স্বাস্থ্য কুশল

এলোভেরা ও প্রপোলিস : দাঁতের যতেœ চমৎকার এক জুটি

কানিজ আমেনা প্রকাশিত হয়েছে: ১৬-০৭-২০১৮ ইং ০১:২৪:৪৬ | সংবাদটি ২০৪ বার পঠিত

দাঁতের যতেœ দৈনন্দিন ব্যবহার্য একটি প্রোডাক্ট হলো টুথপেস্ট বা টুথজেল। সাধারণত বাজারে যেসব টুথপেস্ট প্রচলিত তাতে বিভিন্ন ক্যামিকেলস্ ব্যবহার করা হয় বিশেষ করে ফ্লোরাইড। এই ফ্লোরাইডের কিছু উপকারিতা থাকলেও এর রয়েছে অজ¯্র পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ও দীর্ঘ মেয়াদী ক্ষতি। তাই প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি টুথপেস্ট ব্যবহার করাই দাঁতের জন্য নিরাপদ। বর্তমানে বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক গবেষণা থেকে প্রমাণিত হয়েছে যে, এলোভেরা ও প্রপোলিস এ দু’টি প্রাকৃতিক উপাদান দাঁতের যতেœ অত্যন্ত কার্যকরী, সুফলদায়ক এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ামুক্ত।
এলোভেরা বাংলায় একে বলা হয় ঘৃতকুমারী বা ঘৃতকাঞ্চন। আজকাল রূপ সচেতন মানুষ মাত্রই এলোভেরা সম্পর্কে জানেন ও রূপচর্চার কাজে ব্যবহার করে থাকেন। এ পর্যন্ত প্রায় ৩০০ প্রজাতির এলোভেরা আবিস্কার হয়েছে। এর মধ্যে সবচেয়ে উত্তম প্রজাতি হলো এলো বারবাডেনসিস মিলার। এলোভেরার রস স্বাস্থ্য সুরক্ষায় যেমন উপকারী, ত্বক সুন্দর রাখতে যেমন কার্যকরী, তেমনি দাঁতের যতেœও এটি সমানভাবে সুফলদায়ক। যেমনÑ এলোভেরার নির্যাস দাঁত ও মাড়ি পরিষ্কার রাখতে সক্ষম, দাঁত ও মাড়ির ক্ষয় বা ক্যাভিটি প্রতিরোধে কার্যকরী, দাঁতের ব্যাথা দূর করে, দাঁতের এনামেল লেয়ারের জন্য ব্লিচিং এজেন্ট হিসেবে কাজ করে অর্থাৎ দাঁতকে সাদা করে, মুখে ব্যাকটেরিয়া কর্তৃক সৃষ্ট রোগ ‘পেথোজেনিক ওরাল মাইক্রোফ্লোরা’ সারিয়ে তুলতে পারে ও প্রতিরোধ করতে পারে, জিনজিভাইটিস নামক দন্তরোগ প্রতিরোধে সক্ষম, দাঁতের যতেœ অত্যন্ত মোলায়েম একটি পদার্থ এলোভেরা এবং সেই সাথে যাদের স্পর্শকাতর বা সেনসিটিভ দাঁত রয়েছে তাদের জন্য খুন উপকারী হতে পারে এলোভেরা বা এলোভেরা নির্যাস থেকে তৈরি টুথজেল।
এবার আসি প্রপোলিস প্রসঙ্গে। মৌমাছি ও মৌচাকের সাথে রিলেটেড একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো প্রপোলিস। আমার জানি মৌচাক থেকে মধু ও মোম পাওয়া যায়। তবে মধু ও মোম ছাড়াও আরো একটি বস্তু যা পাওয়া যায় তা হলো প্রপোলিস। এটি এক ধরণের আঠালো পদার্থ। মৌমাছিরা গাছের মুকুল থেকে সংগৃহিত পলেন ও সেপ এর সাথে মোম, তাদের মুখনিঃসৃত লালা এবং শরীর থেকে নির্গত অন্যান্য নির্যাসের সাথে মিশ্রিত করে প্রপোলিস নামের এই পদার্থটি তৈরি করে থাকে। পরে বিপাক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মধুকোষকে আবৃত করা ও জীবাণুমুক্ত রাখার জন্যে এটি ব্যবহার করে। এটি এতোটাই কার্যকরী যে মধুকোষকে একটি অপারেশন থিয়েটার থেকেও বেশি নিরাপদ রাখে। দাঁতের যতেœ প্রপোলিসের সুফলগুলো হলোÑ
১) ক্যাভিটি ও প্লাকের বিরুদ্ধে কার্যকরী মৌমাছিরা তাদের মৌচাক নির্মাণের সময় একে ব্যাকটেরিয়া থেকে সুরক্ষিত এবং সেই সাথে তাদের ডিমগুলোকে নিরাপদে রাখার জন্যেও প্রপোলিস ব্যবহার করে থাকে। মানুষের মুখের ভেতরেও প্রপোলিস একই কাজ করতে পারে। প্রপোলিসযুক্ত টুথজেল নিয়মিত ব্যবহারে আপনি আপনার মুখ অর্থাৎ দাঁত ও মাড়ি রাখতে পারেন খারাপ ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ থেকে নিরাপদ এবং ক্যাভিটি ও প্লাকমুক্ত।
২) তরতাজা নিঃশ্বাস-আমাদের মুখে যেসব ব্যাকটেরিয়া থাকে তাদের কাজ হলো আমরা যেসব খাবার খাই সেগুলোকে ভেঙে ক্ষুদ্র খাদ্যকণায় পরিণত করা। বিশেষ করে যেসব খাবারে সালফার থাকে। যেমনÑ কাঁচা পেয়াজ। সে ধরণের খাবার খাওয়ার পর মুখে দুর্গন্ধ হয়। কারণ সেই খাবারগুলো ব্যাকটেরিয়া দ্বারা ভেঙে যেসব পার্টিকেলে পরিণত হয় তাতে সালফারের যৌগ থাকে। এছাড়াও মুখে খারাপ ব্যাকটেরিয়া তৈরি হলে তা থেকে নিঃশ্বাসে দুর্গন্ধের সমস্য হতে পারে। এর ফলে আমাদের অস্বস্তিকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয়। ফলে আত্মবিশ্বাস কমে যায়। সেক্ষেত্রে প্রপোলিসের নির্যাসযুক্ত টুথজেল দিতে পারে সহজ সমাধান। এটি নিয়মিত ব্যবহারে নিঃশ্বাস রাখবে ফ্রেশ ও তরতাজা অনুভূতিতে ভরপুর।
৩) ইনফেকশন প্রতিরোধÑপ্রাচীন সভ্যতার মানুষেরা তাদের ক্ষত বা ইনফেকশন সারাতে প্রপোলিস ব্যবহার করতো। আজকাল অনেক ডেন্টিস্টরাও রোগীর কোনো ডেন্টাল সার্জারি বা দাঁতের অপারেশনের পর সেখানে প্রপোলিস প্রয়োগ করে থাকেন যাতে সেই স্থান খারাপ ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ থেকে মুক্ত থাকে এবং সেখানে অপারেশন পরবর্তী কোনো ইনফেকশন দেখা না দেয়। অপারেশনের পর যে রিকভারি টাইম থাকে এর সময়সীমাও প্রপোলিস প্রয়োগের পর কমে আসে।
৪) সেনসিটিভ দাঁতের ক্ষেত্রেÑ যাদের সেনসিটিভ বা স্পর্শকাতর দাঁত ও মাড়ি রয়েছে অর্থাৎ সামান্যতেই দাঁতে ব্যাথা করে, শিরশির করে, মাড়ি থেকে রক্ত পড়ে, ঠা-া, গরম বা মিষ্টি জাতীয় খাবার খেতে সমস্যা হয় তাদের জন্য প্রপোলিস এক্সট্রাক্ট যুক্ত টুথজেল হতে পারে একটি ভালো অপশন। দাঁত ও মাড়ির সেনসিটিভিটি দূর করার ক্ষেত্রে এটি খুবই কার্যকরী।
৫) ডেনচার বা নকল দাঁতের জন্যেÑ প্রপোলিসের নির্যাস অথবা এর নির্যাসযুক্ত টুথজেল এমনকি নকল দাঁত বা ডেনচার এর জন্যেও ভালো। কারণ এতে আছে এন্টি ফাংগাল বৈশিষ্ট্য। এটি দাঁত ও মাড়ির উপর ফাংগাস আক্রমণ করা থেকে দাঁত ও মাড়িকে সুরক্ষিত রাখে। যারা ডেনচার বা দাঁতের প্লেট ব্যবহার করেন তাদের অনেক সময় ফাংগাসজনিত সমস্যা হয়ে থাকে। তাই নকল দাঁত বা ডেনচার ব্যবহারকারীরাও এটি নিশ্চিন্তে ব্যবহার করতে পারেন।
তাই বলা যায় এলোভেরা ও প্রপোলিস এ দু’টি প্রাকৃতিক উপাদান দাঁতের যতেœ চমৎকার এক জুটি। তাদের মধ্যে রয়েছে অপূর্ব এক মেলবন্ধন। এলোভেরা ও প্রপোলিসের নির্যাস আমরা সরাসরি দাঁতে প্রয়োগ করতে পারি অথবা ব্যবহার করতে পারি ভালো ব্রান্ডের কোনো টুথজেল যাতে মূল উপকরণ হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে এ দু’টি প্রাকৃতিক উপাদানের নির্যাস। ক্ষতিকর কেমিক্যালযুক্ত টুথপেস্টের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া থেকে আমরা আমাদের মূল্যবান অঙ্গ দাঁত ও মাড়িকে সুরক্ষিত রাখবো এই প্রত্যাশা।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT