প্রথম পাতা

রমযানুল মুবারক আস্-সালাম

শাহ নজরুল ইসলাম প্রকাশিত হয়েছে: ১৬-০৫-২০১৯ ইং ০২:২০:৪৪ | সংবাদটি ১৩৭ বার পঠিত



‘হে ঈমানদারগণ! তোমাদের জন্য রোযার বিধান দেয়া হলো, যেমন বিধান তোমাদের পূর্ববর্তীদের দেয়া হয়েছিল। যাতে তোমরা তাকওয়া অর্জন করতে পারো।’ (কুরআন মাজীদ, সূরা বাকারা ২/১৮৩)
আজ ১০ রমযান ১৪৪০ হিজরী, বৃহস্পতিবার। মুসলিম উম্মাহর নৈতিক চারিত্রিক ও আধ্যাতিœক মানোন্নয়নের মাস মাহে রমযানের রহমতের দশকের শেষ দিন। গতকালের ইত্তেফাকের লিড নিউজ ছিল ‘ধর্ষণের বিভিষিকায় দেশ’ বিশ্লেষকরা বলছেন, ‘মূল্যবোধের অবক্ষয়, আকাশ সংস্কৃতির বিরূপ প্রভাব, মাদকের বিস্তার, বিচারহীনতা ও বিচার প্রক্রিয়ার দীর্ঘসূত্রতায় ধর্ষণের ঘটনা বাড়ছে।’
আমাদের মনে রাখতে হবে যে মানুষ দুই জিনিসের সমন্বয়ে গঠিত। এর একটি হচ্ছে তার শরীর, অপরটি রূহ বা আত্মা। শরীর মাটি দিয়ে গঠিত। তার খাবারও মাটি থেকে উৎপাদিত। শরীরের খাবার আবার দুই প্রকার। এক. দৈনন্দিন খাবার যা তার শরীরের ক্ষয় পুরণ করে এবং পুষ্টি যুগায়। দুই. মওসুমী খাবার ফল-মূল ইত্যাদি, যা শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে। বিভিন্ন রোগ জীবাণুর বহিরাক্রমণ থেকে শরীরকে রক্ষা করে।
দুই. মানুষের শরীরে রূহ। রূহ এসেছে উর্ধ্বজগত থেকে। তারও খাবার আছে, আর তা হচ্ছে ইবাদত। রূহের খাবারও দুই প্রকার। ১. দৈনন্দিন ইবাদত, যেমন-নামায, তিলাওয়াত, যিকির, ইস্তগফার ইত্যাদি। এগুলো রূহের দৈনন্দিন ক্ষয় পুরণ করে, ২. মওসুমী ইবাদাত-যেমন-রোযা, কুরবানী, সাদকাতুল ফিতর, হজ্জ, যাকাত ইত্যাদি। এগুলো রূহের টিকে থাকার জন্য প্রতিরোধ শক্তি গড়ে তোলে। আবার যুদ্ধরত অবস্থায় প্রতিরোধ শক্তি সংহত করা যায় না। এক সাথে দুই কাজ হয় না। তাই যুদ্ধ বিগ্রহ না থাকলে এই সময়ে রাষ্ট্রগুলো প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে গড়ে তোলে।
মহান আল্লাহ রমযানুল মোবারকে মানুষের রূহকে এ সুযোগ করে দিয়েছেন। এমাসে তার শত্রু শয়তানকে বন্দি রাখা হয়। শয়তানকে কুরআন মাজীদে তিন নামে উল্লেখ করা হয়েছে। ১. শয়তান, ২. ইবলিশ, ৩. খান্নাস। সে মানুষের প্রকাশ্য শত্রু। তাকে রমযানে বন্দি রাখা হয়। ফলে রূহ তার প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে সংহত ও মজবুত করতে পারে। মানুষের অভ্যন্তরে তার আরেক শত্রু আছে। এর নাম নফস। ভেতর ও বাইরের শক্তি একযোগে কাজ করলে পতন অনিবার্য হয়ে পড়ে। এ অবস্থায় বাঁচার উপায় হচ্ছে শক্তিশালী প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। নফস ও শয়তানের খপ্পড় থেকে বাঁচার জন্য মহান আল্লাহ শক্তিশলী দুই প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা দিয়েছেন। ১. তাওবা ২. ইস্তেগফার।
সিয়াম সাধনার মধ্য দিয়ে মানুষের রূহ তার টিকে থাকার জন্য প্রতিরোধ শক্তি লাভ করে। সকল অনৈতিকতা থেকে বেঁচে থাকার প্রেরণা পায়। আমাদের প্রয়োজন যথাযথভাবে সিয়াম সাধনা করা।
হযরত আবূ হুরায়রা রা. থেকে বর্ণিত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, ‘মানব সন্তানের প্রত্যেক নেক আমলের প্রতিদানকে দশ গুণ থেকে সাতশ গুণ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়। মহান আল্লাহ বলেন, রোযা ব্যতীত। কেননা রোযা আমারই জন্য এবং আমিই এর প্রতিফল দান করবো। সে আমারই জন্য নিজ প্রবৃত্তি ও খানাপিনা ত্যাগ করে। রোযাদারের জন্য দুটি আনন্দ রয়েছে। একটি তার ইফতারের সময় এবং অপরটি বেহেশতে নিজ প্রভুর সাথে সাক্ষাৎ লাভের সময়। নিশ্চয় রোযাদারের মুখের গন্ধ আল্লাহর নিকট মেশকের খুশবু অপেক্ষাও অধিক সুগন্ধময়। রোযা মানুষের জন্য ঢালস্বরূপ। সুতরাং যখন তোমাদের কারো রোযার দিন আসে সে যেন অশ্লীল কথা না বলে এবং অনর্থক শোরগোল না করে। যদি কেউ তাকে গালি দেয় অথবা তার সাথে ঝগড়া করতে চায় সে যেন বলে আমি একজন রোযাদার।’ (সহীহ বুখারী ও মুসলিম শরীফ)
