প্রথম পাতা

শাল্লায় পণ্যবাহী নৌকায় আগুন বিপুল পরিমাণ মালামাল পুড়ে ছাই

শাল্লা(সুনামগঞ্জ) থেকে নিজস্ব সংবাদদাতা প্রকাশিত হয়েছে: ২০-০৪-২০১৯ ইং ০২:২৮:০৩ | সংবাদটি ১৩০ বার পঠিত

শাল্লা উপজেলার মামুদনগর বাজারে মরা সুরমা নদীতে পণ্যবাহী নৌকায় অগ্নিকান্ডে বিপুল পরিমাণ মালামাল পুড়ে গেছে। গতকাল শুক্রবার আসরের নামাজের পরপর নৌকাটি মামুদনগর বাজারঘাটে পৌঁছা মাত্রই আগুন লেগে যায়। নৌকায় দাহ্য পদার্থ থাকায় মুহূর্তের মধ্যে আগুন পুরো নৌকায় ছড়িয়ে পড়ে এবং ভয়াবহ আকার ধারণ করে। আগুন নেভানোর কোন রকম চেষ্টার পূর্বেই পুরো নৌকার মালামাল ভস্মীভূত হয়ে যায়। ৩ হাজার মণ ধারণ ক্ষমতার নৌকাটি কিশোরগঞ্জের ভৈরব বাজার থেকে শাল্লার তিনটি বাজারের বিপুল পরিমাণ মালামাল নিয়ে আসছিল। এদিকে, অগ্নিকান্ডে নৌকার সকল মালামাল পুড়ে যেতে দেখে জ্ঞান হারান নৌকার পরিচালক আবু তাহের। পরে তাকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়। ক্ষয়ক্ষতি এখনো নিরুপন করা যায়নি। তবে প্রায় ২ কোটি টাকার মালামাল পুড়ে গেছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।
নৌকার শ্রমিক শহিদুল ইসলাম জানান, নৌকা ঘাটে ভিড়ার পর তিনি পাড়ে নামেন। এর পরপরই নৌকার ভিতরে একটি শব্দ শুনতে পান এবং সাথে সাথে নৌকায় আগুন লেগে যায়। এসময় তিনি চিৎকার করে লোকজনকে ডাকতে থাকেন। মামুদনগর গ্রামের বাদশা মিয়া বলেন, নৌকাটি ঘাটে আসা মাত্রই আগুন লেগে যায়। নৌকায় থাকা কেরোসিনের ড্রাম ও গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হওয়ায় লোকজন পাশে যেতে পারছিল না। স্থানীয় মামুদনগর বাজারের মেসার্স কাজী এন্টারপ্রাইজের পরিচালক কাজী আব্দুল কুদ্দুছ জানান, নৌকাটি আসরের আযানের সাথে সাথে বাজার ঘাটে পৌঁছে। মসজিদ থেকে নামাজ পড়ে এসেই দেখতে পাই নৌকায় আগুন লেগেছে। তিনি আরো বলেন, আগুন নৌকার গুদামে লেগেছিল। আগুনের তীব্রতা এতো বেশি ছিল যে, কেউ নৌকার কাছে ভিড়তে পারেননি। এদিকে, শ্যামারচর বাজারের ব্যবসায়ী ধন মিয়া মাস্টার ও ইউসুফ আলী অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে ছুটে এসেছেন। তারা জানান, নৌকার লোকজনের কাছ থেকে মোবাইল ফোনে গ্যাস সিলিন্ডারের মাধ্যমে নৌকায় আগুন লাগার বিষয়ে জানতে পেরে ছুটে এসেছেন। তারা বলেন, নৌকাটিতে প্রায় ২শ’টি কোরোসিনের ড্রাম, দেড়শটি গ্যাস সিলিন্ডারসহ প্রায় ২কোটি টাকার মালামাল ছিল। সব পুড়ে গেছে, কোন কিছুই আর অবশিষ্ট নেই। এদিকে, ক্ষয়ক্ষতি নিরুপনে তিন বাজারের ব্যবসায়ীরা আজ বসবেন বলে জানিয়েছেন শ্যামারচর বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক সজল কান্তি দাস। তিনি জানান, নৌকাটিতে আমাদের বাজারের প্রায় সব ব্যবসায়ীর মালামাল ছিল। যার সঠিক হিসাব করা এখন সম্ভব নয়। আজ শনিবার তিন বাজারের ব্যবসায়ীগণ বসে হিসাব করে জানাতে পারবেন কত টাকার মালামাল ক্ষতি হয়েছে। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা জানান, নৌকাটি দীর্ঘ চল্লিশ বছর ধরে ভৈরব নদী বন্দর থেকে শল্লার শ্যামারচর, আনন্দপুর ও মামুদনগর বাজারে নিয়মিত মালামাল পরিবহন করে আসছে। নৌকাটির স্বত্বাধিকারী বি-বাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার ফকিরদিয়া গ্রামের শাহেদ আলী মাঝি। বার্ধক্যজনিত কারণে এখন তার ছেলে আবু তাহের নৌকাটি পরিচালনা করেন। শাল্লা থানার ওসি মো. আশরাফুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, নৌকাটিতে ধাহ্য পদার্থ থাকায় আগুন নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যায়। আগুন নিভে গেলেও এখনো নৌকা থেকে ধোঁয়া বের হচ্ছে।

 

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • রোজায় ইনকাম একটু কম করলে কি হয়, বিআরটিসি কর্মীদের কাদের
  • কাউন্ড ডাউন ওয়ার্মআপ ম্যাচটি হলো না
  • খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে রিজভীর নেতৃত্বে মিছিল
  • খালেদা জিয়ার আদালত বদলের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার চেয়ে রিট
  • রাষ্ট্রপতি চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরেছেন
  •   মাত্র ২৪ দিনেই ১৩৫ কোটি ডলার রেমিটেন্স
  • প্রধানমন্ত্রী ত্রিদেশীয় সফরের উদ্দেশ্যে মঙ্গলবার ঢাকা ত্যাগ করবেন
  • আলবিদা মাহে রমজান
  • রমজান থেকে স্রষ্টার সৃষ্টির প্রতি কর্তব্য পালনের শিক্ষা নিতে হবে
  • ঈদকে সামনে রেখে সিলেটে র‌্যাবের তিন স্তরের নিরাপত্তা
  • সোনার বাংলা গড়ার জন্য সোনার মানুষ তৈরী করতে হবে
  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভিপি নূরকে অনুষ্ঠানে যেতে বাধা-
  • রমজানুল মোবারক আস-সালাম
  • মাধবপুর ও শ্রীমঙ্গলে সড়কে প্রাণ গেলো ৪ জনের
  • সিলেটে জাতীয় কবির জন্মবার্ষিকী পালিত
  • সরকারের ভ্রান্ত নীতিতে কৃষকরা সঙ্কটে: ফখরুল
  • স্কুল জীবন থেকেই ট্রাফিক আইন সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দরকার : প্রধানমন্ত্রী
  • ভারতে এবার সরকার গঠনের পালা
  •   খালেদা জিয়াকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেয়া হচ্ছে
  •   সরকার এতো অমানবিক নয়
  • Developed by: Sparkle IT