সম্পাদকীয়

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে শিশুরা

প্রকাশিত হয়েছে: ১০-০৪-২০১৯ ইং ০০:৩৯:০৪ | সংবাদটি ২২১ বার পঠিত


দুই কোটি শিশু ঝুঁকির মধ্যে। জলবায়ু পরিবর্তন জনিত দুর্যোগে দেশের ২০ জেলার এক কোটি ৯৪ লাখ শিশু রয়েছে ঝুঁকির মধ্যে। এর মধ্যে সিলেট বিভাগের সুনামগঞ্জ এবং হবিগঞ্জ জেলার ২৫ লাখ ৩৪ হাজারের বেশি শিশু রয়েছে ঝুঁকিতে। ইউনিসেফ সম্প্রতি এই তথ্য দিয়েছে। তাদের মতে বাংলাদেশের ১৮ বছরের নীচে প্রায় দুই কোটি শিশু জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকিতে রয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে শিশুরা বিভিন্ন ধরনের বিপজ্জনক কাজে যুক্ত হচ্ছে এবং পরিবারগুলো হচ্ছে শহরমুখী। তাদের মতে বাংলাদেশের ২০টি জেলা জলবায়ু ঝুঁকিতে আছে। সামুদ্রিক ঝড়, বন্যা, আকস্মিক বন্যা, খরার মতো জলবায়ু পরিবর্তনের শিকার হতে পারে এসব জেলা। উপকূলীয় জেলাগুলোর জন্য ঝুঁকির মাত্রা বেশি। আর ২০টি ঝুঁকিপূর্ণ জেলার মধ্যে রয়েছে সুনামগঞ্জ এবং হবিগঞ্জ জেলাও।
বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের নেতিবাচক প্রভাব প্রতিফলিত হচ্ছে বিভিন্ন ক্ষেত্রে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে নানা ধরনের দুর্যোগ-দুর্বিপাক শুরু হয়েছে বিভিন্ন দেশে। বাংলাদেশে এর প্রভাব একটু বেশিই বলা যায়। এখানে এখন ঝড়, বৃষ্টি, টর্নেডো হচ্ছে স্বাভাবিকের চেয়ে অনেক বেশি। অতিবৃষ্টি-বন্যা হচ্ছে অসময়ে। হচ্ছে দীর্ঘ খরা। বাড়ছে গ্রীষ্মের উত্তাপ এবং স্থায়ীত্ব। ফসল উৎপাদনে এর বিরূপ প্রভাব পড়ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা বাড়ছে। যে কারণে দেশে উপকূলীয় অঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকা সমুদ্র গর্ভে তলিয়ে যাওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। জনস্বাস্থ্যেও এর বিরূপ প্রভাব পড়েছে। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে মানবদেহে নানা ধরনের অসুখ বিসুখের জন্ম হচ্ছে। বিশেষ করে শিশুরা এর শিকার হচ্ছে বেশি। নানা ধরনের দুর্যোগের শিকার হচ্ছে শিশুরাও। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে শিশুরা বিভিন্ন ধরনের বিপদজনক কাজে যুক্ত হচ্ছে। এইসব শিশু ও শিশুদের পরিবার পাড়ি জমাচ্ছে শহরে। বাংলাদেশের শহরগুলোতে কমপক্ষে ৬০ লাখ জলবায়ু উদ্বাস্তু রয়েছে বলে জানা যায়।
জলবায়ু পরিবর্তন শুধুমাত্র আমাদের জন্যই নয়, সারা বিশ্বের জন্যই একটা বৃহৎ সমস্যা। এ ব্যাপারে চলছে নানা ধরনের গবেষণা। পরিস্থিতি মোকাবেলায় নেয়া হচ্ছে নানা ধরনের উদ্যোগ। প্রতিটি দেশই নিজেদের সাধ্যমতো এর মোকাবেলায় প্রস্তুতি নিচ্ছে। বাংলাদেশও যে বসে আছে, এমন নয়। আমাদের সরকারও নানা ধরনের প্রচেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। তবে এক্ষেত্রে সবচেয়ে জরুরি হচ্ছে পরিস্থিতি মোকাবেলার জন্য যথাযথ উপায় উদ্ভাবন এবং মানুষকে সচেতন করে তোলা। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত প্রভাবের হুমকিতে থাকা শিশুসহ সব বয়সের মানুষের সুরক্ষায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে বলেই আমরা মনে করি।

 

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT