সম্পাদকীয় বিদ্বানের কলমের কালি শহীদের রক্তের চেয়েও পবিত্র।-আল হাদিস

স্বাস্থ্য পরীক্ষার ফি নির্ধারণ

প্রকাশিত হয়েছে: ২৬-১০-২০১৮ ইং ০১:১১:০৪ | সংবাদটি ১০৩ বার পঠিত

স্বাস্থ্য পরীক্ষার মূল্য তালিকা নির্ধারণ করতে হবে। আর এ জন্য সময় বেধে দেয়া হয়েছে দুই মাস। আগামী দুই মাসের মধ্যে দেশের সব বেসরকারী ক্লিনিক, হাসপাতাল ও প্যাথলজিতে স্বাস্থ্য পরীক্ষার মূল্য তালিকা নির্ধারণ করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। এ বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের গঠিত পাঁচ সদস্যের কমিটিকে আদালতের নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতে বলা হয়েছে। দেশের বেসরকারী হাসপাতাল, ক্লিনিক, প্যাথলজিগুলোতে রোগীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষার ফি নির্ধারিত নেই। একই ধরণের রোগের পরীক্ষা নীরিক্ষার ফি একেক প্যাথলজিতে একেক রকম। তাছাড়া এই ফি’র হার দিন দিন বেড়ে চলেছে। এতে রোগীদের জীবনে নেমে আসছে দুর্বিসহ অবস্থা। আছে টেস্টে নানা ধরণের ভুলভ্রান্তির অভিযোগ। এই প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য পরীক্ষার ফি নির্ধারণের বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।
চিকিৎসা ক্ষেত্রে একটা বিশৃঙ্খল অবস্থা বিরাজ করছে। সরকারী হাসপাতালে অনিয়ম অব্যবস্থাপনার অভিযোগ অত্যন্ত পুরনো অভিযোগ। সরকারী হাসপাতালগুলোতে রোগীরা পাচ্ছেনা যথাযথ সেবা, এই সুযোগে গড়ে ওঠেছে বেসরকারী পর্যায়ে অসংখ্য হাসপাতাল, ক্লিনিক, স্বাস্থ্যকেন্দ্র। তেমনি গড়ে ওঠেছে প্যাথলজি-ডায়াগনস্টিক সেন্টার। কিন্তু এগুলোতে নেই সরকারের নিয়ন্ত্রণ। ফলে বেসরকারী চিকিৎসাকে ব্যয়বহুল ও ‘অভিজাত’ শ্রেণীর চিকিৎসা বলেই অভিহিত করেছেন অনেকে। সত্যি বলতে কি, বেশীর ভাগ বেসরকারী চিকিৎসা কেন্দ্রেই মানুষ কাড়ি কাড়ি টাকা ব্যয় করেও কাংঙ্খিত সেবা পাচ্ছেনা। এগুলো নিজেদের তৈরী নিয়মনীতির ভিত্তিতে চিকিৎসা ফি থেকে শুরু করে সব ধরণের সিদ্ধান্ত নিতে থাকে। ফলে চিকিৎসাসহ পরীক্ষা নীরিক্ষার ফি নির্ধারণ করার ক্ষেত্রে স্বেচ্ছাচারীতা হচ্ছে। আর গলাকাটা ফি দিতে গিয়ে নিঃস্ব হয়ে পড়ছে রোগীরা। জরিপের তথ্য হচ্ছে দেশের ১৭ শতাংশ মানুষ চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে গিয়ে রীতিমতো ফতুর হয়ে পড়ছেন।
প্যাথলজি টেস্ট ফি নির্ধারণের জন্য হাইকোর্ট নির্দেশ দিয়েছেন। এর আলোকে সংশ্লিষ্টরা বেসরকারী চিকিৎসা ক্ষেত্রে প্যাথলজি ফি নির্ধারণ করবে, এটাই আমরা আশা করছি। যদিও ইতোপূর্বে হাইকোর্টের এ ধরণের অনেক নির্দেশনাই কার্যকর হয়নি। এক্ষেত্রে সেই ধরণের অবহেলা-উদাসীনতার আশ্রয় নেবে না সরকার; সেটাই আমরা চাই। শুধু তা-ই নয়, ফি নির্ধারণের সময় সেই ফি যাতে সকলের গ্রহণযোগ্য হয়, সেদিকেও নজর দিতে হবে। সেই সঙ্গে বেসরকারী চিকিৎসা সেবার মান সার্বিকভাবে উন্নত করার জন্যও সচেষ্ট হতে হবে।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT