প্রথম পাতা

পাস হল ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল

ডাক ডেস্ক প্রকাশিত হয়েছে: ২০-০৯-২০১৮ ইং ০২:২৮:২২ | সংবাদটি ১৩২ বার পঠিত

 তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ব্যাপক সমালোচিত ৫৭সহ কয়েকটি ধারা বাতিল করে নতুন ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল সংসদে পাস হয়েছে।
তবে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের বাতিল হওয়া ধারাগুলো নতুন আইনের বিভিন্ন ধারায় রয়ে গেছে বলে তা নিয়ে উদ্বেগ রয়ে গেছে আগের মতোই।
প্রস্তাবিত আইনটিকে ‘স্বাধীন সাংবাদিকতা ও গণতন্ত্রের জন্য হুমকি’ হিসেবে চিহ্নিত করে তা পাস না করতে এক সপ্তাহ আগেও আহ্বান জানিয়েছিল সম্পাদক পরিষদ।
এর মধ্যেই গতকাল বুধবার সংসদে ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার বিলটি পাসের প্রস্তাব করেন। এটি কণ্ঠভোটে পাস হয়।
এর আগে বিলের উপর দেওয়া জনমত যাচাই, বাছাই কমিটিতে পাঠানো এবং সংশোধনী প্রস্তাবগুলোর নিষ্পত্তি করা হয়।
গত ২৯ জানুয়ারি ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন-২০১৮’ এর খসড়া চূড়ান্ত অনুমোদন দেয় মন্ত্রিসভা। এরপর গত ৯ এপ্রিল তা সংসদে উত্থাপন করেন মন্ত্রী মোস্তফা জব্বার।
আইনটি মন্ত্রিসভায় ওঠার পর থেকেই এর বিভিন্ন ধারা নিয়ে সমালোচনা করে আসছে গণমাধ্যম সংশ্লিষ্টরা। তাদের দাবি, এই আইনের ফলে ‘স্বাধীন’ সাংবাদিকতা বাধাগ্রস্ত হবে।
খসড়া আইনটি সংসদে তোলার পর তা পরীক্ষা করে প্রতিবেদন দিতে সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়। সংসদীয় কমিটিকে প্রথমে চার সপ্তাহ দেওয়া হলেও পরে দুই দফায় তিন মাস সময় বাড়িয়ে নেয় তারা। তবে শেষ দফায় এক মাস সময় নিলেও একদিনের মধ্যে দিন পরেই বৈঠক করে প্রতিবেদন চূড়ান্ত করে সংসদীয় কমিটি।
গত ১৭ সেপ্টেম্বর বিলটি পরীক্ষা করে চূড়ান্ত প্রতিবেদন দেয় সংসদীয় কমিটি। সংসদীয় কমিটির সুপারিশ অনুযায়ীই বিলটি সংসদে পাস হয়েছে।
প্রতিবেদন চূড়ান্ত করার আগে দুই দফায় সম্পাদক পরিষদ, টেলিভিশন মালিকদের সংগঠন অ্যাটকো, ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সঙ্গে বৈঠক করে সংসদীয় কমিটি; তবে তাতেও উদ্বেগ প্রশমিত হয়নি।
সংসদীয় কমিটি প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান করে সম্পাদক পরিষদ এক বিবৃতিতে বলে, “এই আইন স্বাধীন সাংবাদিকতা ও বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করবে।”
সংসদীয় কমিটির বৈঠকে সম্পাদক পরিষদ খসড়া আইনের ৮, ২১, ২৫, ২৮, ২৯, ৩১, ৩২, ৪৩ ধারার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আপত্তি জানিয়েছিল।
২০০৬ সালের তথ্যও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারা নিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনা ছিল। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন প্রণয়নের সময় থেকে সরকার তরফ থেকে বলা হয়েছিল ওই আইনের ৫৭ ধারা বাতিল করে নতুন আইনে বিষয়গুলো স্পষ্ট করা হবে।

 

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • তাহিরপুরে হাওরের বাঁধের কাজ দেখে ক্ষুব্ধ পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী
  • প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় ৪৯ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন
  • ৩০ ডিসেম্বর ইসির ইমামতিতে গণতন্ত্রের কবর রচনা হয়েছে: ডা. জাফরুল্লাহ
  • জামায়াত আগে ক্ষমা চাক, তারপর দেখা যাবে: কাদের
  • জামায়াত থেকে ব্যারিস্টার রাজ্জাকের পদত্যাগ
  • দেশের সব হাসপাতালে বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি খতিয়ে দেখা হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী
  • অমর ২১ শে
  • বঙ্গবীর জেনারেল ওসমানীর মৃত্যুবার্ষিকী আজ
  • বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষ উদযাপনে ১০২সদস্যের জাতীয় কমিটি গঠন
  • কবি আল মাহমুদ আর নেই
  • সরকার শিশুদের সুযোগ্য নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ করছে
  • পরিমাপ অনুযায়ী বাঁধের কাজ না হলে কোন টাকা ছাড় নয়
  • ভুয়া ফেইসবুক আইডি ব্যবহার থেকে বিরত থাকার আহবান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর
  • ইলিয়াস আলীর স্ত্রী হাসপাতালে
  • বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে লাখো মুসল্লির জুম্মার নামাজ আদায়
  • বড় সংকটগুলোতে ডব্লিউএইচও প্রায়ই ভুল পদক্ষেপ নেয়: প্রধানমন্ত্রী
  • সিলেট শিক্ষাবোর্ডে এসএসসি’র গতকালের পরীক্ষায় অনুপস্থিত ৩৫০ শিক্ষার্থী
  • ‘আ’লীগের সম্মেলন অক্টোবরে’
  • এ কার্যক্রম যুবসমাজকে তাদের ভবিষ্যৎ নেতৃত্ব ও কাজের সঠিক দিকনির্দেশনা দিবে
  • ওসমানীনগরে প্রাইভেটকারের ধাক্কায় প্রাণ গেলো মাদ্রাসা অধ্যক্ষের
  • Developed by: Sparkle IT