প্রথম পাতা সিলেটে বাংলা নববর্ষ উদযাপন

মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক উন্নত সমৃদ্ধ দেশ গড়ার প্রত্যয়

স্টাফ রিপোর্টার প্রকাশিত হয়েছে: ১৬-০৪-২০১৯ ইং ০২:০৫:৩৪ | সংবাদটি ৩০৮ বার পঠিত

 মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় ঐক্যবদ্ধভাবে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত উন্নত-সমৃদ্ধ অসাম্প্রদায়িক সোনার বাংলাদেশ গড়ে তোলার দৃঢ় প্রত্যয়ে গত রোববার বাংলা নববর্ষ ১৪২৬ বরণ করেছে সিলেটবাসী। সকাল থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে শুরু হয়ে দিনব্যাপী বর্ণিল উৎসবে সিলেটে পয়লা বৈশাখ উদযাপিত হয়েছে।
‘মস্তক তুলিতে দাও অনন্ত আকাশে’ এ স্লোগানে অসাম্প্রদায়িক চেতনা প্রাণের উচ্ছ্বাসে বের হওয়া শোভাযাত্রা সিলেট জেলা প্রশাসনের কার্যালয় থেকে বেরিয়ে নগরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে রিকাবীবাজারে গিয়ে শেষ হয়। শোভাযাত্রায় গ্রাম বাংলার আবহমান ইতিহাস ও ঐতিহ্যের সঙ্গে সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহের প্রতীকী চিত্র ও কৃষ্টি-কালচার তুলে ধরা হয়।
সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরীর নেতৃত্বে শোভাযাত্রায় অংশ নেন- জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম, প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তা, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং সাধারণ মানুষ।
এছাড়া, সকালে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও তার সহধর্মিণী শামা হকের নেতৃত্বে নগরভবন থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়। শোভাযাত্রায় সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও তাদের সন্তানরা অংশগ্রহণ করে।
পয়লা বৈশাখ উদযাপনে বরাবরের ন্যায় এবারো বৈশাখী সাজে সেজেছিলো সিলেট। আবেগ আর উচ্ছ্বাসে সিলেটজুড়ে নানা আয়োজনের মাধ্যমে চলে বর্ষবরণ।
সিলেটে সরকারি-বেসরকারিভাবে বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আনন্দযজ্ঞের আয়োজন করা হয়েছে। এদিন বৈশাখের গান ও নৃত্যসহ বিভিন্ন অনুষ্ঠানমালা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো।
সিলেট সিটি কর্পোরেশন॥ বর্ণাঢ্য আয়োজনে সিলেট সিটি কর্পোরেশনে পয়লা বৈশাখ ১৪২৬ উদযাপিত হয়েছে। রোববার সকালে নগর ভবন থেকে বাংলা নববর্ষ বরণের বর্ণাঢ্য আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। শোভাযাত্রায় নেতৃত্ব দেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও মেয়রপতœী শামা হক চৌধুরী।
এসময় শোভাযাত্রায় সিসিকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা বিধায়ক রায় চৌধুরী, কাউন্সিলর আজম খান, শান্তনু দত্ত সন্তু, সচিব মোহাম্মদ বদরুল হক, প্রধান প্রকৌশলী নুর আজিজুর রহমান সহ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা অংশ নেন।
শোভাযাত্রায় সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সন্তানরা নানা রঙয়ের পোশাকে ভিন্ন ভিন্ন সাজে ব্যানার, ফেস্টুন, প্ল্যাকার্ড নিয়ে অংশ নেয়। শোভাযাত্রাটি নগরীর গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে গিয়ে শেষ হয়। এর আগে নগর ভবনে শিশু-কিশোরদের মধ্যে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও নগরীর ঐতিহাসিক সারদা হলের সামনে সপ্তাহব্যাপী বৈশাখী মেলার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।
শাহজালাল বিশ^বিদ্যালয়॥ শাবি প্রতিনিধি জানান, বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পয়লা বৈশাখ উৎসব উদযাপিত হয়েছে। রোববার সকাল থেকেই বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে দিনব্যাপী কর্মসূচির শুরুতেই ঢোল, করতাল, বাঁশির বাজনার তালে বহু বর্ণিল ব্যানার, ফেস্টুন, পোস্টার শোভিত বৈশাখী মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে বাংলা নববর্ষকে স্বাগত জানানো হয়।
সকাল ১০টায় একাডেমিক ভবন ই এর সামনে থেকে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের নেতৃত্বে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সাথে নিয়ে মঙ্গল শোভাযাত্রা বের করা হয় এবং ক্যাম্পাস প্রদক্ষিণ করে, এক কিলো ঘুরে বিশ^বিদ্যালয়ের মুক্তমঞ্চে এসে শোভাযাত্রাটি শেষ হয়। এতে কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল ইসলাম, নববর্ষ উদযাপন কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. এস এম সাইফুল ইসলাম, ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. রাশেদ তালুকদার, অধ্যাপক ড. মো. কবির হোসেন, প্রক্টর অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদ, রেজিস্ট্রার, বিভিন্ন অনুষদের ডিন, হলসমূহের প্রভোস্ট, বিপুল সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-কর্মকর্তা ও কর্মচারী অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া শোভাযাত্রায় বিভিন্ন বিভাগ আলাদাভাবে অংশগ্রহণ করেন।
পরবর্তীতে সকাল ১১টায় উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ মুক্তমঞ্চে সাপের খেলা ও মোরগের লড়াই উপভোগ করেন। এছাড়া একই সময় লোকজ সঙ্গীত অনুষ্ঠান, বিকেল আড়াইটায় বিভিন্ন সংগঠনের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। দুপুর ২টায় শাহজালাল বিশ^বিদ্যালয় প্রেসক্লাবের উদ্যোগে বাংলা বর্ষ পুঞ্জিকা ১৪২৬ এর মোড়ক উন্মোচন করেন উপাচার্য। এছাড়া ক্যাম্পাসের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন বিভাগ এবং সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো বৈশাখী টেন্ট স্থাপন করে পয়লা বৈশাখ উদযাপন করেছে।
শাবি প্রেসক্লাব: শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকদের সংগঠন ‘শাহজালাল বিশ^বিদ্যালয় প্রেসক্লাব’র উদ্যোগে বাংলা নববর্ষ ১৪২৬ উপলক্ষে বাংলা বর্ষপঞ্জিকার মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে।
রোববার দুপুর আড়াইটায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের কার্যালয়ে বর্ষপঞ্জিকার মোড়ক উন্মোচন করেন শাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ।
প্রেসক্লাবের সভাপতি জিয়াউল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং দপ্তর সম্পাদক মেহেদী কবিরের সঞ্চালনায় মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সবাইকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে উপাচার্য বলেন, বাংলা বর্ষপঞ্জিকা তৈরি করা খুব প্রশংসার একটি বিষয়। আবহমান কাল ধরে বাংলার ইতিহাস ঐতিহ্যকে ধারণ করে এমন বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সাজিয়ে বর্ষপঞ্জিকা তৈরি করায় সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। বিশেষ অথিতির বক্তব্য রাখেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল ইসলাম, এসময় আরো বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদ, বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. খায়রুল ইসলাম, সহকারী প্রক্টর সামিউল ইসলাম ও প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল্লাহ ওয়াসিফ।
সিলেট কৃষি বিশ^বিদ্যালয়॥ সিকৃবি প্রতিনিধি জানান, বাংলা নববর্ষকে ঘিরে সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়েও বর্ণাঢ্য ও প্রাণবন্ত আয়োজনের মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে পয়লা বৈশাখ-১৪২৬ ।
উপলক্ষে সকালে আয়োজন করা হয় এক বর্ণিল শোভাযাত্রা। এতে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ মতিয়ার রহমান হাওলাদার, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার বদরুল ইসলাম শোয়েব সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষকমন্ডলী, কর্মকর্তা-কর্মচারী , ছাত্রলীগের নেতাকর্মী, শিক্ষার্থী বৃন্দ।
মঙ্গল শোভাযাত্রা শেষে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ মতিয়ার রহমান হাওলাদার অন্যান্য শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নিয়ে বৈশাখী চত্বরে বিভিন্ন অনুষদ ও সংগঠনের স্টল ঘুরে দেখেন এবং সবার সাথে নববর্ষের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।
এর পরপরই আয়োজন করা হয় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে পরিবেশিত হয় নাচ, গান ও বাংলা বর্ষবরণ কে কেন্দ্র করে বিভিন্ন পরিবেশনা।
উল্লেখ্য, বাস চালক ও হেলপার দ্বারা নিহত হওয়া সিকৃবি শিক্ষার্থী ঘোরী মোঃ ওয়াসিম আব্বাসের জন্মদিন ছিল। জন্মদিন ও পয়লা বৈশাখ উপলক্ষে তার নামে দেয়া হয় একটি বিশেষ স্টল। যেখানে তার স্মৃতি সম্বলিত নানা ছবি ও অন্যান্য স্মৃতিচারণা তুলে ধরা হয়।
এমসি কলেজ ॥ নানা আয়োজনে নতুন বছরের সূর্যকে স্বাগত জানায় সিলেটের মুরারিচাঁদ (এমসি) কলেজ। রোববার সকাল ৯টায় কলেজের জারুলতলা থেকে মঙ্গল শোভাযাত্রার মধ্যদিয়ে ১৪২৬ বঙ্গাব্দের মূল অনুষ্ঠান শুরু হয়।
প্রজাপতি, ঘোড়া, ময়ূর, পেঁচাসহ বিভিন্ন ধরনের পশুর আকৃতি, রংবেরঙের মুখোশ এবং প্লেকার্ড-ফেস্টুন হাতে নিয়ে শিক্ষার্থীদের আনন্দ শোভাযাত্রা কলেজ প্রদক্ষিণ করে কলা ভবনের সামনে এসে শেষ হয়।
কলেজ অধ্যক্ষ প্রফেসর নিতাই চন্দ্র চন্দের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত শোভাযাত্রায়, উপাধ্যক্ষ প্রফেসর সালেহ আহমেদসহ বিভিন্ন বিভাগের প্রধান, কলেজের শিক্ষক পরিষদের সদস্য, কলেজস্থ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক সংগঠনের সদস্য ও সাধারণ শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।
শোভাযাত্রা শেষে সম্মিলিত কন্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশনের পর ছাত্রী মিলনায়তনের সামনে বৈশাখী মঞ্চে এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
বাংলা নববর্ষ ১৪২৬ উদযাপন কমিটির আহবায়ক ও এমসি কলেজ পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান আ.ন.ম রিয়াজের সঞ্চালনায় এতে কলেজের অধ্যক্ষ, উপাধ্যক্ষসহ, বিভিন্ন বিভাগের প্রধান ও সংগঠনের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য দেন।
পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। থিয়েটার মুরারিচাঁদ, মোহনা সাংস্কৃতিক সংগঠন, মুরারিচাঁদ কবিতা পরিষদসহ কলেজের বিভিন্ন সংগঠন এতে পরিবেশনা করে।
এর আগে মুরারিচাঁদ কবিতা পরিষদের ত্রৈমাসিক সাহিত্য পত্রিকা ‘জাগরণ’র বৈশাখ সংখ্যা ও মোহনা সাংস্কৃতিক সংগঠনের বার্ষিক ম্যাগাজিনের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।
শ্রুতি॥ সাংস্কৃতিক সংগঠন শ্রুতির উদ্যোগে প্রতিবারের মতো বাংলা নতুন বছরকে বরণ করে নেয়। রোববার ব্লু-বার্ড স্কুল এন্ড কলেজ প্রাঙ্গণে সূর্যোদয়ের পরপরই শুরু হয় শতকন্ঠে নতুন বছরকে আহ্বান। ‘আসবে পথে আঁধার নেমে তাই বলে কি রইবি থেমে’ শীর্ষক আয়োজন। প্রদান করা হয় শ্রুতি সম্মাননা ১৪২৫ বাংলা। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম। মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার পরিতোষ ঘোষ, শাবির হিমাদ্রী শেখর রায়, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি আমিনুল ইসলাম লিটন, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শামসুল আলম সেলিম, শ্রুতি সিলেটের সমন্বয়ক সুমন্ত গুপ্ত।
অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ভারতের সহকারী হাই কমিশনার এল কৃষ্ণমূর্তি । স্বাগত বক্তব্য রাখেন শ্রুতির সদস্য সচিব সুকান্ত গুপ্ত।
দিনব্যাপী আয়োজনে সমবেত সংগীত, নৃত্য,আবৃত্তি পরিবেশন করে শ্রুতি শতকন্ঠ, গীতবিতান বাংলাদেশ, ছন্দনৃত্যালয়, দ্বৈতস্বর, নৃত্যশৈলী, গ্রিন ডিজেবল ফাউন্ডেশন, জাতীয় রবীন্দ্র সংগীত সম্মিলন পরিষদ, আবৃত্তি বিভাগ শ্রুতি সিলেট, নগরনাট, দীপ্তর্শি, অন্বেষা শিল্পী গোষ্ঠী, মুক্তাক্ষর, নাট্যম সংগীত বিদ্যালয়, সুরের ভূবন, অনির্বাণ শিল্পী গোষ্ঠী, কৃষ্ণচূড়া-সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় একক পরিবেশনায় অংশ নেন
সমাজসেবা কার্যালয় ঃ বাংলা নববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে জেলা সমাজসেবা কার্যালয়, সিলেট এর উদ্যোগে বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। কর্মসূচির মধ্যে ছিল সকাল ১০টায় বাগবাড়িস্থ সমাজকল্যাণ কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণ থেকে বর্ণাঢ্য মঙ্গল শোভাযাত্রা বের হয়ে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পর্যন্ত প্রদক্ষিণ, সকাল সাড়ে ১০টায় সমাজকল্যাণ কমপ্লেক্সের মুক্তমঞ্চে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।
সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন জনপ্রিয় সাংস্কৃতিকদল নগরনাট, সংগীত শিল্পী মিজানুর রহমান, ময়ূব দাস,সরকারি শিশু পরিবার (বালক) ও সরকারি শিশু পরিবার (বালিকা) এর সাংস্কৃতিক দল, শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের সাংস্কৃতিক দল, সিলেট বুদ্ধি প্রতিবন্ধী অটিস্টিক বিদ্যালয়, গ্রিণ ডিসএ্যাবল্ড ফাউন্ডেশন (জিডিএফ) এর সাংস্কৃতিক দলসহ সিলেটের বিশিষ্ট সংগীত শিল্পী এবং সাংস্কৃতিক সংগঠন।
কর্মসূচিতে সিলেটের সকল সুধীজন এবং সমাজসেবা অধিদফতর সিলেট জেলার সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা সপরিবারে উপস্থিত ছিলেন ।
সিলেট জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপ পরিচালক নিবাস রঞ্জন দাশের শিল্প নির্দেশনায় ও সমাজসেবা অফিসার লুৎফুর রহমানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিভাগীয় সমাজসেবা কার্যালয়ের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) মো.আব্দুর রফিক, জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা সাইদুর রহমান, জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক নাজিম উদ্দিন, দৈনিক সিলেটের ডাক এর সিনিয়র রিপোর্টার হাজী এম আহমদ আলী, রহমানিয়া প্রতিবন্ধী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সভাপতি আলহাজ্ব আতাউর রহমান খান সামসু, জৈন্তাপুর উপজেলা সমাজসেবা অফিসার একে আজাদ ভূইয়া, সিলেট আদালতের প্রবেশন অফিসার তমির হোসেন চৌধুরী, দক্ষিণ সুরমা উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আব্দুল মুন্তাকিন, সদর উপজেলা সমাজসেবা অফিসার নাসরিন সুলতানা, কানাইঘাট উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মোহাম্মদ জিলানী,গোয়াইনঘাট উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আবু কাওসার, বিয়ানী বাজার অনুজ চক্রবর্ত্তী, জকিগঞ্জ বিনয় ভূষণ পাল, গোলাপগঞ্জ নূরুল হক, বালাগঞ্জ আব্দুর রাজ্জাক, আঞ্চলিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের অধ্যক্ষ মাহবুবুল আলম খাসনবিস, রায়নগর শিশু পরিবারের উপ তত্ত্বাবধায়ক জাহানারা বেগম,বাগবাড়ী শিশু পরিবারের উপ তত্ত্বাবধায়ক জয়তি দত্ত, শেখ রাসেল প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের কর্মকর্তা শ্রাবন্তী ধর, সিলেট বুদ্ধি প্রতিবন্ধী অটিস্টিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুরাইয়া নাসরিন, শাহ জালাল রাগীব-রাবেয়া প্রতিবন্ধী সেবাকেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শামীমা নাছরিন প্রমুখ।
সিলেট স্টেশন ক্লাব॥ সিলেট স্টেশন ক্লাব লিমিটেড এর মহিলা উপ-পরিষদের উদ্যোগে নানা আয়োজনে পয়লা বৈশাখ ১৪২৬ উদযাপন করা হয়েছে। রোববার সন্ধ্যায় ক্লাব কার্যালয়ে ক্লাবের ফ্যামিলি মেম্বারদের নিয়ে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও অনুষ্ঠানে পয়লা বৈশাখ উপলক্ষে নাটিকা পরিবেশন করা হয়। অনুষ্ঠান শেষে অনুষ্ঠিত হয় আকর্ষণীয় র‌্যাফেল ড্র।
বর্ণিল এই অনুষ্ঠানে সূচনা বক্তব্য রাখেন ক্লাব প্রেসিডেন্ট এমাদ উল¬াহ শহিদুল ইসলাম। বক্তব্য রাখেন মহিলা উপ-পরিষদের আহ্বায়ক সানিলা বানু। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন ক্লাবের সদস্য অর্থ ও পরিকল্পনা বিভাগ এডভোকেট শাহ মো. মোশাহিদ আলী। সানিলা বানুর সঞ্চালনায় ক্লাব পরিবার সদস্যদের পরিবেশনায় মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ, সাবেক সংসদ সদস্য সৈয়দা জেবুন্নেছা হক, শফিকুর রহমান চৌধুরী, র‌্যাব-৯ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মনিরুজ্জামান, সমাজসেবা অধিদপ্তর সিলেটের বিভাগীয় ভারপ্রাপ্ত পরিচালক মো. আব্দুর রফিক, নর্থ ইস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ডা. আতফুল হাই শিবলী, গোলাপগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান এড. ইকবাল আহমদ চৌধুরী।
স্টেশন ক্লাবের নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ভাইস প্রেসিডেন্ট মো. জামাল ইয়াকুব, ব্যবস্থাপনা বিভাগের সদস্য হারুন আল রশিদ দিপু, উন্নয়ন ও আবাসিক বিভাগের সদস্য মোসাদ্দেক কোরেশী শামীম, ক্রীড়া বিভাগের সদস্য ফজলে এলাহী চৌধুরী, বিনোদন বিভাগের সদস্য সুদীপ রঞ্জন সেন বাপ্পু, সাংস্কৃতিক বিভাগের সদস্য আহবাব মোহাম্মদ কামরুল ইসলাম টিপু, আপ্যায়ন বিভাগের সদস্য মুফতি এ.এস. শামীম আহমদ, মহিলা উপ-পরিষদের সদস্য জেবুন নাহার সেলিম, রেবেকা ইয়াসমিন, ফারহানা মালেক জয়া, জামিলা বানু, পাপিয়া বেগম, এবং তুলসী রাণী দত্ত ও মহিলা উপ-পরিষদের উপদেষ্টা সৈয়দ জেবুন্নেছা হক, রওনক জাহান ও বিলকিস জাহান প্রমুখ। এছাড়াও ক্লাবের অন্যান্য সদস্য ও পরিবারবর্গ উপস্থিত ছিলেন।
সিলেট শিশু একাডেমি ॥ সিলেট জেলা প্রশাসন ও বাংলাদেশ শিশু একাডেমি, সিলেট এর উদ্যোগে বাংলা বর্ষবরণ উপলক্ষে তিনদিনব্যাপী শিশু আনন্দমেলার উদ্বোধন করা হয়েছে । গতকাল সোমবার বিকাল সাড়ে ৪টায় বেলুন ও ফেস্টুর উড়িয়ে আনন্দমেলার আনুষ্ঠা

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সংবাদ প্রকাশে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের
  • ট্রেন দুর্ঘটনার পেছনে কোন ষড়যন্ত্র থাকলে সরকার খতিয়ে দেখবে : প্রধানমন্ত্রী
  • জামিনের জন্য আপিল বিভাগে খালেদার আবেদন
  • উল্লাপাড়ায় ট্রেন লাইনচ্যুত, ৪ বগিতে অগ্নিকান্ড
  • সিলেট বোর্ডে গণিতে বহিষ্কার ৪ জগন্নাথপুরে শিক্ষক বহিষ্কার
  • প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি সমাপনী পরীক্ষা শুরু রোববার
  • আয়কর মেলা: সিলেটে প্রথম দিনেই ২ কোটি ৪৩ লাখ টাকার কর আদায়
  • পেঁয়াজের মূল্য বাড়ায় উত্তাল সংসদ
  • সিলেটে পেঁয়াজের বাজার আরও গরম
  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেন দুর্ঘটনায় অপমৃত্যুর মামলা
  • প্লানেটরি ইমার্জেন্সি ফান্ড সংসদে পাস
  • আবরার হত্যার অভিযোগপত্রে ২৫ জন আসামি
  • রোহিঙ্গা সমস্যার জন্য দায়ী জিয়াউর রহমান : প্রধানমন্ত্রী
  • ইন্ডিয়ার বিরুদ্ধে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে আজ খেলতে নামবে বাংলাদেশ
  • ১৭৯ কিলোমিটারের ১৩টি রেলসেতু ঝুঁকিপূর্ণ
  • মেজর জেনারেল এমএ রবের ৪৩তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ
  • হবিগঞ্জের মৃতের সংখ্যা ৯-এ উন্নীত
  • বিয়ের আনন্দ শেষে বাড়ি ফেরা হলো না শিক্ষার্থী ফারজানার
  • সুখী-সমৃদ্ধ দেশ গঠনে যুগোপযোগী নতুন নেতৃত্ব বাছাই করতে হবে
  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় দুই ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত ১৬
  • Developed by: Sparkle IT