শেষের পাতা জৈন্তাপুরে নয়াগাং নদীর ভাঙ্গন

বিলীন হওয়ার পথে রাস্তা বসতভিটাসহ বিস্তীর্ণ ফসলী জমি

জৈন্তাপুর (সিলেট) থেকে নূরুল ইসলাম প্রকাশিত হয়েছে: ১৩-০৬-২০১৯ ইং ০১:৫৫:০৪ | সংবাদটি ২২৩ বার পঠিত

জৈন্তাপুর উপজেলার ফেরীঘাট নয়াগাং নদীর ভাঙ্গনে বিলীন হওয়ার পথে জৈন্তাপুর ইউনিয়নের বাউরভাগ-কাটাখাল গ্রামীণ রাস্তা, পার্শ্ববর্তী গ্রামের মানুষের বসতবাড়িসহ বিস্তীর্ণ ফসলী জমি।
সাম্প্রতিক সময়ে ভারতের উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে নদীর পানির প্রবল স্্েরাতের কারণে এ সব এলাকায় নদী তীরবর্তী অনেকের বসতবাড়ি ও ফসলী জমি নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। ফেরীঘাট হয়ে ওয়াপদা বাঁধের বাইরে বাউরভাগ-কাটাখাল, মল্লিফৌদ কান্দি, লামনীগ্রাম-চারিপাড়াসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় নয়াগাং নদীর ব্যাপক ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। ইতোমধ্যে বাউরভাগ-কাটাখাল অংশে নদীর তীর সংলগ্ন ইউনিয়ন পরিষদের গ্রামীণ রাস্তা নদীা ভাঙনে বিলীন হওয়ার পথে। স্থানীয় লোকজন বসতবাড়ি ও রাস্তা রক্ষায় এগিয়ে আসতে প্রশাসনের প্রতি দাবী জানিয়েছেন। সম্প্রতি এলাকার লোকজন যাতায়াতের জন্য নিজ উদ্যোগে রাস্তা সংস্কার ও রক্ষায় বিভিন্নভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।
বাউরভাগ উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন বাজার থেকে ওয়াবদা বেড়িবাঁধের বাইরের অংশে মল্লিফৌদ হয়ে নদীর পশ্চিম-উত্তর-পূর্ব পাড়ের বাউরভাগ-কাটাখাল গ্রামীণ রাস্তার অন্তত: ৫ কিলোমিটারের মধ্যে বিভিন্ন স্থানে বড় বড় ভাঙ্গন সৃষ্টি হয়েছে। অন্তত: ২ কিলোমিটার রাস্তা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। নদীর উভয় অংশে অন্তত: ২ হাজার মানুষের বসতবাড়ি ও ধানের ফসলী জমি রয়েছে। অনেকেই নদী ভাঙ্গনের ভয়ে বসতভিটা ছেড়ে পরিবার পরিজন নিয়ে অন্যস্থানে চলে যাচ্ছেন। নদী ভাঙ্গনের হাত থেকে গ্রামের মানুষকে রক্ষা করতে পানি উন্নয়ন বোর্ড স্থায়ী ভাবে নদীর তীরবর্তী ব্লক স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করা প্রয়োজন বলে সংশ্লিষ্টরা মনে করেন।
জানা যায়, এ সব গ্রামে অন্তত: ৪ হাজারের মত বাসিন্দা বসবাস করেন। স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসায় অধ্যয়নরত অনেক ছাত্র-ছাত্রী রয়েছেন। প্রতিদিন শত শত মানুষ বাউরভাগ-কাটাখাল গ্রামীণ রাস্তা দিয়ে চলাচল করেন। তবে, বর্ষার মৌসুমে বেশির ভাগ মানুষকে নৌকা দিয়ে যাতায়াত করতে হয়।
স্থানীয় এলাকার বাসিন্দা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও সমাজসেবী আলহাজ্ব ফরিদ উদ্দিন আহমদ বলেন, জৈন্তাপুর ইউনিয়নের বাসিন্দা বর্তমান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপির নিজের ইউনিয়ন হওয়ায় এলাকাবাসী আশা করেন নদী ভাঙ্গনের হাত থেকে তাদের বসতবাড়ি ও ফসলী জমি রক্ষায় মন্ত্রী এগিয়ে আসবেন। স্থায়ীভাবে সমাধানের ব্যবস্থা করতে তিনি প্রয়োজনীয় প্রকল্প গ্রহণ করবেন।
স্থানীয় বাসিন্দা কিবরিয়া মাহমুদ শিমুল জানান, নদী ভাঙ্গনের কবলে পড়ে ইতোমধ্যে আমাদের বাড়ির একাংশ নদীতে তলিয়ে যাওয়ার পথে। আবারও বড় রকমের বন্যা হলে আমাদের পুরো বসতভিটা নদীর পানিতে ভাসিয়ে নিয়ে যাবে। ফলে আমরা পরিবার পরিজন নিয়ে অনেকটা উদ্বেগ ও আতংকের মধ্যে বসবাস করছি।
জৈন্তাপুর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমান জানান, বাউরভাগ-কাটাখাল গ্রামীণ রাস্তা অনেক পুরাতন । বিভিন্ন সময়ে রাস্তায় মাটি ভরাটসহ সংস্কার কাজ করা হয়েছে। কিন্তু প্রতিনিয়ত নয়াগাং নদীর ভাঙ্গনের ফলে রাস্তা রক্ষা করা সম্ভব হচ্ছে না। ইতোমধ্যে এ সব এলাকায় অনেক জায়গা নদী ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে গেছে।
তিনি বলেন, মানুষের বসতবাড়ি ও ফসলী জমি রক্ষায় সরকার স্থায়ী ভাবে উদ্যোগ গ্রহণ না করলে এক সময় বাউরভাগ-কাটাখালসহ পার্শ্ববর্তী গ্রামের বহুলোকের বসতভিটা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যাবে।
তিনি পানি উন্নয়ন মন্ত্রণালয়সহ জৈন্তাপুর ইউনিয়নের সন্তান প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ এমপির সু-দৃষ্টি কামনা করেন।
বাউরভাগ গ্রামের বাসিন্দা, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এম লিয়াকত আলী জানান, নয়াগাং নদীর ভাঙ্গনে এই এলাকায় ভয়াবহ অবস্থা দেখা দিয়েছে। এখানে বসবাসরত জনগণের জীবন নদী ভাঙ্গনের ফলে অনেকটা হুমকির মুখে রয়েছে। নদী ভাঙ্গনের হাত থেকে এই জনপদ রক্ষায় প্রশাসন এবং পানি উন্নয়ন মন্ত্রণালয়কে এগিয়ে আসা প্রয়োজন।
কাটাখাল গ্রামের বাসিন্দা সমাজসেবী আব্দুস শুকুর বলেন, প্রতিবছর নয়াগাং নদীর ভাঙ্গনের ফলে আমাদের শত শত একর ফসলী জমি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। নদী ভাঙ্গন অব্যাহত থাকলে এক সময়ে আমাদের বসতভিটা ছেড়ে অন্য জায়গায় চলে যেতে হবে।
তিনি নদী ভাঙ্গন রোধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা করতে সরকারের নিকট দাবী জানান।

 

শেয়ার করুন
শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • ছবি
  • ছবি
  • সুনামগঞ্জে ভ্যানচালক হত্যা মামলায় একজনের মৃত্যুদন্ড
  • ছাত্রলীগের হামলা রাজনীতির জন্য অশনিসংকেত -----------মির্জা ফখরুল
  • সিউলে আন্তর্জাতিক সম্মেলনে সিসিক মেয়রসহ পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দলের যোগদান
  • ঢাবিতে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ১৫
  • হবিগঞ্জে সাংবাদিক জুনাইদ হত্যা মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন
  • ইসিতে শুদ্ধি অভিযান, সন্দেহের তালিকায় ১৫ জন : এনআইডি ডিজি
  • দুর্নীতিবাজদের সাথে কোনো আপস হবে না : কাদের
  • বিশ্বায়নের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় লিডিং ইউনিভার্সিটির ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের সেমিনার
  • ছাতকে যুবলীগ নেতাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি পরিবারের
  • শ্রীমঙ্গলে ‘সর্পভাস্কর্য’
  • জগন্নাথপুরে ১০ টন ওজনের মালামাল পরিবহনে নিষেধাজ্ঞা
  • জুড়ী থেকে নিখোঁজ স্কুলছাত্র গোলাপগঞ্জে উদ্ধার
  • মুনির-তপন-জুয়েল স্মরণে জাসদের কর্মসূচি
  • বালাগঞ্জে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেলো শিক্ষার্থী
  • জামালগঞ্জে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে স্বামীর মৃত্যু শোকে স্ত্রীর আত্মহনন
  • সুনামগঞ্জে মুদি ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন
  • সিসিকের ভারপ্রাপ্ত মেয়র হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করলেন লিপন বক্স
  • কমলগঞ্জে দুই সিএনজি মুখোমুখি সংঘর্ষে শিশু নিহত ঃ আহত-৫
  • Developed by: Sparkle IT