সম্পাদকীয়

বিদ্যুৎ লাইন সম্প্রসারণ

প্রকাশিত হয়েছে: ২৯-০৯-২০১৮ ইং ০০:১৮:৪৩ | সংবাদটি ৯৬ বার পঠিত

দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন বাড়লেও মানুষ নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ পাচ্ছে না। পরিসংখ্যানে হয়তো চাহিদার সঙ্গে উৎপাদনের ঘাটতি নেই, কিন্তু প্রতিদিনই শহর-গ্রাম সর্বত্র নির্দিষ্ট একটা সময় বিদ্যুৎ বিহীন থাকতে হচ্ছে মানুষকে। এক্ষেত্রে সিলেট নগরবাসী একটু বেশী অতিষ্ট এমনটিই বলা যায়। প্রায় প্রতিদিন কোথাও না কোথাও বিদ্যুৎ লাইন বন্ধ করে সংস্কার কাজ করা হচ্ছে। এই কাজে কখনও সারা দিনই চলে যাচ্ছে। অনেক সময় সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসীকে না জানিয়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ করে সংস্কার কাজ করা হয়। এতে দুর্ভোগ হয় মানুষের। বিদ্যুৎ সরবরাহ লাইন দুর্বল থাকায় এমন ঘটনা ঘটছে। জানা গেছে, বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বাড়েনি সঞ্চালন লাইনের সক্ষমতা। বিদ্যুৎ উৎপাদনের মেগা প্রকল্পের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে সম্পন্ন হয়নি সঞ্চালন প্রকল্প। সঞ্চালন দুর্বলতার কারণে দেশের অনেক স্থানে বিশেষত গ্রামীণ এলাকায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়া যাচ্ছে না। এই প্রেক্ষাপটে এবার সঞ্চালন লাইন সম্প্রসারণ ও সক্ষমতা বাড়াতে নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সরকার।
একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত খবরে জানা যায় গত এক দশকে দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা বেড়েছে প্রায় চারগুণ। বিদ্যুতের সেবাপ্রাপ্ত জনগোষ্ঠীর সংখ্যাও বেড়েছে দ্বিগুন। কিন্তু সেই তুলনায় সঞ্চালন ব্যবস্থার উন্নয়ন হয়েছে মাত্র দেড় শতাংশ। উৎপাদন ও সঞ্চালনে এই বৈষম্য থাকায় ঝুকি বাড়ছে বিদ্যুৎ সরবরাহে। বেড়ে গেছে বিদ্যুৎ বিভ্রাট, লোড শেডিং। বিদ্যুৎ সঞ্চালনে এই দুর্বলতা থাকায় বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমারও বিকল হচ্ছে বেশী, বিকল হচ্ছে বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতিও। ২০২২ সাল নাগাদ টেকসই সঞ্চালন ব্যবস্থা গড়ে তোলার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে সরকার। এতে ব্যয় হবে ১১ হাজার তিন শ’ ৫৪ কোটি টাকা। বর্তমানে দৈনিক বিদ্যুৎ উৎপাদন হচ্ছে ২০ হাজার একশ’ ৩৩ মেগাওয়াট। বার্ষিক দশ শতাংশ হারে বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এই বিষয়টি মাথায় রেখেই সরকার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। যথাযথভাবে এই পরিকল্পনাটি বাস্তবায়িত হবে বলেই আমরা আশা করছি। বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনের সক্ষমতা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে বৈদ্যুতিক ট্রান্সফরমারগুলোর ‘সক্ষমতা’ বাড়ানো জরুরী। অর্থাৎ দেশের বিভিন্ন স্থানে মেয়াদোত্তীর্ণ অকেজো অসংখ্য ট্রান্সফরমার রয়েছে এগুলো সংস্কার বা পুনঃ স্থাপন করা দরকার।
বিদ্যুৎ নিয়ে অসন্তুষ্ট এদেশের গ্রাহকেরা বরাবরই। অতীতে এই অসন্তুষ্টি চরম আকার ধারণ করেছিলো। চাহিদার তুলনায় বিদ্যুতের ঘাটতি ছিলো অনেক। দিনের বেশীর ভাগ সময়ই বিদ্যুৎ থাকতো না। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিদ্যুৎ ব্যবস্থার উন্নয়নে নানা পরিকল্পনা গ্রহণ করে। এক পর্যায়ে বিদ্যুতের উৎপাদন বৃদ্ধি পায়। কমে আসে ঘাটতি। সম্প্রতি দেশে বিদ্যুতের তেমন একটা ঘাটতি নেই বলে সরকার দাবী করছে। তারপরেও গ্রাহকেরা নানা ধরণের সমস্যায় ভুগছেন। সেটা হচ্ছে মূলত বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইনে ত্রুটি, ট্রান্সফরমার বিকল ইত্যাদি কারণে। বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন পুনর্বাসনের প্রকল্প বাস্তবায়নে যাতে কোন অনিয়ম দুর্নীতি না হয়, সেটা নিশ্চিত করতে হবে।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT