উপ সম্পাদকীয়

হুমকির মুখে ভোলাগঞ্জ মহাসড়কের দশ নম্বর এলাকা

মো. রফিকুল হক প্রকাশিত হয়েছে: ২২-০৩-২০১৯ ইং ০০:৪৭:২০ | সংবাদটি ৫৪ বার পঠিত

সিলেট জেলার কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার সিলেট-ভোলাগঞ্জ সড়ক অত্র অঞ্চলের দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন। মহাসড়কটি দ্রুততার সহিত সম্পন্ন হতে চলেছে। দীর্ঘ দশ বৎসর কষ্টভোগের পর জনগণ সুফল পেতে শুরু করেছে। প্রায় সাতশত কোটি টাকার প্রকল্প নিজস্ব অর্থায়নে বাস্তবায়ন প্রায় শেষ হতে চলেছে। এমতাবস্থায় রাস্তাটির শেষ অংশে ধলাই নদী কাছাকাছি থাকায় উক্ত দশ নম্বর এলাকাটি সরকারি খাসজমি। এখানে স্থানীয় ভোলাগঞ্জ গ্রামবাসী ও দশ নম্বর এলাকার কিছু স্থানীয় লোক এই জমি নিজেদের দখলে নিয়ে পাথরের ব্যবসার জন্য ভাড়া দিয়ে আসছিল। এতে স্থানীয় উপজেলা এসি ল্যান্ড অফিসের ডাম্পিংয়ের জন্য অনুমতি এক সময় ছিল। বর্তমানে খাস জমিগুলো রক্ষার জন্য বারবার পরিবেশ বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। ইদানিং উক্ত জায়গায় বোমা মেশিন দিয়ে এলাকাটিকে ধ্বংস করে স্থানীয় মহাসড়কটিকে হুমকীর মুখে ফেলে দেওয়া হয়েছে।
এখানে আমদানীকারক পাথর ব্যবসায়ীদের সুবিধার্থে সরকারি কাস্টমস অফিস চালু আছে। যেখানে পাথর আমদানীর জন্য বিশাল জায়গা দরকার। সরকার প্রতি বৎসর শত কোটি টাকার রাজস্ব এখান থেকে আহরণ করছে। হাজার ব্যবসায়ী নিয়মিত বৈধভাবে ভারত থেকে পাথর, কয়লা ও চুনাপাথর আমদানী করে আসছেন। উক্ত ভোলাগঞ্জ দশ নম্বরকে ‘স্থল বন্দর’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। কাজ দ্রুত বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে। কোম্পানীগঞ্জবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন যখনই উদিত হয়, তখনই একশ্রেণির পাথর খেকো ও পরিবেশ ধ্বংসকারী এই স্বপ্নে আঘাত করে। এসব উন্নয়ন বিরোধীদের বিরুদ্ধে শাস্তির আইনী পদক্ষেপ নিতে হবে। এখানে ফরেস্ট অফিস ও স্থানীয় শুল্ক স্টেশন সহ যাবতীয় প্রতিষ্ঠানের কার্যাদি বিদ্যমান। নবরূপে নানা অবকাঠামো গড়ে উঠছে। সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তর ও স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনকে স্থল বন্দরটি বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।
দশ নম্বর এলাকাটি রক্ষার্থে বিগত ৪/৩/২০১৯ তারিখে স্থানীয় উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট ভোলাগঞ্জ আমদানীকারক সমিতি (এল.সি) স্মারকলিপি প্রদান করে এবং পরিবেশ বিধ্বংসী বোমা মেশিন বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন করতে চাইলে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসন তা করতে দেয়নি। এতে ব্যবসায়ী মহল ক্ষোভ প্রকাশ করেন। যেখানে প্রশাসন সচেতন মানুষকে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার সহযোগিতা করার কথা, সেখানে উল্টো অবস্থানের কারণে তাদের ভূমিকায় জনমনে নানা প্রশ্নের তৈরি হচ্ছে।
ভোলাগঞ্জ এলাকাটি পাথর কোয়ারী অঞ্চল হিসেবে সারাদেশে বিখ্যাত। উক্ত কোয়ারীর পাথর বালু সিঙ্গেল দ্বারা দেশের সকল উন্নয়ন ও অবকাঠামো তৈরি হয়। সুউচ্চ অট্টালিকা, ইমারত বিল্ডিং এমন কি যমুনা সেতু ও নবপ্রতিষ্ঠিত পদ্মাসেতুতে ভোলাগঞ্জের কোয়ারীর পাথর, বালি ব্যবহৃত হচ্ছে। যা কোম্পানীগঞ্জবাসীর গর্বের বিষয়। এত অহংকার ও গর্বের বিষয় মানুষের হাতে ধ্বংস হতে পারে না।
স্থানীয় প্রতিমন্ত্রী (বৈদেশিক শ্রমকল্যাণ) সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত ও সড়ক ও যোগাযোগ সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের অক্লান্ত প্রচেষ্টায় একনেকের সভায় বিরাট প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে এই রাস্তার গুরুত্ব ও ব্যবসায়িক সাফল্য সর্বোপরি এতদঞ্চলের আপামর জনগণের আরামদায়ক যাত্রা ভ্রমণের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিধায় কার্যটি সম্পাদন করতে সক্ষম হয়েছেন। বিগত দশটি বৎসর জনসাধারণের চলার পথ কুসুমাস্তীর্ণ ছিল না। মরণ হাতে নিয়ে যাত্রীরা তার যাত্রা পথে বের হতো। স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা-মক্তব ছাত্র-ছাত্রী এবং উপজেলার প্রশাসনের সর্বস্তরের কর্মকর্তা কর্মচারী সবাই নিরাপদ যাত্রা মনে করতেন না। সেই অসহনীয় দুঃখ কষ্ট যখন লাঘবের পথে তখন কিছু মানুষ নিজের পায়ে কুড়াল মারার কাজ করছে। সিলেট-ভোলাগঞ্জ মহাসড়কটি রক্ষার্থে আইনী সকল কার্যক্রম দ্রুত হাতে নেওয়ার জন্য এলাকাবাসীর দাবি।

শেয়ার করুন
উপ সম্পাদকীয় এর আরো সংবাদ
  • শবে বরাত : আমাদের করণীয়
  • শিক্ষকের গায়ে কলঙ্কের দাগ
  • উন্নয়ন হোক দ্রুত : ফললাভ হোক মনমতো
  • হার না মানা জাতি
  • বাংলা বানান নিয়ে কথা
  • আলজেরিয়ার পর সুদানেও স্বৈরশাসকের পতন
  • দেশের সরকারি প্রাথমিক শিক্ষার হাল-চাল
  • ইলিশ : অর্থনীতি উন্নয়নের বড় হাতিয়ার
  • নুসরাত ও আমাদের সমাজ
  • শিশুরাই আমাদের শিক্ষক
  • জ্ঞান বিকাশে সংবাদপত্রের ভূমিকা
  • প্রসঙ্গ : বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ এবং আমাদের জাতীয় ঐক্য
  • বজ্রপাত আতঙ্ক ও আমাদের করণীয়
  • সুদান : গণবিপ্লবে স্বৈরশাসক বশিরের পতন
  • মুক্তিযুদ্ধ ও মুজিবনগর সরকার
  • বৈশাখের বিচিত্র রূপ
  • বিচার নয় অভিশাপ
  • আমাদের জীবনে মিডিয়ার প্রভাব
  • সার্বজনীন বৈশাখী উৎসব
  • ঐতিহ্যময় উৎসব পহেলা বৈশাখ
  • Developed by: Sparkle IT