নাজমুল হুদার নেতৃত্বে ১৪ দলে যোগ দিতে চায় ৯ দল
  • নগরীর বিভিন্ন এলাকায় এডভোকেট জুবায়েরের সমর্থনে গণসংযোগ
  • অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন হলে আরিফুল হক চৌধুরীই মেয়র হবেন -----মোহাম্মদ শাহজাহান
  • প্রার্থী হিসেবে যারা নিজেদের দুর্বল ভাবছেন তারাই বিভিন্ন অপপ্রচার চালাচ্ছে
  • বিভিন্ন প্রজাতির কয়েক হাজার গাছ লাগালেন দেশে সবুজ বিপ্লবের অন্যতম নায়ক দানবীর ড. রাগীব আলী
  • কাউন্সিলর পদে পুরনোরা মরিয়া ধারাবাহিকতা রক্ষায়
  • অর্থমন্ত্রী দেশকে অর্থনৈতিক দিক থেকে ফোকলা করে দিচ্ছেন : ফখরুল
  • সব সোনা ঠিক আছে, ঘরেই আছে: অর্থ প্রতিমন্ত্রী
  • এইচএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশ আজ
  • সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে সরকার সব রকমের ব্যবস্থা নিয়েছে : প্রধানমন্ত্রী
  • লিডিং ইউনিভার্সিটিতে বৃÿরোপণ অভিযান আজ
  • মানবতাবিরোধী অপরাধে রাজনগরের ৪ জনের ফাঁসি এলাকায় আনন্দ উলøাস
  • দৈনিক সিলেটের ডাক ৩৫ তম বর্ষে পদার্পণ করলো আজ
  • ওসমানী হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসকের কক্ষে কিশোরী পাশবিক নির্যাতনের শিকার গ্রেফতার চিকিৎসক মাকামে মাহমুদ কারা
  • তদন্তে বিভিন্ন অভিযোগ প্রমাণিত ছাতকের সিংচাপইড় ইউপি চেয়ারম্যান সাহেল সাময়িক বরখাস্ত
  • তদন্তে বিভিন্ন অভিযোগ প্রমাণিত ছাতকের সিংচাপইড় ইউপি চেয়ারম্যান সাহেল সাময়িক বরখাস্ত
  • শায়খুল হাদিস জিল্লুর রহমানের ইন্তেকাল জানাজায় মানুষের ঢল ॥ বিভিন্ন মহলের শোক
  • আদালতে স্বীকারোক্তি ওসমানীনগরে আপন তিন ভাই মিলে হত্যা করে সৌদি প্রবাসী পুলিশের তদন্তে চাঞ্চল্যকর তথ্য
  • ভোটকেন্দ্রে নির্বিঘেœ ভোট দেয়ার পরিবেশ সৃষ্টির নির্দেশ নির্বাচন কমিশনের ২৭ জুলাই বহিরাগতদের নগরী ছাড়তে হবে
  • লিডিং ইউনিভার্সিটির ইংরেজি বিভাগের সেমিনার সাহিত্য চর্চা চিন্তা ও চেতনার বিকাশ ঘটায় ------------------ ড. মো: কামরুজ্জামান
  • Developed by: Sparkle IT