শেষের পাতা

ইসলামের শিক্ষাকে সমুন্নত রাখার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত হয়েছে: ১২-০৭-২০১৮ ইং ০৩:৫৯:৫১ | সংবাদটি ৪০ বার পঠিত

ডাক ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘হজ কার্যক্রম ২০১৮’র (১৪৩৯ হিজরী) উদ্বোধন করতে গিয়ে ইসলাম সম্পর্কে বিভ্রান্তি ছড়ানো থেকে সবাইকে সতর্ক থাকার আহবান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘ধর্মের শিক্ষা মানুষের কাছে যেন উচ্চ আসনে থাকে সেটা প্রতিষ্ঠা করাই আমাদের লক্ষ্য। কিন্তু কিছু লোক নিজস্ব স্বার্থে ইসলামের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে আমাদের জন্য, সমগ্র মুুসলিম সম্প্রদায়ের জন্য সমস্যার সৃষ্টি করছে।’ শেখ হাসিনা গতকাল বুধবার সকালে বিমানবন্দর আশকোনা হজক্যাম্প এলাকায় এই কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। এবার ১ লাখ ২৬ হাজার ৭৯৮ জন হজযাত্রী পবিত্র হজব্রত পালনে মক্কা নগরীতে যাচ্ছেন।হজ কার্যক্রম উদ্বোধনের পর হজযাত্রীদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন প্রধানমন্ত্রী।জঙ্গি ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তাঁর সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, কিছু মানুষ যখন ইসলামের নাম নিয়ে সন্ত্রাসি কর্মকান্ড করে এবং জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করে তখন বিশ্বে মুসলমানদের হেয় হতে হয়। ‘পবিত্র ইসলাম শান্তির ধর্ম এবং এই ধর্মেই আছে সকল ধর্মের মানুষ স্বাধীন ভাবে নিজ নিজ ধর্ম পালন করবে। আমাদের নবী করিম (সা:) ও সে কথা বারবার বলে গেছেন। কিন্তু, তারপরেও কিছু কিছু মানুষের অপকর্মের জন্য ইসলামকে অবমাননা করা হয়। যে অধিকার কারোরই নাই’,বলেন প্রধানমন্ত্রী। শেখ হাসিনা এসময় জাতির পিতার ভাষণের একটি উদ্বৃতি দিয়ে ইনসাফের ইসলাম কায়েমের জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান। বঙ্গবন্ধু ১৯৭০ এর সাধারণ নির্বাচনের আগে এক ঐতিহাসিক বেতার ভাষণে বলেছিলেন, ‘আমরা ইনসাফের ইসলামে বিশ্বাসী। আমাদের ইসলাম হযরত নবী করীম (সা:) এর ইসলাম, যে ইসলাম জগতবাসীকে শিক্ষা দিয়েছে ন্যায় ও সুবিচারের অমোঘ মন্ত্র।’ধর্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল, ধর্ম মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বিএইচ হারুন, ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন, রাজকীয় সৌদি দূতাবাসের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স আমির বিন ওমর সালেহ বক্তৃতা করেন।অর্থ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: আনিসুর রহমান স্বাগত বক্তৃতা করেন এবং অনুষ্ঠানে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মওলানা মিজানুর রহমান দেশ, জাতি এব মুসলিম উন্মহর শান্তি, সমৃদ্ধি ও অগগ্রতি এবং ‘৭৫’র ১৫ আগষ্ট শাহাদাত বরণকারি জাতির পিতা এবং তাঁর পরিবারের সদস্যদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত পরিচালনা করেন।মন্ত্রী পরিষদ সদস্যবৃন্দ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাবৃন্দ, সংসদ সদস্যবৃন্দ, সরকারের পদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ, সৌদি আরবসহ বিভিন্ন দূতাবাসের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং হজযাত্রীবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই অনুষ্ঠানে আসতে পেরে আমি অত্যন্ত আনন্দিত এবং প্রতিবছর আমি অপেক্ষা করে থাকি যারা হজে যাবেন তাদের সঙ্গে একটু সাক্ষাৎ হবে এবং আপনাদের কোন অসুবিধা থাকলে শুনে নেব এবং সেই সাথে আপনাদের দোয়াও চাইব।তিনি বলেন, আপনারা যাচ্ছেন আল্লাহর মেহমান হয়ে পবিত্র হজ পালনের জন্য। পবিত্র মক্কা ও মদীনা নগরীতে আপনারা যাবেন নবী করিম (সা.) পবিত্র রওজা পাক জিয়ারত করবেন। আপনারা ভালভাবে হজ পালন করে সুন্দর ও সুস্থভাবে যাতে ফিরে আসতে পারেন সেটাই আমাদের আকাঙ্খা।প্রধানমন্ত্রী এসময় ’৭৫’এর ১৫ আগষ্টের বিয়োগান্তক অধ্যায়ের উল্লেখ করে সেদিনের শাহাদাত বরণকারীদের জন্য হজযাত্রীদের কাছে দোয়া কামনা করেন।তিনি বলেন, ‘আপনারা তাঁদের জন্য একটু দোয়া করবেন আল্লাহ যেন তাঁদের বেহেশত নসীব করেন।’জাতির পিতার হত্যাতান্ডের পর ছয় বছর তাঁকে দেশে ফিরতে দেওয়া হয় নাই এবং ১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হবার পর থেকে দেশে ফেরার পর থেকে তিনি দেশের মানুষের ভাগ্যোন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন, বলেন প্রধানমন্ত্রী।
বাড়িভাড়ার ক্ষেত্রে অতীতের অনিয়মকে দূর করাসহ বাংলাদেশ বিমানের বহরে নতুন ছয়টি উড়ো জাহাজ যোগ করে এবং সৌদি এয়ারলাইন্সের মাধ্যমে হজযাত্রী পরিবহনের উদ্যোগ গ্রহণ করায় তাদের সফর স্বস্তিদায়ক হবে বলেও প্রধানমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
‘এদেশে আওয়ামী লীগ সব সময় ইসলামের খেদমতে নিবেদিত,’ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে এদেশে ইসলামের প্রসারে গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন।
বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটলাইট মহাকাশে উৎক্ষেপণের ফলে সারাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনগণের দোড়গোঁড়ায় ইন্টারনেট সুবিধা পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তাঁর সরকারই প্রথম সরকারি পর্যায়ে আধুনিক তথ্য-প্রযুক্তি কাজে লাগিয়ে ডিজিটাইজেশনের মাধ্যমে আরবি, বাংলা ও ইংরেজি ভাষায় পবিত্র কুরআনের প্রচার ও প্রসারের ব্যবস্থা করেছে। মানবসম্পদ উন্নয়নে ধর্মীয় নেতৃবৃন্দকে সম্পৃক্ত করা হয়েছে, মসজিদের ইমামগণকে প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। কুরআনের শিক্ষা প্রচারের উদ্দেশ্যে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে মসজিদ ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রম বাস্তবায়ন চলছে। বর্তমানে এ প্রকল্পের বরাদ্দ ২২ শত ৭২ কোটি ৪ লক্ষ টাকায় উন্নীত হয়েছে বলেও জানান তিনি।
সারাদেশের সকল উপজেলা পর্যায়ে মডেল মসজিদ কাম ইলামিক সেন্টার নির্মাণে তাঁর সরকারের উদ্যোগ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় একটি করে মোট ৫৬০টি মডেল মসজিদ ও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কেন্দ্র নির্মাণের জন্য প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। প্রকল্পটির প্রাক্কলিত ব্যয় ৮৭২২ দশমিক ০৫ কোটি টাকা। ইতোমধ্যে মসজিদ কমপ্লেক্স নির্মাণে ৮০ শতাংশ জায়গাও নির্ধারণ করা হয়ে গেছে।’
তিনি বলেন, এসব মসজিদ নির্মিত হলে সেখানে নামাজ ছাড়াও ইসলামিক সাংস্কৃতিক কার্যক্রম, দ্বীনি দাওয়াতি কার্যক্রম, হেফজখানা, গবেষণা কক্ষ, লাইব্রেরী, হজ্জযাত্রীদের প্রশিক্ষণ ও লাশ গোসলের ব্যবস্থা থাকবে।

শেয়ার করুন
শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • সিলেটের বিচারিক কার্যক্রম দেখে প্রধান বিচারপতির সন্তোষ প্রকাশ
  • ওসমানী বিমানবন্দরে সাড়ে ৪ কেজি স্বর্ণ জব্দ ॥ এক ব্যক্তি আটক
  • নতুন প্রজন্মকে দেশ প্রেমের চেতনায় উজ্জীবিত হতে হবে ............নুমেরী জামান
  • দোয়ারাবাজারে পর্ণোগ্রাফি ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে আটক ৭
  • বিশ্বনাথে মৃত ব্যক্তির ওরুসের নামে আসামাজিক কর্মকান্ড পন্ড
  • চোরাচালান রোধসহ বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ
  • দন্ড স্থগিত, নওয়াজকে মুক্তির নির্দেশ
  • নির্বাচনে বিএনপি সহিংসতা করলে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে প্রতিহত করা হবে : কাদের
  • এই সরকারের একদিন বিচার হবে: ফখরুল
  • কতগুলো প্রতিষ্ঠান ও কবে এমপিওভুক্ত, নির্ভর করছে যাচাই-বাছাইয়ের ওপর: শিক্ষামন্ত্রী
  • হাতির আক্রমণে কুলাউড়া যুবদল নেতা শামিম নিহত
  • কালিঘাটে ব্যবসায়ীর জায়গা দখল চেষ্টার অভিযোগ
  • প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে যুগান্তকারী উন্নয়ন সাধিত হয়েছে -------এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ
  • ‘নিরীহ নেতাকর্মীদের উপর গায়েবী মামলার পরিণতি শুভ হবে না’
  • সিলেট বিভাগে মাঝারী ধরণের বৃষ্টি হতে পারে
  • মৌলভীবাজারে ডাকা আজকের হরতাল প্রত্যাহার
  • শাবির ব্যবসায় প্রশাসনের নতুন বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. মোছাদ্দেক
  • সহপাঠীর ছুরিকাঘাতে ব্লু বার্ড স্কুলের ছাত্র গুরুতর আহত
  • আড়াই লাখ বাংলাদেশি পাবেন পাকিস্তানের নাগরিকত্ব
  • রোহিঙ্গাভারে ‘মারাত্মক’ ঝুঁকিতে কক্সবাজারের পরিবেশ
  • Developed by: Sparkle IT