শেষের পাতা উঁকি দিচ্ছে ইতিহাস

লাউড় রাজ্যের হলহলিয়া দুর্গ ও গৌড় গোবিন্দ রাজবাড়ির উৎখনন কাজ শুরু

রমেন্দ্র নারায়ন বৈশাখ, তাহিরপুর(সুনামগঞ্জ)থেকে প্রকাশিত হয়েছে: ১৫-১১-২০১৮ ইং ০২:৫৪:১৫ | সংবাদটি ৩১৯ বার পঠিত

 তাহিরপুর উপজেলার লাউড় রাজ্যের রাজধানী’র হলহলিয়া দুর্গ ও পাশের ব্রাহ্মণগাঁওয়ের গৌর গবিন্দ রাজবাড়ির উৎখননের কাজ উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তরের কর্মকর্তা কর্মচারীরা এই খনন কাজ শুরু করেছে। উৎখনন কাজের উদ্বোধন করেন সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মোঃ বরকতুল্লাহ খান। উদ্বোধনকালে উপস্থিত ছিলেন-তাহিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার পূর্ণেন্দু দেব,তাহিরপুর জয়নাল আবেদীন ডিগ্রী কলেজ অধ্যক্ষ ফণী ভূষণ সরকার। প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগীয় আঞ্চলিক পরিচালক ড. মো. আতাউর রহমান জানান, প্রাচীন নিদর্শন রক্ষা, ইতিহাস সম্পর্কে জানা ও পর্যটন বিকাশের উদ্দেশ্যে ৯ জনের একটি টিম ২ মাসব্যাপী এ খনন কাজ করবেন।
উৎখনন কাজে অংশ গ্রহণের জন্য কুমিল্লার শালবন বিহারের ময়নামতি জাদুঘরের কাস্টোডিয়ান ড. আহমেদ আবদুল্লাহ্, ময়নামতি জাদুঘরের সহকারী কাস্টোডিয়ান মো. হাফিজুর রহমান, প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তরের চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগীয় আঞ্চলিক পরিচালক অফিসের সিনিয়র ড্রাফটসম্যান মো. সিরাজুল ইসলাম, সার্ভেয়ার জালাল আহমেদ, আলোকচিত্রি মো. নুরুজ্জাামান মিয়া, পটারী রেকর্ডার মো. ওমর ফারুক, অফিস সহায়ক লক্ষণ দাস বর্তমানে উৎখনন কাজে লাউড়েরগড়ে অবস্থান নিয়েছেন।
প্রসঙ্গত, সুনামগঞ্জের ধারারগাঁওয়ের বাসিন্দা বাংলাদেশ পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি)’র চেয়ারম্যান ড. মুহাম্মদ সাদিক ২০১৬ সালের জানুয়ারি মাসে প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ও প্রতœতত্ত্ব বিভাগের চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের দেশ ও জাতির ইতিহাস, ঐতিহ্য এবং প্রতœতাত্ত্বিক গুরুত্ব বিচারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানিয়ে আধাসরকারি পত্র দিয়েছিলেন।
ড. মোহাম্মদ সাদিক তাঁর পত্রে আরও উল্লেখ করেন, সুনামগঞ্জ জেলার তাহিরপুর উপজেলায় প্রাচীন লাউড় রাজ্যের রাজধানী ছিল। এখানকার রাজা ভগদত্ত মহাভারতের যুদ্ধে অর্জুনকে সৈন্য পাঠিয়ে সাহায্য করেছিলেন বলেও তথ্য রয়েছে। মহাভারতের প্রথম বাংলায় অনুবাদকারী মহাকবি সঞ্জয়’র নিবাসও এই এলাকায়। হযরত শাহজালাল (র.)’এর সঙ্গী শাহ আরেফিন (র.) এবং মহাপ্রভু শ্রী চৈতন্যের সহচর অদ্বৈতাচার্যের সঙ্গে সম্পর্কিত এই এলাকা। চিঠিতে তিনি এ ব্যাপারে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রতœতত্ত্ব বিভাগের সহযোগিতা কামনা করেন। না হয়, এই এলাকা ভূমিদস্যুদের দখলে চলে যাবে এবং কালের গর্ভে হারিয়ে যাবে বলে উল্লেখ করেন তিনি। এরপর থেকে কয়েকবারই প্রতœতত্ত্ব অধিদপ্তরের গবেষকরা এই অঞ্চল পরিদর্শন শেষে গতকাল থেকে উৎখনন কাজ শুরু করে।

 

শেয়ার করুন
শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • জুনে পদত্যাগ করবেন থেরেসা মে
  • সিলেটে ১৯ উপজেলার সহকারী শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ধাপের পরীক্ষা ৩১ মে
  • ১৪ বাংলাদেশিসহ ভূমধ্যসাগরে ২৯০ অভিবাসী উদ্ধার
  • ১৪ বাংলাদেশিসহ ভূমধ্যসাগরে ২৯০ অভিবাসী উদ্ধার
  • পবিত্র রমজান মানুষের অন্তরে খোদা ভীতি তৈরি করে
  • জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের ইফতার মাহফিল কাল
  • কমলগঞ্জে প্রায় তিন হাজার একর আউশ ক্ষেত নিমজ্জিত
  • জগন্নাথপুরে ছাত্রীকে পাশবিক নির্যাতনের অভিযোগে স্কুল শিক্ষক গ্রেফতার
  • হরিপুর বাজারের ঘটনায় ইউপি চেয়ারম্যানসহ নিরীহ মানুষজনকে ছেড়ে দিয়েছে র‌্যাব
  • খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে ঈদের পর আন্দোলনে নামবে বিএনপি ---কলিম উদ্দিন মিলন
  • তোমাদেরকে দেশ-জাতির কল্যাণে অবদান রাখতে হবে
  • একাদশে ভর্তি হতে আবেদন করেননি ২৪২০৪২ শিক্ষার্থী
  • কুলাউড়ায় পিত্রালয় থেকে গৃহবধূর গলাকাটা লাশ উদ্ধার
  • ফেঞ্চুগঞ্জে নদীতে ডুবে শিশুর মৃত্যু
  • বিশ্বনাথের ইফতেখার আলম মুকুল নরউইচ সিটির কাউন্সিলর নির্বাচিত
  • কমলগঞ্জে ইফতারের বাজার
  •   কানাইঘাটে সরকারি ধান ক্রয়ে অব্যবস্থাপনা
  • অবুঝ সন্তানদের আর্তনাদ-আমরারে রাখি কই গেলায় গো আব্বা!
  • রাজনগরে বিরল রোগে আক্রান্ত বাবা-মেয়ে
  • রমজান চরিত্র গঠনের হাতে কলমে শিক্ষা
  • Developed by: Sparkle IT