স্বাস্থ্য কুশল

থাইরয়েড সমস্যা ও সমাধান

ঝরনা বেগম প্রকাশিত হয়েছে: ১৬-০৭-২০১৮ ইং ০১:২৬:১২ | সংবাদটি ১৪৯ বার পঠিত

আমাদের দেহযন্ত্রের কাজকর্মের গতির উপর সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলে থাইরয়েড হরমোন। দেহের বিপাককে নিয়ন্ত্রণ করা হলো থাইরয়েডের মূল কাজ। মানবদেহ পরিচালিত হয় বিভিন্ন হরমোন নিঃসরণের মাধ্যমে। সেই নিঃসরণের একটি মাত্রা রয়েছে। এটা কম-বেশি হয়ে পড়লে দেহ যন্ত্রের সহযোগী অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ ঠিকমতো কাজ করতে পারে না। কতো দ্রুত বা কতো শ্লথ গতিতে আমাদের শরীর অক্সিজেন গ্রহণ করবে, তৈরি করবে প্রোটিন এবং সাড়া দিবে অন্যান্য হরমোনের প্রতি থাইরয়েড তা নিয়ন্ত্রণ করে থাকে।
থাইরয়েডজনিত সমস্যায় ভুগছে বাংলাদেশের ৩০ শতাংশ মানুষ। সংখ্যায় যা দাঁড়ায় তা হলো প্রায় পাঁচ কোটি। এই তথ্য দিয়েছে বাংলাদেশ এন্ডোক্রাইন সোসাইটি (বিইএস)। কেবলমাত্র বাংলাদেশে নয়, সারা বিশ্বে থাইরয়েড সংক্রান্ত সমস্যায় ভুগছে প্রায় ৭৫ কোটি মানুষ। আর এজন্য ২০০৯ সাল থেকে বিশ্ব জুড়ে পালিত হয় থাইরয়েড দিবস। উন্নত বিশ্বের যে সাতটি মৌলিক অধিকার রয়েছে তার মধ্যে সাত নম্বর হলো থাইরয়েড হরমোন বিষয়ক তথ্য অধিকার।
থাইরয়েড হরমোন কম বা বেশি নিঃসৃত হয়েÑ উভয়ই রোগের সৃষ্টি করে। স্বাভাবিকের তুলনায় যখন কম হরমোন তৈরি হয়, তখন তাকে চিকিৎসা বিজ্ঞানের ভাষায় বলা হয়Ñহাইপাথাইরয়েডিজম। থাইরয়েড হরমোন কম নিঃসৃত হলে দেহের বিপাক শ্লথ হয়ে যায়। এর ফলে শরীরের ওজন বাড়ে। অনেক সময় শরীরে পানি জমে, খনিজ ও চর্বি জমে শরীর মোটা হয়ে যায়। যা দেখতে খারাপ লাগে। আর উপসর্গ হিসেবে দেখা দেয় কোষ্ঠ-কাঠিন্য, শ্লথ শরীর, শুষ্ক ত্বক, শুষ্ক চুল, পেশির খিঁচুনি ইত্যাদি। আবার থাইরয়েড অতি সক্রিয় হলে বিপাক দ্রুত গতির হয় বলে শরীরের ওজন কমে যায়। উপসর্গ হিসেবে দেখা দেয় দুশ্চিন্তা, বদমেজাজ, অতিরিক্ত ঘাম, হাত কাঁপা ইত্যাদি। তবে থাইরয়েড জনিত সমস্যা পুরুষের চেয়ে নারীদের বেশি দেখা যায়।
আমাদের দেশের বেশির ভাগ মানুষই থাইরয়েডজনিত সমস্যা সম্পর্কে খুব কম জানে। যার জন্য তাঁরা এ ব্যাপারে সচেতন নয়। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, বিয়ের পূর্বে কিংবা বিয়ের পর গর্ভধারণের আগে নারীদের অবশ্যই থাইরয়েড পরীক্ষা করে নেয়া উচিত। যদি এ রোগ থাকে তাহলে বাচ্চাও থাইরয়েডজনিত সমস্যায় ভুগতে পারে। আয়োডিনের অভাব দূর করার মাধ্যমে থাইরয়েড সমস্যা অনেক কমিয়ে আনা যায়। অপরদিকে ভেজাল খাদ্য এবং আর্সেনিকযুক্ত পানি থাইরয়েড সমস্যা আরো বাড়িয়ে দিতে পারে। এ ব্যাপারে অবশ্যই সচেতন থাকা জরুরি।

শেয়ার করুন
স্বাস্থ্য কুশল এর আরো সংবাদ
  • কম বয়সে হৃদরোগের ঝুঁকি
  • শিশুর কয়েকটি অসুখ ও পরামর্শ
  • হাড়ক্ষয় রোগ শনাক্ত ও চিকিৎসা
  • শীতে নাক কান গলার সমস্যা ও সমাধান
  •   নীরব ঘাতক রক্তচাপ
  • গর্ভাবস্থায় কী খাবেন
  •   মাতৃস্বাস্থ্য ও মাতৃমৃত্যু কিছু কথা
  • সচেতন হলেই প্রতিরোধ ৬০ শতাংশ কিডনী রোগ
  •   হৃদরোগীদের খাবার-দাবার
  • ঘামাচি থেকে মুক্তির উপায়
  • মুখে ঘা হলে করণীয়
  • পায়ের গোড়ালি ব্যথায় কী করবেন
  • নীরব রোগ হৃদরোগ
  • পরিচিত ভেষজের মাধ্যমে অর্শের চিকিৎসা
  • অনিদ্রার অন্যতম কারণ বিষন্নতা
  • রক্তশূন্যতায় করণীয়
  • চোখে যখন অ্যালার্জি
  • স্বাস্থ্যঝুঁকি থেকে বাঁচার ১০টি উপায়
  • রোগ প্রতিরোধে লেবু
  •  স্মৃতিশক্তি ও মস্তিষ্কের যত্ন নিন
  • Developed by: Sparkle IT