শেষের পাতা লিডিং ইউনিভার্সিটিতে ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করতে হলে সোনার মানুষ গড়ে তুলতে হবে

স্টাফ রিপোর্টার প্রকাশিত হয়েছে: ১৬-০৮-২০১৮ ইং ০৩:৫৪:১৩ | সংবাদটি ১৬৪ বার পঠিত

 জাতীয় শোক দিবস ও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৩তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে লিডিং ইউনিভার্সিটিতে ‘বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্নকে বাস্তবায়িত করতে হলে তাঁর আদর্শকে ধারণ করে সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে। গড়ে তুলতে হবে সোনার মানুষ। দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ একঝাঁক প্রজন্ম গড়ে তুলতে হবে। দেশের উন্নয়নে সঠিক নেতৃত্ব সৃষ্টি করতে হবে।
গতকাল বুধবার সিলেটের প্রথম বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় লিডিং ইউনিভার্সিটির দক্ষিণ সুরমার রাগীবনগরস্থ ক্যাম্পাসে লিডিং ইউনিভার্সিটির বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান দানবীর ড. রাগীব আলী সকালে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে স্থাপিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।
বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় একাডেমিক ভবনের গ্যালারি-১ এ আলোচনা ও দোয়া মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন লিডিং ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. কামরুজ্জামান চৌধুরী।
আলোচনা সভায় বঙ্গবন্ধুর জীবনী-সাহিত্য, শিল্প, সৃজনশীলতা এবং ১৫ আগস্টের স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন লিডিং ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য আব্দুল হাই, ট্রাস্টি বোর্ডের সচিব মেজর শায়েখুল হক চৌধুরী (অব:), লিডিং ইউনিভার্সিটির ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডীন প্রফেসর মো. নজরুল ইসলাম, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. এস. এম. আলী আক্কাস, আধুনিক বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. এম. হাবিবুল আহসান, লিডিং ইউনিভার্সিটির ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর মো: রাশেদুল ইসলাম, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষক কাজী মো: জাহিদ হাসান, ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী নাহিয়ান আহমেদ মৌমি এবং কবিতা আবৃত্তি করেন ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের শিক্ষার্থী ফাহমিদ চৌধুরী।
ইউনিভার্সিটির ডেপুটি রেজিস্ট্রার (এডমিশন) মো: কাওসার হাওলাদারের উপস্থাপনায় সভার শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার মেজর (অব:) মো: শাহ আলম, পিএসসি। মোনাজাত পরিচালনা করেন ইসলামি স্টাডিজ বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান মো: ফজলে এলাহি মামুন।
অনুষ্ঠানে লিডিং ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের সদস্য মো: আব্দুল হান্নান, সৈয়দ সাজ্জাদ আলীসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষক, কর্মকর্তা, ছাত্র-ছাত্রী ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সভায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশগ্রহণকারী সকল মুক্তিযোদ্ধাকে স্মরণ করে বক্তারা আরো বলেন, বাংলাদেশ আজ উন্নতির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, আর এই উন্নতির রূপকার হলেন শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৭৫ সালের আগস্ট মাসের ১৫ তারিখে একদল বিপথগামী সামরিক অফিসারদের হাতে অত্যন্ত নির্মমভাবে প্রাণ দিতে হয়েছিল বাংলাদেশের অভ্যুদয়ের মহান নেতা, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তাঁর পরিবারবর্গকে। সভায় শ্রদ্ধাভরে সেই মহান নেতা এবং তাঁর পরিবারবর্গকে স্মরণ করা হয়।
সভায় বক্তারা বলেন, দানবীর ড. রাগীব আলী মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ে প্রবাসে মুক্তিযুদ্ধের তহবিল তৈরির জন্য অর্থ সংগ্রহ করেন।
লিডিং ইউনিভার্সিটির ট্রাস্টি বোর্ডের সচিব মেজর শায়েখুল হক চৌধুরী (অব:) বলেন, এই বাংলার জন্য বঙ্গবন্ধু তাঁর প্রাণ উৎসর্গ করে গেছেন। রাষ্ট্রপতি হওয়ার পর দেশ গঠনে মাত্র সাড়ে তিন বছর সময় পেয়েছিলেন। এই অল্প সময়ে তার অসামান্য ত্যাগ তিতীক্ষার ফসল আজকের বাংলাদেশ। শায়েখুল হক চৌধুরী বলেন, এই ৪৩ বছরে দেশ অনেক দূর এগিয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা না করা হলে দেশ আরো সমৃদ্ধির পানে এগিয়ে যেতো। তিনি নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনী পাঠ করার পরামর্শ দেন।
সভাপতির বক্তব্যে লিডিং ইউনিভার্সিটির উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. কামরুজ্জামান চৌধুরী বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। সাধারণ পরিবার থেকে বেড়ে উঠা বঙ্গবন্ধু ছাত্রজীবন থেকেই বঞ্চিত মানুষের জন্য কথা বলেছেন। বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক, মানবিক এবং আদর্শগত যে গুণাবলী রয়েছে তা বর্তমান প্রজন্মের জন্য অনুকরণীয়।
তিনি আরো বলেন, স্বাধীনতা বাঙালি জাতির সবচেয়ে বড় অর্জন। বঙ্গবন্ধু না থাকলেও সুযোগ্য উত্তরাধিকারী গণতন্ত্রের মানসকন্যা, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা রয়েছেন। তার সুদক্ষ দিক নির্দেশনায় বাংলাদেশ ও বাঙালি জাতি সম্ভাবনাময় আগামীর পথে এগিয়ে চলেছে। মহাকাশে আজ বাংলাদেশের স্যাটেলাইট দেখা যাচ্ছে। তারই নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ মধ্যম আয়ের দেশের দিকে উন্নীত হচ্ছে। বঙ্গবন্ধুকে জানার জন্য তিনি নতুন প্রজন্মের প্রতি আহবান জানান।
স্বাগত বক্তব্যে লিডিং ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার মেজর (অব:) মো: শাহ আলম, পিএসসি বলেন, বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত আত্মজীবনীসহ অন্যান্য বই পড়ে সঠিক রাজনীতির মাধ্যমে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে হবে। বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ভিশন-২১ এর মাধ্যমে জাতির পিতার সেই স্বপ্ন বাস্তবায়িত হচ্ছে এবং হবে।

 

শেয়ার করুন
শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে
  • শাবি’র প্রতিক্ষীত তৃতীয় সমাবর্তন ডিসেম্বরে
  • ‘আ.ফ.ম. কামাল কিংবদন্তীতুল্য ব্যক্তিত্ব’ -অধ্যাপক ডা. এম.এ. আহবাব
  • জাতীয় শোক দিবস পালনে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ
  • ডাক্তার ও জনগণের মধ্যে আস্থার সম্পর্ক তৈরি করতে হবে --------------------- অধ্যাপক মো. শহিদুল্লাহ
  • বানভাসি মানুষের সাহায্যে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে -----ইউএনও বিজেন ব্যানার্জী
  • সিলেট বৌদ্ধ বিহারে আষাঢ়ী পূর্ণিমা উদযাপন
  • শ্রীমঙ্গলে বনাঞ্চলে খাদ্য সংকটে লোকালয়ে অজগর
  • লিডিং ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী আবিরের মৃত্যুতে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত
  • আটক পুলিশ সদস্য ৫ দিনের রিমান্ডে
  • ভাঙ্গা হল ২টি কারখানা
  • সিলেটে নার্সিং কলেজ শিক্ষার্থীদের মিছিল সমাবেশ
  • পুলিশের মিজান, দুদকের বাছিরের বিরুদ্ধে মামলা
  • সিলেট থেকে এবার ৩টি হজ ফ্লাইট সৌদি যাবে
  • ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী দু’দিনের সফরে আজ সিলেট আসছেন
  • পানিসম্পদ উপমন্ত্রী দু’দিনের সফরে সিলেট আসছেন আজ
  • মানুষের পাশে মানুষ
  • কোরবানির আগে দেশে গবাদিপশু প্রবেশ নিষিদ্ধ করলো সরকার
  • ছবি
  • বন্যা কবলিত জেলার মানুষের জন্য ৩ কোটি টাকা বরাদ্দ
  • Developed by: Sparkle IT