প্রথম পাতা

আদালতে স্বীকারোক্তি ওসমানীনগরে আপন তিন ভাই মিলে হত্যা করে সৌদি প্রবাসী পুলিশের তদন্তে চাঞ্চল্যকর তথ্য

স্টাফ রিপোর্টার প্রকাশিত হয়েছে: ১৭-০৭-২০১৮ ইং ০৩:৩০:০৪ | সংবাদটি ১৭১ বার পঠিত

 ওসমানীনগরে তিন ভাই মিলে অপর আপন ভাই সৌদি আরব প্রবাসী মাসুক মিয়াকে হত্যা করেছে। এ বিষয়ে তারা আদালতে স্বীকারোক্তিও দিয়েছে। এই ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় চলছে। তারা ভাইকে হত্যা করে ক্ষান্ত হয়নি, ঘটনা ধামাচাপা দিতে হত্যাকারী একজন বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করে। সিলেট জেলা পুলিশের তদন্তে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে এসেছে। উদঘাটিত হয়েছে আলোচিত এ হত্যাকান্ডের রহস্য।
সিলেট জেলা পুলিশের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। গত ১৩ জুন ওসমানী নগরের গ্রামতলা-দাসপাড়া এলাকা থেকে অজ্ঞাতনামা এক ব্যক্তির ক্ষত-বিক্ষত লাশ উদ্ধার করে। পরে স্থানীয়রা সনাক্ত করেন লাশটি ওসমানীনগর থানার ফতেপুর গুপ্তপাড়া গ্রামের মৃত মদরিছ আলীর পুত্র শেখ মাসুক মিয়ার (৪৫)। এ ঘটনায় পরদিন মাসুক মিয়ার ভাই আলফু মিয়া বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা আসামীদের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।
ঘটনার পর থেকে নিহত মাসুক মিয়ার ভাইদের সন্দেহ হচ্ছিলো পুলিশের। তারা তদন্তে নামে। প্রযুক্তিগত সহায়তার মাধ্যমে নিশ্চিত হয় হত্যাকান্ডটি তিন ভাই মিলে করেছে। এর সাথে স্বয়ং মামলার বাদী জড়িত। পরে এই তিন ভাইকে আটক করে পুলিশ। এরা হচ্ছে -মামলার বাদী শেখ মো: আলফু মিয়া (৩৫), অপর সহোদর শেখ মো: পংকি মিয়া (৩৭) ও শেখ মো: তোতা মিয়া (৫০)। গত রোববার তারা এ ঘটনায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দেয়। জবানবন্দী গ্রহণের পর তাদেরকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।
জবানবন্দীতে তারা জানায়, ভাইকে পূর্ব পরিকল্পনা মাফিক নৃশংসভাবে হত্যা করে নিজেদের হত্যার ঘটনা হতে আড়াল করার জন্য নিজেরা অভিনয় করে। এরপর নিজেদের একজনই বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করে।
জবানবন্দীতে আসামীরা জানায়, ভিকটিম মাসুক মিয়া দীর্ঘ প্রায় ১৬ বছর সৌদি আরবে ছিলেন। ফলে তিনি পরিবারের সব খরচ বহন করতেন। প্রবাসে থাকা অবস্থায় যত টাকা রুজি হত সব বাড়িতে পাঠিয়ে দিতেন। এই টাকায় ভাইয়েরা ৭৯ শতাংশ জমি ক্রয় করেন।
মাসুক মিয়া ২ বছর আগে দেশে এসে বিয়ে করেন। দেশে এসে জানতে পারেন তার ভাইয়েরা তাকে না জানিয়ে জমিটি বিক্রি করে ফেলেছে। এতে করে মাসুক মিয়া প্রচন্ড রাগান্বিত হয়ে পরিবারের খরচ বহন করা বন্ধ করে দেয়। সে আর বিদেশে যাবে না বলে পাসপোর্ট ছিঁড়ে ফেলে। জায়গা বিক্রয় করার কারণে মৃত মাসুক মিয়া ভাইদের বিরুদ্ধে দেওয়ানী আদালতে মামলা করেন। মামলার রায় হলে আইনগতভাবে সম্পূর্ণ জমি সে নিজেই পাবে এমন ধারণা থেকে মাসুক মিয়াকে হত্যার পরিকল্পনা করে অপর তিন ভাই। পরে তারা হত্যা করে ফেলে আসে। তবে পুলিশের তৎপরতায় উদঘাটিত হয় আলোচিত এ হত্যাকান্ডের রহস্য।
অন্যদিকে আপন ভাইকে হত্যা করার এমন নৃশংস কর্মকান্ডে পুরো উপজেলা জুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। নিন্দার ঝড় উঠছে সর্বত্র। বিভিন্ন মহল থেকে এর নিন্দা প্রকাশ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • সোনার বাংলা গড়ার জন্য সোনার মানুষ তৈরী করতে হবে
  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভিপি নূরকে অনুষ্ঠানে যেতে বাধা-
  • রমজানুল মোবারক আস-সালাম
  • মাধবপুর ও শ্রীমঙ্গলে সড়কে প্রাণ গেলো ৪ জনের
  • সিলেটে জাতীয় কবির জন্মবার্ষিকী পালিত
  • সরকারের ভ্রান্ত নীতিতে কৃষকরা সঙ্কটে: ফখরুল
  • স্কুল জীবন থেকেই ট্রাফিক আইন সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দরকার : প্রধানমন্ত্রী
  • ভারতে এবার সরকার গঠনের পালা
  •   খালেদা জিয়াকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়া হচ্ছে
  •   সরকার এতো অমানবিক নয়
  • মোদীকে শেখ হাসিনার ফোনে দু’দেশের সম্পর্কে অত্যন্ত আন্তরিকতার প্রতিফলন ঘটেছে
  • ভারতের গুজরাটে কোচিং সেন্টারে আগুন: নিহত ১৯
  • হবিগঞ্জে তিনজনের মৃত্যু, আহত ২
  • বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক আরো জোরদার হবে : পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  • উন্নয়নে বৈষম্য নয়, সমতা চাই
  • জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২০তম জন্মবার্ষিকী আজ
  • ফেঞ্চুগঞ্জের বিল্লাল ও মাহফুজ দেশে ফিরেছেন
  • লিবিয়ার সাগর তীরের ‘গেম ঘর’-এ এখনো বন্দি ৫০ সিলেটী তরুণ !
  • রমজানুল মোবারক আস-সালাম
  • কাউন্ট ডাউন, আর ৬ দিন বাকি
  • Developed by: Sparkle IT