আগামী রমযানে আবার আমরা রহমত ও মহান আল্লাহর দয়ার দশক পাব কিনা জানিনা। বিগত দিনগুলিতে কতটা দয়াময় আল্লাহর দয়ার ভাগিদার হতে পেরেছি তা আল্লাহ-ই ভালো জানেন। দুনিয়া জুড়ে অশান্তি মানুষের পিছু ছাড়ছে না। মুসলিম বিশ্বে^র আফগানিস্তান, সিরিয়া, ইরাক, ফিলিস্তিন, লিবিয়া, ইয়ামেন ও সুদান জ্বলছে। আরাকানের মুসলমানরা নির্মূল অভিযানের শিকারে পরিণত হয়েছে। মিশর কাশ্মীর, আসাম, চীনের মুসলমানরা শান্তিতে নেই। ইউরোপের সীমান্তে ভাগ্য বিড়ম্বিত মুসলমানদের রোনাজারী থামছে না। রহমতের আজকের এই শেষ দিনে মহান আল্লাহর কাছে র্প্রাথনা করি প্রভু হে! আপনি দুনিয়াবাসীর প্রতি দয়া করুন। আমাদের সকলকে হিদায়ত দান করুন। আপনার সন্তুুষ্টির পথে আমাদের চলার তাওফীক দিন। মানবজাতির জন্য শান্তি নসীব করুন। বিশেষত মজলুম উম্মাহর শান্তি, মুক্তি ও স্বাধীনতা নিশ্চিত করে দিন। বিশ্ব মুসলিমকে যোগ্য নেতৃৃত্ব দান করুন।
প্রিয় পাঠক! আমরা কয়জনই বা এ মহিমান্বিত মাসের হক আদায় করে সিয়াম পালন করছি। নিজেকে নিজেই প্রশ্ন করা দরকার। রমযানুল মুবারক হচ্ছে ইবাদত, তিলাওত যিকির পবিত্রতা অর্জন ও স্র্ষ্টার নৈকট্য লাভের এক সর্বজনীন বিশ্ব মৌসুম। আত্মিক উন্নয়ন উৎকর্ষ সাধন ও পরকালীন কল্যাণ লাভের এক মহা রাজকীয় উৎসব। পূর্ব-পশ্চিম ও উত্তর-দক্ষিণের সকল মুসলমান সমভাবে এ উৎসবের অংশিদার। শিক্ষিত-অশিক্ষিত, প-িত-মুর্খ, রাজা-প্রজা, ধনী-গরীব সকলেই ইহ-পরকালীন কল্যাণ অর্জনের এ প্রতিযোগিতায় সমান উৎসাহী। ইসলামী দুনিয়ার এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্ত পর্যন্ত অভিন্ন নিয়মে পালিত হচ্ছে সিয়াম সাধনা। মানব জীবনে যার প্রভাব সুদূর প্রসারী।
সিয়াম সাধনার এ সৌর্ন্দয ও রূপ শাহ ওয়ালিউল্লাহ মুহাদ্দিসে দেহলভী রহ. তাঁর অন্তর্চক্ষু দ্বারা যথার্থই উপলব্ধি করতে পেরেছিলেন। ‘রমজানুল মুবারকের সাথে সাথেই খোলে দেয়া হয় জান্নাতের সকল দরজা।’ এ হাদীসের ব্যাখ্যা প্রসঙ্গে তিনি লিখেছেন, ‘সিয়াম যেহেতু একটি সার্বজনীন ইবাদত, যেহেতু রুসুম ও বিদ’আতের সকল মলিনতা থেকে তা মুক্ত, সকল শ্রেণি ও পেশার মানুষ যখন সিয়াম সাধনায় ব্রত হয় তখন তাদের জন্য শয়তানকে বন্দি করে রাখা হয়। জান্নাতের সকল দরজা খোলে দেয়া হয় এবং জাহান্নামের দরজা বন্ধ করে দেয়া হয়।’
তিনি আরো লিখেছেন, ‘মুসলমানদের সকল পর্যয়ের মানুষ যেহেতু একই সাথে একই নিয়মে সিয়াম পালন করে সেহেতু এ কঠিন ইবাদতও তাদের জন্য সহজসাধ্য হয়ে যায়। এ সকল অবস্থার কারণে সকলেই ব্যাপক ভাবে অনুপ্রাণীত হয়।’ (হুজ্জাতুল্লাহিল বালিগাহ্)
এমনিভাবে এই ঐক্যবদ্ধ ইবাদত বিশিষ্ট ও সাধারণ সকলের জন্য কল্যাণ ও বরকত বয়ে আনে। মহান আল্লাহর প্রিয় বান্দাদের প্রতি যে নূর বা জ্যোতি বর্ষিত হয় এবং আল্লাহর যে অসংখ্য নিয়ামত তারা লাভ করেন সাধারণ লোকেরাও তা থেকে বঞ্চিত হয় না। কারণ আল্লাহর দয়া সকল মানুষের জন্য অবারিত।
মহান মালিকের অফুরন্ত করুণা দয়া মায়া আর ভালবাসায় আমরা যেন সকলেই স্নাত হই, সিক্ত হই, সতেজ ও সবল হয়ে উঠি ঈমান আমল আখলাক ও ইহসানের গুণে সে তাওফীক চাই মালিকের দরবারে। তিনি আমাদের নিজ গুণে ক্ষমা করুন, তাঁর রহমতের ছায়ায় আশ্রয় দিন, এই মুনাজাত।

 

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • হবিগঞ্জে ট্রিপল মার্ডার মামলায় ৪ জনের যাবজ্জীবন
  • সব অনিয়মে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সংশ্লিষ্টতা রয়েছে: টিআইবি
  • টমটম গাড়ির জন্য জগন্নাথপুরের কিশোর চালককে রশিদপুরে নিয়ে খুন
  • পররাষ্ট্র মন্ত্রী একে মোমেন সিলেট আসছেন আজ
  • দক্ষিণ সুনামগঞ্জের কালনী নদী থেকে ভাসমান লাশ উদ্ধার
  • মাধবপুরে ট্রাকের ধাক্কায় ২ মোটর সাইকেল আরোহী নিহত
  • ফিরতে রাজি হয়নি কেউ, শুরু হয়নি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন
  •     রোহিঙ্গাদের অনাগ্রহ দুঃখজনক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  •   সড়ক দুর্ঘটনা রোধে শিগগিরই টাস্কফোর্স গঠন করা হবে
  • বিমান বহরে তৃতীয় ড্রিমলাইনার গাংচিল উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
  • গ্রন্থটি সমাজ বিনির্মাণের হাতিয়ার হিসেবে কাজ করবে
  • কদমতলীতে এডিস মশার লার্ভা ও পূর্ণাঙ্গ মশার অস্তিত্ব সন্ধান দুটি প্রতিষ্ঠানকে অর্থদন্ড
  • দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূলে নিরলসভাবে কাজ করছে কমিশন : দুদক চেয়ারম্যান
  • ২৮ আগস্টের মধ্যে শাপলা ফিলিং স্টেশনে ডাকাতির টাকা উদ্ধার না হলে কঠোর কর্মসূচি
  • সংসদ অধিবেশন বসবে ৮ সেপ্টেম্বর
  • ২১ আগস্টের হামলায় আ. লীগ জড়িত কি না : প্রশ্ন রিজভীর
  • বাহুবলে দিনে দুপুরে চা শ্রমিকদের ভাতার ১২ লাখ টাকা ছিনতাই
  • কুলাউড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় ইউরো ফার্মা’র এরিয়া ম্যানেজার নিহত
  • প্রধানমন্ত্রী বিমানের ‘গাংচিল’ উদ্বোধন করবেন আজ
  • সিলেটে আরো কমেছে ডেঙ্গু রোগী
  • Developed by: Sparkle IT