সম্পাদকীয় যা তুমি দেখাও তার চেয়ে বেশি তোমার থাকা উচিত; যা তুমি জানো তার চেয়ে তোমার কম কথা বলা উচিত। -শেক্সপিয়ার

বিপাকে সঞ্চয়কারীরা

প্রকাশিত হয়েছে: ২৯-০৪-২০১৯ ইং ০০:৪১:০৯ | সংবাদটি ১১৪ বার পঠিত

ইদানিং বেশ আলোচনা হচ্ছে ‘সঞ্চয়’ নিয়ে। বিশেষ করে ক্ষুদ্র সঞ্চয় নিয়ে বিপাকে পড়েছেন মধ্যবিত্তরা। সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েছেন সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগকারীরা। সমস্যার মূলে রয়েছে ‘টিন’ সার্টিফিকেট। সরকার সঞ্চয়পত্র কেনার ক্ষেত্রে আবেদন ফরমের সঙ্গে আয়কর সনদ বা টিন সার্টিফিকেট দেয়া বাধ্যতামূলক করেছে। গত পয়লা এপ্রিল থেকে এই টিন সার্টিফিকেট ছাড়া সঞ্চয়পত্র বিক্রি করা হচ্ছে না। এতে অবসরপ্রাপ্ত চাকরিজীবী যারা পেনশনের টাকা সঞ্চয়পত্রে বিনিয়োগ করে এর লাভের টাকায় সংসার চালিয়ে আসছেন, তারা পড়েছেন চরম বিপাকে। তারা নির্দিষ্ট মেয়াদে কেনা সঞ্চয়পত্রের মেয়াদপূর্তি শেষে নতুন করে সঞ্চয়পত্র কিনতে পারছেন না। বিশেষ করে পেনশনভোগী ব্যক্তির অবর্তমানে তার স্ত্রীর পক্ষে আয়কর সনদ নেয়া দূরূহ হয়ে পড়েছে।
শুধু সঞ্চয়পত্র নয়, অন্য যেকোন খাতেই ক্ষুদ্র সঞ্চয়কারীদের বিনিয়োগের পথ দিন দিন সংকুচিত হচ্ছে। ব্যাংকে বিভিন্ন ধরনের সঞ্চয়প্রকল্পে সুদের হার ক্রমাগত কমছে। নির্দিষ্ট মেয়াদের হিসাবগুলোতে সুদের হার কমানোর পাশাপাশি মেয়াদ শেষে সুদের ওপর কর আরোপ করা হয়েছে। যে কারণে সেদিকেও ঝুঁকছেন না বিনিয়োগকারীরা। ডাকঘর সঞ্চয় ব্যাংকেও বিভিন্ন সঞ্চয় প্রকল্পের সুদের হার কমানো হয়েছে। অতীতে অনেক চাকরিজীবী ডাকঘরে বিভিন্ন প্রকল্পে বিনিয়োগ করতেন পেনশনের টাকা। বিশেষজ্ঞদের মতে, সঞ্চয়পত্রের মাধ্যমে নি¤œ ও মধ্যবিত্ত জনগোষ্ঠী কিছুটা হলেও আর্থিক নিরাপত্তা সুবিধা গ্রহণ করতে পারতেন। বর্তমানে এই সঞ্চয়পত্র কেনার ক্ষেত্রে সৃষ্টি করা হয়েছে জটিলতা। যাদের ব্যবসা বাণিজ্য বা অন্য কোথাও অর্থ বিনিয়োগের সুযোগ নেই, এমন মানুষেরই শেষ ভরসা হচ্ছে জাতীয় সঞ্চয় ব্যুরোর সঞ্চয়পত্র স্কিম। নি¤œ ও মধ্যবিত্তরা এ খাতে সহজে বিনিয়োগ করতে না পারলে তাদের অনেকেই পুঁজি বাজারে ঝুঁকতে পারেন বলে অর্থনীতিবিদদের ধারণা। তাছাড়া, পুঁজি বাজারে বিনিয়োগ যে এখন লাভজনক সেটাও বলার শক্তি নেই।
সুদিনের সঞ্চয় দুর্দিনের সহায়। পরিকল্পিত জীবন যাপনে বিশ্বাসীরাই সঞ্চয়ে অভ্যস্ত। তাছাড়া, আমাদের দেশে সামাজিক নিরাপত্তামূলক সর্বজনীন ও কার্যকর ব্যবস্থা না থাকায় সবস্তরের মানুষের মধ্যেই ভবিষ্যতের কথা ভেবে সঞ্চয়ের অভ্যাস গড়ে তোলা জরুরি। বিশেষত সীমিত ও নি¤œ আয়ের লোকদের সঞ্চিত অর্থ বিনিয়োগের ক্ষেত্র সংকুচিত হওয়ায় তারা বিভিন্ন সমবায় সমিতি বা ব্যক্তিগত খাতে বিনিয়োগ করছেন। অথচ সরকারি সঞ্চয় প্রকল্পগুলোতে এই অর্থ বিনিয়োগ করলে লাভবান হতো সরকারই। সুতরাং জাতীয় সঞ্চয়পত্রসহ অন্যান্য প্রকল্পে যাতে মানুষ সহজে বিনিয়োগ করতে পারে এবং যাতে তারা লাভবান হয় সেদিকে নজর দিতে হবে।

 

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT