সম্পাদকীয়

ওষুধের দাম বাড়ছে

প্রকাশিত হয়েছে: ১৬-০৩-২০১৯ ইং ০১:০৪:০৯ | সংবাদটি ৭১ বার পঠিত

বাড়ছে দাম ওষুধের। নিয়ন্ত্রণহীন দেশের ওষুধের বাজার। পাইকারী বাজার খুচরা বাজার সবক্ষেত্রেই বাড়ছে ওষুধের দাম। একদিকে ওষুধ কোম্পানীগুলো নানা অজুহাতে যখন-তখন বাড়িয়ে দিচ্ছে দাম, অপরদিকে বিক্রেতারাও প্যাকেটের গায়ে লেখা দামের চেয়ে বেশি দামে ওষুধ বিক্রি করছে। অনেক ওষুধ বিক্রি হচ্ছে প্যাকেটে লেখা দামের দ্বিগুণ তিনগুণ বেশি দামে। দেশব্যাপী রয়েছে বৈধ-অবৈধ মিলিয়ে কমপক্ষে দুই লাখ ওষুধের দোকান। এসব দোকানে প্রতিদিন বিক্রি হচ্ছে কোটি কোটি টাকা মূল্যের ওষুধ। ক্রেতাগণ অনেক সময় জানতেই পারেন না কোন ওষুধের দাম কতো। কারণ ট্যাবলেট বা ক্যাপসুল জাতীয় ওষুধের পাতায় দাম লেখা থাকেনা; লেখা থাকে প্যাকেটে। অনেক সময় ক্রেতারা পরিচিত ট্যাবলেট বা ক্যাপসুলের প্যাকেট কিনলে তখনই বুঝতে পারেন যে, এই ওষুধের দাম বেড়েছে।
একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, সরকারি প্রতিষ্ঠান ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের অগোচরেই বাড়ানো হয় ওষুধের দাম। ওষুধ কোম্পানীগুলো ওষুধের দাম বাড়াতে কর্তৃপক্ষের অনুমোদনের প্রয়োজনও মনে করে না। সত্যি বলতে কি, শুধু দাম বৃদ্ধিই নয়, জীবন রক্ষাকারী ওষুধ নিয়ে দেশে চলছে অরাজকতা। একদিকে দাম বাড়ানো হচ্ছে ইচ্ছেমতো, অপরদিকে মেয়াদ উত্তীর্ণ ও ভেজাল ওষুধ বিক্রি হচ্ছে। বেশ কয়েকটি ওষুধ কোম্পানী রয়েছে, যেগুলো নি¤œমানের ওষুধ তৈরি করে বাজারে ছাড়ছে। অনেক সময় তারা তাদের উৎপাদিত নি¤œমানের ওষুধের মোড়কে নামকরা ওষুধ কোম্পানীর লেবেল লাগিয়ে বাজারে ছাড়ছে। তারা এখানেই ক্ষান্ত হচ্ছেনা; চিকিৎসকদের নানান উপঢৌকন দিয়ে খুশি করে তাদেরকে দিয়ে রোগীর প্রেসক্রিপশনে নি¤œমানের ওষুধ লিখিয়ে নিচ্ছে। এতে সাধারণ ক্রেতারা দুর্বিসহ পরিণতির শিকার হচ্ছেন। ওই ওষুধে রোগীর রোগ নিরাময়ের পরিবর্তে বাড়ছে রোগ যন্ত্রণা।
ওষুধের দাম নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষেত্রে সরকারের কোন প্রতিষ্ঠানেরই সরাসরি ভূমিকা নেই। ১৯৯৪ সালে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের এক নির্দেশনায় ‘অত্যাবশ্যকীয় তালিকাভুক্ত ওষুধের দাম নিজ নিজ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান নির্ধারণ করবে’ বলে জানানো হয়। সেই নির্দেশনার ভিত্তিতে কোম্পানীগুলো ওষুধের দাম বাড়াচ্ছে নিজেদের ইচ্ছে মতো। অথচ ১৯৮২ সালের ওষুধ নিয়ন্ত্রণ অধ্যাদেশে যেকোন ওষুধের দাম নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা ছিলো সরকারের। অর্থাৎ ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে এখন ফ্রি স্টাইলে ওষুধের দাম বাড়াতে কোন বাধার সম্মুখীন হচ্ছে না। এই বিষয়টি নিয়ে গুরুত্বের সঙ্গে ভাবতে হবে সংশ্লিষ্টদের।

 

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT