সম্পাদকীয়

দৃষ্টিনন্দন প্রাথমিক বিদ্যালয়

প্রকাশিত হয়েছে: ২১-১০-২০১৮ ইং ০১:২৫:৫৬ | সংবাদটি ৭৫ বার পঠিত


দৃষ্টিনন্দন করা হচ্ছে প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে সুন্দর ও দৃষ্টিনন্দন করে তুলতে নেয়া হয়েছে মেগা প্রকল্প। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে এক হাজার একশ’ ৪৩ কোটি টাকা। ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে প্রকল্পের কাজ শুরু হবে বলে জানা গেছে। মূলত ‘সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে শুধু গরীবের সন্তানেরাই ভর্তি হয় এবং এরা প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করে না’- এই অপবাদ থেকে বেরিয়ে আসতেই এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় প্রাথমিকভাবে রাজধানীর বেশ কয়েকটি জরাজীর্ণ বিদ্যালয় নতুন করে গড়ে তোলা হবে। এরপর থেকে সারাদেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সৌন্দর্য বর্ধন কার্যক্রম পরিচালিত হবে। প্রকল্পের মধ্যে রয়েছে- মানসম্মত ও দৃষ্টিনন্দন ভবন, খেলার মাঠ এবং মাল্টিমিডিয়া ক্লাস রুম। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিবর্গের অভিমত, ‘দরিদ্রদের স্কুল’ বলে পরিচিতি পাওয়া সরকারি স্কুলগুলোকে বদলাতে হবে। প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে কিন্ডার গার্টেনের মতো করে গড়ে তোলা হবে বুদ্ধিমানের কাজ।
দীর্ঘদিন ধরেই অপবাদটি প্রচলিত- সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় হয়ে ওঠেছে গরীবদের বিদ্যালয়। অর্থাৎ গরীব নি¤œবিত্ত পরিবারের সন্তানেরাই সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে লেখাপড়া করে, আর অবস্থাসম্পন্ন পরিবারের সন্তানেরা ভর্তি হয় ব্যয়বহুল কি-ার গার্টেন স্কুলে। বাস্তবতা এমনই, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোর সার্বিক অবস্থা ভালো নয়। বেশির ভাগ বিদ্যালয়েরই লেখাপড়ার পরিবেশ উন্নত নয়। যে কারণে শিশুদের বিদ্যালয়ে ধরে রাখা সম্ভব হচ্ছে না। অপরদিকে কি-ার গার্টেন বিদ্যালয়গুলোতে আকর্ষণীয় চাকচিক্যময় পরিবেশ গড়ে তোলা হয়েছে, যা শিশুদের বিদ্যালয়ে ধরে রাখতে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে। এজন্য অবস্থাসম্পন্ন পরিবারের শিশুদের কি-ার গার্টেন বিদ্যালয়ে ভর্তি করানোর ঝোঁক বেশি। দেশে বর্তমানে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংখ্যা ৬৫ হাজার তিনশ’ ৮০টি। এর মধ্যে রয়েছে ২০১৩ সালে জাতীয়করণকৃত ২৬ হাজার একশ’ ৯৩টি বেসরকারি রেজিস্টার্ড প্রাথমিক বিদ্যালয়। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে অবকাঠামোর চিত্র ও শিক্ষার পরিবেশ নিয়ে জরিপ চালানো হয়। জরিপে ৩৭ শতাংশ ভবন ব্যবহারের অনুপযুক্ত বলে উল্লেখ করা হয়।
প্রাথমিক শিক্ষার গুণগত মান বাড়ানোর জন্য দরকার মানসম্মত বিদ্যালয় ও মানসম্মত শিক্ষক। অতীতে কি-ার গার্টেন স্কুল প্রতিষ্ঠার আগে প্রাথমিক শিক্ষার জন্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ই ছিলো ভরসা। সমাজের সকল স্তরের অভিভাবকেরাই তাদের সন্তানদের পাঠাতেন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় এখন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলো পরিণত হয়েছে অনেকটা ‘গরীবদের বিদ্যালয়ে’। অথচ সরকার এই খাতে ব্যয় করছে কোটি কোটি টাকা। সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোকে দৃষ্টিনন্দন এবং আকর্ষণীয় করে গড়ে তুলতে ভবন ও পরিবেশের সৌন্দর্য বাড়ানোর পাশাপাশি লেখাপড়ার মানও বাড়াতে হবে।

 

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT