উপ সম্পাদকীয়

সিলেটে অবাধে চলছে বনজ সম্পদের বিনাশ

প্রকাশিত হয়েছে: ১৪-০৫-২০১৯ ইং ০২:৩৯:৫৮ | সংবাদটি ৩২ বার পঠিত


সিলেটে অতীতে যেসব ফল গাছে গাছে শোভা পেত তার সিংহভাগই বিলুপ্ত হয়ে গেছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে টেংপইর গ্রামাইর, কাউ, গোলাইল, কেন্দু, মাঠাং, টেকাটুকি, ডেফল, পিঠাখাওরা, খইপুড়া, বন বরই উল্লেখযোগ্য। নতুন প্রজন্ম এগুলোর দেখা তো দূরের কথা, নামও শুনেছে কিনা সন্দেহ। দীর্ঘদিন থেকে এবং সিলেট শহর ও শহরতলীর বিভিন্ন এলাকা থেকে অবাধে গাছ কেটে পরিবেশ ধ্বংস করা হচ্ছে। আশ্চর্যজনক হলেও এটা সত্য যে মানুষ বেঁচে থাকার জন্য প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে উদ্ভিদের উপর নির্ভরশীল। আমাদের চারপাশে বিভিন্ন রকমের গাছ রয়েছে। যেগুলো থেকে আমরা বেঁচে থাকার রসদ পাই। মানুষ বৃক্ষরাজি গাছগাছালিকে সর্বদা গাছের ক্ষতি সাধন করলেই যেন তারা বেঁচে যান। দেশের মোট আয়তনের শতকরা পঁচিশ ভাগ বনাঞ্চল থাকা উচিৎ। আমাদের দেশে দশ শতাংশ বনাঞ্চল আছে কিনা সন্দেহ। যার কারণে এর বিরুপ প্রতিক্রিয়ায় অকাল বন্যা ও খরা ছাড়াও ঝড়ঝঞ্জা লেগেই আছে। আর এর খেসারত দিতে হচ্ছে এদেশের ভাগ্যাহত মানুষকে। কিন্তু দুর্ভাগ্য, আমাদের দুর্দশা দেখার কেউ নেই।
মোঃ বেলাল আহমদ
নূরানী, বনকলাপাড়া,
সুবিদবাজার, সিলেট।

শেয়ার করুন
উপ সম্পাদকীয় এর আরো সংবাদ
  • বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মজিদ
  • বাজারে ভেজাল : ভোক্তারা অসহায়
  • শিশু নির্যাতনের ভয়াবহতা
  • আমেরিকা-ইরান যুদ্ধ কি আসন্ন?
  • বাংলাদেশের স্বাস্থ্য বাজেট
  • পাকা ধানে আগুন নিভিয়ে দিতেই হবে
  • রমজানের সাধনা ও সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাংলাদেশ
  • আমাদের নজরুল
  • বালিশাচার
  • পরিবেশ রক্ষায় বৃক্ষ রোপণ
  • নিরাপদ পানির বিকল্প নেই
  • মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ফারুক আহমদ চেয়ারম্যান
  • আমাদের জীববৈচিত্র্য, খাদ্য ও স্বাস্থ্য
  • এবার বোরো ধানে চাল নেই
  • পারমাণবিক বর্জ্যের ক্ষতিকর প্রভাব
  • মায়েদের ভালো থাকা
  • দুধেও ক্ষতিকর রাসায়নিক!
  • ইরান-আমেরিকা সম্পর্ক : যুদ্ধ কি অনিবার্য
  • নগরীর দৃশ্যমান সমস্যা ও প্রতিকার প্রসঙ্গে
  • যুদ্ধে যেতে হবে ভেজালের বিরুদ্ধে
  • Developed by: Sparkle IT