প্রথম পাতা

আদালতে স্বীকারোক্তি ওসমানীনগরে আপন তিন ভাই মিলে হত্যা করে সৌদি প্রবাসী পুলিশের তদন্তে চাঞ্চল্যকর তথ্য

স্টাফ রিপোর্টার প্রকাশিত হয়েছে: ১৭-০৭-২০১৮ ইং ০৩:৩০:০৪ | সংবাদটি ১০০ বার পঠিত

 ওসমানীনগরে তিন ভাই মিলে অপর আপন ভাই সৌদি আরব প্রবাসী মাসুক মিয়াকে হত্যা করেছে। এ বিষয়ে তারা আদালতে স্বীকারোক্তিও দিয়েছে। এই ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় চলছে। তারা ভাইকে হত্যা করে ক্ষান্ত হয়নি, ঘটনা ধামাচাপা দিতে হত্যাকারী একজন বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করে। সিলেট জেলা পুলিশের তদন্তে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে এসেছে। উদঘাটিত হয়েছে আলোচিত এ হত্যাকান্ডের রহস্য।
সিলেট জেলা পুলিশের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। গত ১৩ জুন ওসমানী নগরের গ্রামতলা-দাসপাড়া এলাকা থেকে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তির ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করে। পরে স্থানীয়রা সনাক্ত করেন লাশটি ওসমানীনগর থানার ফতেপুর গুপ্তপাড়া গ্রামের মৃত মদরিছ আলীর পুত্র শেখ মাসুক মিয়ার (৪৫)। এ ঘটনায় পরদিন মাসুক মিয়ার ভাই আলফু মিয়া বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
ঘটনার পর থেকে নিহত মাসুক মিয়ার ভাইদের সন্দেহ হচ্ছিলো পুলিশের। তারা তদন্তে নামে। প্রযুক্তিগত সহায়তার মাধ্যমে নিশ্চিত হয় হত্যাকান্ডটি তিন ভাই মিলে করেছে। এর সাথে স্বয়ং মামলার বাদী জড়িত। পরে এই তিন ভাইকে আটক করে পুলিশ। এরা হচ্ছে -মামলার বাদী শেখ মো: আলফু মিয়া (৩৫), অপর সহোদর শেখ মো: পংকি মিয়া (৩৭) ও শেখ মো: তোতা মিয়া (৫০)। গত রোববার তারা এ ঘটনায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। জবানবন্দী গ্রহণের পর তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।
জবানবন্দীতে তারা জানায়, ভাইকে পূর্ব পরিকল্পনা মাফিক নৃশংসভাবে হত্যা করে নিজেদের হত্যার ঘটনা হতে আড়াল করার জন্য নিজেরা অভিনয় করে। এরপর নিজেদের একজনই বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করে।
জবানবন্দীতে আসামীরা জানায়, ভিকটিম মাসুক মিয়া দীর্ঘ প্রায় ১৬ বছর সৌদি আরবে ছিলেন। ফলে তিনি পরিবারের সব খরচ বহন করতেন। প্রবাসে থাকা অবস্থায় যত টাকা রুজি হত সব বাড়িতে পাঠিয়ে দিতেন। এই টাকায় ভাইয়েরা ৭৯ শতাংশ জমি ক্রয় করেন।
মাসুক মিয়া ২ বছর আগে দেশে এসে বিয়ে করেন। দেশে এসে জানতে পারেন তার ভাইয়েরা তাকে না জানিয়ে জমিটি বিক্রি করে ফেলেছে। এতে করে মাসুক মিয়া প্রচন্ড রাগান্বিত হয়ে পরিবারের খরচ বহন করা বন্ধ করে দেয়। সে আর বিদেশে যাবে না বলে পাসপোর্ট ছিঁড়ে ফেলে। জায়গা বিক্রয় করার কারণে মৃত মাসুক মিয়া ভাইদের বিরুদ্ধে দেওয়ানী আদালতে মামলা করেন। মামলার রায় হলে আইনগতভাবে সম্পূর্ণ জমি সে নিজেই পাবে এমন ধারণা থেকে মাসুক মিয়াকে হত্যার পরিকল্পনা করে অপর তিন ভাই। পরে তারা হত্যা করে ফেলে আসে। তবে পুলিশের তৎপরতায় উদঘাটিত হয় আলোচিত এ হত্যাকান্ডের রহস্য।
অন্যদিকে আপন ভাইকে হত্যা করার এমন নৃশংস কর্মকান্ডে পুরো উপজেলা জুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। নিন্দার ঝড় উঠছে সর্বত্র। বিভিন্ন মহল থেকে এর নিন্দা প্রকাশ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • মন্ত্রীসভা ছোট না করার ইঙ্গিত প্রধানমন্ত্রীর
  • ব্যারিস্টার মইনুল গ্রেফতার
  • রাষ্ট্রীয় পদ পাওয়ার ইচ্ছা নেই, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনই লক্ষ্য
  • অবাধ, বিশ্বাসযোগ্য ও অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের বার্তা দিয়েছি
  • শেখ হাসিনার নির্দেশে দেশে এসে কাজ করছি
  • দুই মাসের মধ্যে স্বাস্থ্য পরীক্ষার মূল্যতালিকা নির্ধারণের নির্দেশ
  • সরকারি চাকরি আইন সংবিধানপরিপন্থী: টিআইবি
  • সাঈদা মুনা তাসনিম যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশের নতুন হাই কমিশনার
  • প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে হর্ষ বর্ধণ শ্রীংলার সৌজন্য সাক্ষাৎ
  • দেশে রাজনৈতিক স্বাধীনতা আছে নতুন জোটকে স্বাগত জানাই
  • কলেজের শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ ও পারিপার্শ্বিক অবস্থা দেখে সন্তোষ প্রকাশ
  • রেজিস্ট্রারী মাঠে মঞ্চ নির্মাণ কাজ শুরু , আজ আনুষ্ঠানিক প্রচারণা
  • ভরাট ও সংকোচনে মৃতপ্রায় কমলগঞ্জের ‘দেওছড়া’ উপজেলা মৎস্য অফিসের মতবিনিময়
  •   সরকারি কর্মচারী গ্রেপ্তারে অনুমতি লাগবে
  • কামালকে নিয়ে সংসদে আলোচনা চান এমপিরা
  • প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন আজ
  • ওসমানীনগরে শাহ আজিজুর রহমান স্মরণে শোক সভা
  •   ওসমানীনগরে ডাকাত গ্রেফতার
  • রাজনৈতিক প্রতিহিংসায় সরকার খালেদা জিয়াকে জেলে আটকে রেখেছে
  • সিলেট সাব রেজিস্ট্রি অফিসে দলিল জালিয়াতি লিখিত বরখাস্ত নকলনবিশ মাহমুদ ও উমেদার নাহিদসহ ৪ জন
  • Developed by: Sparkle IT