পাঁচ মিশালী

বিচিত্র কিছু ঘটনা, কিছু খবর

রফিকুর রহমান লজু প্রকাশিত হয়েছে: ১৩-১০-২০১৮ ইং ০১:১৪:৪২ | সংবাদটি ৬৭৩ বার পঠিত

সড়ক বিভাজকে বৃক্ষরোপণ
ইংরেজি মিডিয়াম স্কুল আনন্দ নিকেতন সিলেটের মিরের ময়দান-সুবিদবাজার দ. সড়কের বিভাজকে ১৩০টি রাধাচূড়া গাছ রোপণ করেছে। গত ১ সেপ্টেম্বর শনিবার সকালে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। গত বছর ২০১৭ সালে বিদ্যালয়ের সম্মুখে নির্মিত সড়কের বিভাজকেও দৃষ্টিনন্দন রাধাচূড়া গাছ রোপণ করেছিল আনন্দনিকেতন। বিদ্যালয়ের একাডেমিক শামীম চৌধুরী বলেন, প্রকৃতি ও পরিবেশ সংরক্ষণে আনন্দ নিকেতন সংবেদনশীল। ইতিপূর্বে লাগানো স্কুলের সামনের ডিভাইডারের সবগুলো গাছে ফুল ফুটেছে এবং পরিবেশকে দৃষ্টিনন্দন করে রেখেছে।
পায়ে হেঁটে ১৫০ কি.মি. পথ পাড়ি
কিছু সমাজ সচেতনতামূলক স্লোগানকে সামনে রেখে ঢাকার জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের চার রোভার স্কাউট সদস্য পায়ে হেঁটে ১৫০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়েছেন। তারা শ্রীমঙ্গল থেকে যাত্রা শুরু করে জাফলং পৌঁছে তাদের মিশন শেষ করেন। রোভার স্কাউট সদস্যরা হলেন শেখ সাদ আল জাবের শুভ, আহসান হাবীব, এনামুল হাসান কাওসার ও হাসান আলী। তাদের স্লোগানগুলো ছিল- ধূমপান ও মাদককে না বলুন, সুস্থভাবে বেঁচে থাকুন। ট্রাফিক আইন মানবো, দুর্ঘটনা কমাবো। আর নয় শিশু শ্রম, শিক্ষা শিশুর অধিকার। পানিই জীবন, এর প্রতিটি বিন্দুর সদ্ব্যবহার করুন।
স্কাউট সদস্যরা গত ২৭ আগস্ট রোভার স্কাউটের সর্বোচ্চ সম্মান ‘প্রেসিডেন্ট’স রোভার স্কাউট অ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তির লক্ষ্যে সিলেটের শ্রীমঙ্গল থেকে জাফলংয়ের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেন। পাঁচদিন ব্যাপী এই ভ্রমণে তারা সিলেটের রাজনগর, ফেঞ্চুগঞ্জ, সিলেট সদর, জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট, জাফলং এলাকা পায়ে হেঁটে ভ্রমণ করেন।
ভাসমান বীজতলা
জমির ওপর নয়, ভাসমান বেডে ধানের চারা বপন করার এক নতুন ও বিকল্প পদ্ধতি বের করেছেন ভীমখালি ইউনিয়নের কৃষক ইকবাল হোসেন ও কৃষক আব্দুল খালিক। তারা পরিত্যক্ত খাল ও ডোবায় কলা গাছের ভেলায় বাঁশ ও দাড়ির পাটাতনে কচুরিপানা পচিয়ে তার ওপর মাটি দিয়ে বীজতলা প্রস্তুত করে তাতে ধান চারা উৎপাদন করে এলাকায় সাড়া ফেলে দিয়েছেন। কৃষকদের উদ্ভাবিত এই প্রক্রিয়ায় জামালগঞ্জ উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে কৃষকদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন।
বন্যা বিপর্যস্ত দুর্যোগে হতাশ কৃষক সম্প্রদায়কে আপদকালীন সুবিধা পাইয়ে দিতে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এই ভাসমান বীজতলা কার্যক্রমে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করছেন। কৃষকদের পতিত বিল বা ডোবায় ভাসমান বেডে ধানবীজ বপনে ফলনও ভালো হবে এবং বন্যার পানিতে ডুবার আশঙ্কা থেকে মুক্ত থাকবে। বপনকৃত ধান অঙ্কুরিত হয়ে চারায় রূপান্তরিত হচ্ছে। তিন চার সপ্তাহ পরে এই চারা জমিতে রোপণের পর একই বেডে লালশাক ও ডাটা বপন করা যাবে।
বাইসাইকেলে সর্বোচ্চ সড়ক খারদুংলায় আরোহণ
কক্সবাজারের টেকনাফের শাহ পরীর দ্বীপের সমুদ্র পৃষ্ঠের শূন্য ফিট থেকে বাইসাইকেল চালিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে উচু যানবাহন চলাচলের রাস্তা খারদুংলা পাস পর্যন্ত সাইক্লিং করেছেন মৌলভীবাজারের রাজীব দে অনিক। সী টু সামিট হিমালয়ান সাইকেল এক্সপেডিশন নামের এই যাত্রা গত ১৭ জুন ২০১৮ মৌলভীবাজার সাইক্লিং কমিউনিটির এই সদস্য সম্পন্ন করেছেন। দলগতভাবে রাজীব দে অনিক, গাজীপুর সাইকেল রাইডার্সের কাজী শরীফ ও জাহাঙ্গীর নগর সাইক্লিং ক্লাবের তোজ্জাম্মেল হোসেন মিলন বীরত্বপূর্ণ অর্জনে এই প্রথম। বাইসাইকেল চালিয়ে তারা ফুলবাড়ি সীমান্ত দিয়ে ভারতে প্রবেশ করেন এবং ৬১ দিনে ৫১১২ কি.মি. সাইকেল চালিয়ে গত ১৭ আগস্ট (২০১৮) পৌঁছে যান খারদুংলা পাসে। খারদুংলার উচ্চতা ১৮৩১৮ ফুট।
চপেটাঘাতে মৃত্যু
বিশ্বনাথ উপজেলায় এক পিতার চপেটাঘাতে তার পুত্রের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। চপেটাঘাতের আঘাতে পুত্র রেদওয়ান আহমদ আফজল (১৫) অসুস্থ হয়ে পড়ে এবং গত ২৯ আগস্ট (২০১৮) তার মৃত্যু হয়। ছোট ভাইবোনদের সাথে দুষ্টুমি করলে পিঠে চপেটাঘাত করে তাকে শাসন করেন পিতা। পরদিন চিকিৎসাধীন অবস্থায় সে মৃত্যুবরণ করে। পিতা জাবেদুল ইসলামকে (৫৫) গ্রেফতার করা হয়।
গাড়ি ১ লক্ষ ৮৩ হাজার, চালক মাত্র ৯৩ হাজার
সিলেট বিভাগের চার জেলায় রেজিস্ট্রেশনপ্রাপ্ত ১ লক্ষ ৮৩ হাজার ৬৪৬টি গাড়ি রয়েছে। এর বিপরীতে লাইসেন্সপ্রাপ্ত চালক রয়েছে মাত্র ৯৩ হাজার ৭০২ জন। অর্থাৎ প্রয়োজনের তুলনায় ৮৯ হাজার ৯৪৪ জন চালকের অভাব রয়েছে। লাইসেন্সপ্রাপ্ত চালকের তুলনায় রেজিস্ট্রেশন প্রাপ্ত গাড়ির সংখ্যা প্রায় ৯০ হাজার বেশি। সিলেট বিআরটিএ সূত্রে এই হিসেব পাওয়া গেছে।
ব্রিজেট ম্যাককেইন বাংলাদেশের মেয়ে
ঢাকার মাদার তেরেসা ফাউন্ডেশনের একটি এতিমখানায় অসুস্থ ছিলো একটি মেয়ে শিশু। তার মুখে ঘা ছিলো। সে খেতে পারতো না। মার্কিন সিনেটর জন ম্যাককেইনের স্ত্রী সিন্ডি এই অসুস্থ শিশুটিকে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যান। জন ম্যাককেইন শিশুটিকে দত্তক মেয়ে হিসেবে গ্রহণ করেন। শিশুটি ঢাকার এতিমখানায় ১৬০টি শিশুর সঙ্গে ছিলো। আরেকটি শিশুর ছিলো জটিল হৃদরোগ। এখানে থাকলে এ শিশু দুটির বাঁচার আশা ছিলো না। মিসেস ম্যাককেইন শিশু দুটিকে যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যান। সিনেটর ম্যাককেইনের দত্তক নেওয়া বাংলাদেশের সেই মেয়েটি এখন ব্রিজেট ম্যাককেইন, জন ম্যাককেইনের একমাত্র কৃষ্ণাঙ্গ সন্তান।
কালো ব্রিজেটকে দত্তক নেয়ায় ম্যাককেইনকে চড়া মূল্য দিতে হয়। তিনি বিগত ২০০০ সালে জর্জ বুশের বিরুদ্ধে প্রেসিডেন্ট থেকে প্রাইমারি ভোটের জন্য লড়ছিলেন। ম্যাককেইনকে হারানোর জন্য বিপক্ষ থেকে প্রচার করা হয় ‘ম্যাককেইন একটি কৃষ্ণাঙ্গ জারজ সন্তানকে দত্তক নিয়েছেন’। সেই প্রাইমারি তাই জিততে পারেননি ম্যাককেইন। তিনি দমে যাননি এবং ব্রিজেটকে ত্যাগ করেননি। ২০০৮ সালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময়ও তিনি ভোটের প্রচারণায় সঙ্গে রেখেছিলেন ব্রিজেটকে।
প্লাস্টিকে মোড়া ১৪ নবজাতক
সংবাদটি ভারতের কলকাতার। সেখানে একটি খালি প্লটে ১৪টি নবজাতকের মৃতদেহ পাওয়া গেছে। কলকাতার (দক্ষিণ) হরিদেবপুর থানার রাজা রামমোহন সরণির এই প্লটে গত ২৬ আগস্ট (২০১৮) পরিচ্ছন্নতা অভিযান চলাকালে শ্রমিকরা ঝোপের ভেতর প্লাস্টিকের ব্যাগে মোড়া এই মৃতদেহগুলো দেখতে পায়। ধারণা করা হচ্ছে এলাকাটির আশপাশে অবৈধ গর্ভপাতে জড়িত চক্র এর পেছনে থাকতে পারে। কলকাতার মেয়র শোভন চট্টপাধ্যায় ও পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
৬৯টি সন্তানের জন্মের রেকর্ড
একজন মহিলা সারা জীবনে কয়টি সন্তানের জন্ম দিতে পারেন? সম্প্রতি এই প্রশ্নের যে উত্তর পাওয়া গেছে তা শুধু অবিশ্বাস্যই নয়- চমকপ্রদ। চল্লিশ বছর বয়সী এক ফিলিস্তিনি নারীর মৃত্যু সংবাদে বেরিয়ে এসেছে এই প্রশ্নের উত্তর। এই মহিলা তার জীবনে ৬৯ সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। গত দুই সেপ্টেম্বর এই মহিলা মারা গেছেন। প্রকাশিত সংবাদে মহিলার নাম প্রকাশ করা হয়নি।
ফিলিস্তিনি সংবাদপত্র গাজা আন আল-এ প্রকাশ, ১৬ বার যমজ সন্তান প্রসব করে ৩২টি সন্তান জন্ম দিয়েছেন, ৭ বার ত্রিপালেটস সন্তান প্রসব করে ২১টি এবং ৪ বার কোয়াডুপে টস সন্তান প্রসব করে ১৬টি সন্তানের জন্ম দিয়েছেন। তার সন্তানের মোট সংখ্যা ৬৯টি। সংবাদে উল্লেখ হয়েছে, এই দৌড়ে আরো এক মহিলা রয়েছেন রাশিয়ার ওই নারী মিসেস ভ্যাসিলিয়েভাও ৬৯টি সন্তানের জন্মদাত্রী।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT