সম্পাদকীয়

সিলেট-ছাতক রেলপথ

প্রকাশিত হয়েছে: ০৪-০৭-২০১৮ ইং ০৩:০৩:১২ | সংবাদটি ১১৭ বার পঠিত

সিলেট-ছাতক রেলওয়ের তিনটি স্টেশন পরিত্যক্ত। ঝুঁকি নিয়ে চলছে ট্রেন; হয়রানীর শিকার যাত্রীরা। সিলেট-ছাতক ৩৫ কিলোমিটার রেল সড়কে খাজাঞ্চিগাঁও, সৎপুর ও আফজলাবাদ স্টেশন পরিত্যক্ত হয়ে পড়েছে। এই সেকশনে অনিয়মিত ট্রেন চলাচল করলেও উল্লিখিত স্টেশনগুলো তালাবদ্ধ। এখানে নেই যাত্রীদের আনাগোনা। স্টেশন মাস্টার কিংবা অন্য কোনো কর্মকর্তা-কর্মচারীর পদচারণা নেই। এই পত্রিকায় প্রকাশিত খবরে বলা হয় ১৯৫৬ সালে প্রতিষ্ঠিত এই রেলপথে স্বাভাবিক ট্রেন চলাচল ছিলো ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত। ছাতক থেকে সিমেন্ট, চুনা পাথর, স্লিপার, বালু, বোল্ডার ও ভাঙ্গা পাথর দেশের বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ করার জন্য নির্মিত রেল লাইনটি এই অঞ্চলের হাজার হাজার যাত্রীর পরিবহনের নির্ভরযোগ্য মাধ্যম হিসেবেও প্রতিষ্ঠিত হয়ে পড়ে। বর্তমানে এই লাইনে ট্রেন চলাচল অনিয়মিত হয়ে পড়েছে। রেল পথের অবস্থাও শোচনীয়।
দেশে সার্বিকভাবে রেলের অবস্থা ভালো নয়। সেবারমান নিয়ে অসন্তুষ্টি বাড়ছে যাত্রীদের মধ্যে। দীর্ঘদিন সংস্কারের অভাবে অনেক লাইন হয়ে পড়েছে ঝুঁকিপূর্ণ। [এই অবস্থায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে যাতায়াত করছে যাত্রীরা। জানা গেছে, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন স্থানে প্রায় দু’শ রেল স্টেশন বন্ধ হয়ে গেছে। আর বন্ধ হয়ে যাওয়া এইসব রেল স্টেশনের মূল্যবান মালামাল লুটপাঠ হচ্ছে। চুরি হচ্ছে যন্ত্রাংশ। বেদখল হচ্ছে রেলওয়ের জমি। জানা গেছে, শুধু স্টেশন সুপার ও মাস্টারের সংকটের কারণে আংশিক বন্ধ রয়েছে প্রায় অর্ধশত স্টেশন।] রেলওয়ের চাহিদা অনুযায়ী কমপক্ষে ৪২ হাজার কর্মী থাকার কথা থাকলেও আছে মাত্র ১৯ হাজার কর্মী। তাছাড়া, রয়েছে ব্যাপক অনিয়ম দুর্নীতি। যে কারণে প্রতি বছর লোকসান দিয়ে যাচ্ছে রেলওয়ে। গত বছর লোকসানের পরিমাণ হচ্ছে এক হাজার আটশ’ ৫৩ কোটি টাকা। সরকার নিয়ন্ত্রিত যোগাযোগের এই মাধ্যমটিকে টিকিয়ে রাখা এবং এর উন্নয়ন সবচেয়ে জরুরি। দেশব্যাপী সড়ক পথের বিস্তার ঘটেছে; চলাচল করছে বিলাসবহুল যানবাহন। তাই সড়ক পথের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে দেড়শ বছরের পুরনো রেল লাইনের ব্যাপক উন্নয়ন করতে হবে।
কর্তৃপক্ষের অবহেলায় সিলেট-ছাতকসহ আরও বেশ কয়েকটি শাখা লাইন পরিত্যক্ত হয়ে পড়েছে। অনেকগুলো বন্ধ হয়ে গেছে। ট্রেন লাইনের স্লিপার তুলে সেটিকে সড়ক পথে রূপান্তরের ঘটনাও ঘটেছে। আমরা চাইনা আর কোনো ট্রেন লাইন সড়ক পথে পরিণত হোক। সিলেট-ছাতক ট্রেন লাইনসহ প্রায় পরিত্যক্ত অন্যান্য ট্রেন লাইন প্রয়োজনীয় রক্ষণাবেক্ষণের মাধ্যমে চালু করা হোক, খোলে দেয়া হোক স্টেশনগুলো, যাত্রীদের আনাগোনা আর ট্রেন ছাড়ার টুং টাং সংকেত ধ্বনীতে মুখরিত হয়ে উঠুক স্টেশনগুলো। আশার কথা হচ্ছে, সরকার সম্প্রতি বন্ধ থাকা ৬০টি রেল স্টেশন চালুর উদ্যোগ নিয়েছে। এভাবে চালু হোক একে একে সব বন্ধ স্টেশন।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT