স্বাস্থ্য কুশল

স্বাধীনচেতা ইবনে সিনা : চিকিৎসা বিজ্ঞানের বিস্ময়

রফিকুর রহমান লজু প্রকাশিত হয়েছে: ৩০-০৭-২০১৮ ইং ০০:৩৮:২২ | সংবাদটি ৯৫ বার পঠিত

ইতিহাসের অন্যতম সেরা চিকিৎসা বিজ্ঞানী ইবনে সিনা স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়ন বা জ্ঞান লাভের সুযোগ পাননি। তবুও গণিতশাস্ত্র, জ্যোতির্বিজ্ঞান ও দর্শণশাস্ত্রেও তিনি অন্যতম সেরা প-িত ও জ্ঞানী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত ছিলেন। অসাধারণ মেধা ও অত্যন্ত গুণী ব্যক্তি হিসেবে তিনি পরিচিত ছিলেন। তিনি ইবনে সিনা নামে বহুল পরিচিত হলেও তার আসল ও পুরো নাম আবু আলী হোসাইন ইবনে আব্দুল্লাহ্্ আল হাসান ইবনে আলী ইবনে সিনা। মাত্র দশ বছর বয়সে মহাগ্রন্থ আল কোরআন হিফ্্জ করে তিনি সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়ে ছিলেন। তিনজন জ্ঞানী গৃহশিক্ষকের কাছে ইবনে সিনা বিভিন্ন বিষয়ে শিক্ষা গ্রহণ করেন। এই তিনজন শিক্ষকের মধ্যে ইসমাইল সুফি তাকে ধর্মতত্ত্ব ফিকাহ শাস্ত্র আর তাফসির শিক্ষা দিতেন। গণিতশাস্ত্র শিক্ষা দিতেন মাহমুদ মসসাহ। বিখ্যাত দার্শনিক আল না তেলি শিক্ষা দিতেন দর্শণশাস্ত্র, ন্যায়শাস্ত্র, জ্যামিতি প্রভৃতি। ব্যতিক্রমী মেধাবী ও জ্ঞান পিপাসু হওয়ায় অল্প বয়সেই তিনি প্রভূত জ্ঞান আহরণ করেন। এ সময়কালে চিকিৎসাশাস্ত্র সম্বন্ধে ইবনে সিনার মৌলিক জ্ঞানের বিকাশ ঘটে। তিনি চিকিৎসা বিদ্যা সম্পর্কিত গ্রন্থাদি সংগ্রহ করে পড়ালেখা ও গবেষণা করতে মনোনিবেশ করেন। ইবনে সিনা জ্ঞান সাধনায় এমনভাবে ডুবেছিলেন যে, এমন বহু দিনরাত অতিবাহিত হয়েছে যে সময়ে তিনি মুহূর্তের জন্যেও নিদ্রা যাননি। এভাবে ক্লান্তিতে যখন ঘুমিয়ে পড়তেন তখন অমীমাংসিত প্রশ্নগুলোর সমাধান স্বপ্নের মধ্যে পেয়ে যেতেন। এ সময় তার জীবনে একটি ঘটনা তার পড়াশোনা ও আরো জ্ঞান লাভের সুযোগ করে দেয়। বোখারার বাদশাহ নূহ বিন মনসুর এ সময় কঠিন এক রোগে কাহিল হয়ে পড়েন। ইবনে সিনা তার চিকিৎসা মৃত্যু পথযাত্রী বাদশাহকে সারিয়ে তুলেন। সুস্থ হয়ে বাদশাহ্্ ইবনে সিনাকে পুরস্কৃত করতে ঘোষণা দেন। ইবনে সিনা ধন-দৌলত নয়-এমন এক ব্যতিক্রমী পুরস্কার চাইলেন যা তার জ্ঞান পিপাসা মিটাতে সহায়ক হবে। ইবনে সিনা পুরস্কার হিসেবে বাদশাহ’র শাহী গ্রন্থাগারে প্রবেশ ও পড়াশোনার অনুমতি প্রার্থনা করলেন। বাদশাহ তার প্রার্থনা মঞ্জুর করেন। ইবনে সিনা যেন আকাশ হাতে পেলেন। তিনি অল্প দিনের মধ্যেই সব পুস্তক পড়ে ফেলেন এবং সবগুলো বই মুখস্থ করে নেন। এভাবে তিনি বিভিন্ন বিষয়ে অসীম জ্ঞানে সমৃদ্ধ হন। তার বয়স যখন ২১ বছর তখন তিনি ‘আল মজমুয়া’ নামে একখানি বিশ্বকোষ রচনা করতে সক্ষম হন। বিশ্বকোষে তিনি গণিতশাস্ত্র ছাড়া সব বিষয় অন্তর্ভুক্ত করেন। গজলির বাদশা সুলতান মাহমুদ মনি-মুক্তা উপঢৌকন দিয়ে গুণী-জ্ঞানীদের ডেকে এনে তার শাহী দরবারের গৌরব-মর্যাদা বৃদ্ধি করতেন। তিনি ইবনে সিনাকেও তার দরবারে পেতে চাইলেন। কিন্তু তিনি তো অন্যরকম মানুষ। তিনি দ্রুত সরে পড়েন এবং ইরানের হামাদান শহরে পাড়ি জমান। ঘটনাক্রমে এসময় হামাদানের সুলতান অসুস্থ হয়ে পড়েন। ইবনে সিনার চিকিৎসায় সুলতান অসুখ থেকে মুক্তি পান। সুলতান তার বদলে ইবনে সিনাকে তার রাজ্যের প্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করেন। এতে তার জীবনে বিপর্যয়ের সৃষ্টি হয়। হামাদানের সেনাবাহিনীর প্রধান তাকে গ্রেফতারের জন্য স¤্রাটের উপর চাপ দেন। তিনি ইবনে সিনাকে নির্বাসন দন্ড দিয়ে কারাবন্দী করে রাখেন। এখানে অবস্থানকালে ইবনে সিনা আরেকখানি গ্রন্থ ‘কিতাব আল ইশরাৎ’ রচনা করেন। জীবনের শেষ দিকে ইবনে সিনা খোরাসান থেকে ইরানের হামাদান শহরে চলে যান। হামাদানের স¤্রাট ইবনে সিনাকে সম্মানে বরণ করেন। তিনি নিজেও হামাদানে থাকতে প্রশান্তি খুঁজে পান। এখানে তিনি দর্শন বিষয়ে তার গ্রন্থ ‘কিতাব আল শিফা’ রচনা করেন। চিকিৎসা বিজ্ঞান বিষয়ে তার অমর গ্রন্থ ‘কানুন ফিত-থিব’ রচনা করেন রাজধানী শহর গুরুগঞ্জে অবস্থানকালে।
এক সময় ইসপাহানে অবস্থানকালে ইসপাহানের স¤্রাট ইবনে সিনার প্রিয় শহর হামাদানের বিরুদ্ধে যুদ্ধের প্রস্তুতি নেন। স¤্রাট ইবনে সিনাকে সঙ্গে নিতে চান। নিজে অসুস্থ থাকা সত্বেও তিনি স¤্রাটের অনুরোধ উপেক্ষা করতে পারেননি। অথচ প্রিয় শহর হামাদানের সঙ্গে তার কত মধুর স্মৃতি জড়িত। হামাদানে পৌছেই তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। হামাদানের যুদ্ধ শিবিরেই তিনি ১০৩৭ খ্রিস্টাব্দে মাত্র ৫৭ বছর বয়সে ইন্তেকাল করেন। ইবনে সিনা একজন অসামান্য মেধাবী ও জ্ঞানী পন্ডিত ছিলেন। ১৯ বছর বয়সে তিনি বিজ্ঞান, দর্শন, ইতিহাস, অর্থনীতি, রাজনীতি, গণিত, জ্যামিতি, ন্যায়শাস্ত্র, ধর্মতত্ত্ব, চিকিৎসা বিজ্ঞান, কাব্য-সাহিত্য প্রভৃতি বিষয়ে অসামান্য পান্ডিত্ব অর্জন করেন। ইবনে সিনা বিভিন্ন বিষয়ে একশ’রও বেশি বই লিখেছেন। এসবের মধ্যে ‘কানুন ফিত-থিব’ বইটি চিকিৎসা বিজ্ঞানে খুব নামকরা বই। বইটি ইংরেজি, ল্যাটিন, হিব্রু প্রভৃতি ভাষায় অনুদিত হয় এবং ইউরোপের মেডিকেল স্কুলগুলোর পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভূক্ত করা হয়। আল কানুন গ্রন্থটি পাঁচটি বিশাল খন্ডে বিভক্ত এবং পৃষ্ঠা সংখ্যা চার লক্ষাধিক। পাঁচ খন্ডের বিশাল এই বইয়ে শতাধিক জটিল রোগের কারণ, লক্ষণ ও পথ্যাদির বিস্তারিত ব্যাখ্যা দেওয়া হয়। যক্ষ্মা একটি ছোয়াচে রোগ-ইবনে সিনা’ই প্রথম এটা শনাক্ত করেন। পরবর্তীকালে আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানিও যক্ষ্মাকে একটি ছোঁয়াচে রোগ হিসেবে শনাক্ত করে। তাই বলা হয়ে থাকে আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞান ইবনে সিনার হাত ধরেই ক্রমে ক্রমে উন্নতির শিখরে আরোহণ করেছে।
ইবনে সিনা একজন স্বাধীনচেতা মানুষ ছিলেন। তিনি কারো দয়া বা অনুগ্রহ কিংবা জোর খাটানো একেবারে পছন্দ করতেন না। ইবনে সিনার তখন তরুণ বয়স। এ সময় সুলতান মাহমুদ কঠিন রোগে আক্রান্ত হন। ইবনে সিনা নিজ থেকে রাজদরবারে গিয়ে তার চিকিৎসা করতে চাইলেন। অনুমতি পেয়ে তিনি চিকিৎসা করলেন এবং সুলতান মাহমুদ পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠলেন। এক মিথ্যা অভিযোগে তিনি এখানে থাকতে পারলেন না। সুলতান তাকে বিদেয় করে দেন। ইবনে সিনা বোখারা পরিত্যাগ করে খোয়ারিজমে চলে যান। তিনি ভাগ্যবান, খোয়ারিজমের সুলতান তাকে রাজচিকিৎসক হিসেবে সম্মানিত করেন। এক পর্যায়ে সুলতান মাহমুদ খোয়ারিজমের সুলতানের কাছে দাবি জানান ইবনে সিনাকে তার দরবারে পাঠাতে। খোয়ারিজমের সুলতান বড় ক্ষমতার অধিকারী ছিলেন না। তিনি অনিচ্ছা সত্বেও ইবনে সিনাকে সুলতান মাহমুদের দরবারে পাঠাতে রাজি হন। স্বাধীনচেতা ইবনে সিনা সুকৌশলে সেখান থেকে পালিয়ে যান।
ইতিহাসের অত্যন্ত গুণী ব্যক্তিত্ব ও অসাধারণ মেধার অধিকারী ইবনে সিনাকে নিয়ে সে যুগে ইরান, তুরস্ক, আফগানিস্তান, রাশিয়াসহ বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞজনেরা গর্ববোধ করতেন এবং ইবনে সিনাকে তাদের ‘জাতীয় জ্ঞানবীর’ হিসেবে মনে করতেন।
সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন ॥ শুক্রবারের রকমারি॥ ৪ মে, ২০১৮ইং।

শেয়ার করুন
স্বাস্থ্য কুশল এর আরো সংবাদ
  •  স্মৃতিশক্তি ও মস্তিষ্কের যত্ন নিন
  • শিশুর উচ্চতা কমবেশি কেন হয়
  • গরমে পানি খাবেন কতটুকু ডা. তানজিয়া নাহার তিনা
  • অধূমপায়ীদের কি ফুসফুসের রোগ হয়?
  • বিষন্নতা একটি মানসিক রোগ
  • ঘাতক ব্যাধি এইডস : ঝুঁকির মুখে বাংলাদেশ
  • স্তন ক্যান্সারে আক্রান্ত হতে পারেন পুরুষও
  • মেপে খান মাংস
  •  গরমে ঘামাচি থেকে রক্ষা পেতে
  • পরিচিত ভেষজের মাধ্যমে ফোঁড়ার চিকিৎসা
  • স্বাস্থ্য ও সৌন্দর্য সুরক্ষায় এভোকেডো
  • কোন জ্বরে কী দাওয়াই
  • মায়ের দুধ পান : সুস্থ জীবনের বুনিয়াদ
  • রোগ প্রতিরোধে মিষ্টি কুমড়া
  • আমাশয় চিকিৎসায় পরিচিত ভেষজ
  • ভাইরাল হেপাটাইটিস
  • পাইলস কি কোনো গোপন রোগ
  • শিশুর খাবারে অরুচি ও প্রতিকার
  • স্বাধীনচেতা ইবনে সিনা : চিকিৎসা বিজ্ঞানের বিস্ময়
  • ধূমপান স্মার্টনেস নয় মৃত্যু ঘটায়
  • Developed by: Sparkle IT