সম্পাদকীয় সে ব্যক্তির দানই সর্বোত্তম, যে স্বল্পবিত্ত ও আপন শ্রমে বিত্ত অর্জন করে এবং তা থেকেই সাধ্যমতো দান করে।-আল হাদিস

মরুকরণ প্রতিরোধ দিবস

প্রকাশিত হয়েছে: ১৭-০৬-২০১৯ ইং ০০:৫৭:৩৭ | সংবাদটি ১৪২ বার পঠিত

আজ বিশ্ব মরুকরণ প্রতিরোধ দিবস। মরুকরণ প্রতিরোধে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে বিশ্বের অন্যান্য স্থানের মতো বাংলাদেশেও আজ দিবসটি পালিত হচ্ছে। বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তন হচ্ছে। বাড়ছে তাপমাত্রা। কমছে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ। বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য হচ্ছে, বিশ্বের সার্বিক জলবায়ু পরিস্থিতির আলোকে বিশ্ব মরুকরণের দিকেই এগোচ্ছে। বাংলাদেশও এর বাইরে নয়। বরং এই প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের মতো দুর্যোগপ্রবণ দেশের অবস্থা আরও করুণ। যে কারণে বাংলাদেশে বিশ্ব মরুকরণ দিবস পালনের গুরুত্ব অপরিসীম।
জলবায়ু পরিবর্তন বর্তমান বিশ্বে একটা আলোচিত বিষয়। জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে সম্পৃক্ত আরেকটি বিষয় হচ্ছে প্রাকৃতিক দুর্যোগ। মানে জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে বেড়ে যাচ্ছে প্রাকৃতিক দুর্যোগের আশঙ্কা। বিজ্ঞানীরা বলছেন, বিশ্ব উষ্ণায়নের যতোগুলো বৈরী প্রভাব প্রতিক্রিয়া স্পষ্ট হয়ে ওঠেছে তা আরও বাড়বে দ্রুততর গতিতে। তা মোকাবেলা করা আমাদের পক্ষে এক সময় অসম্ভব হয়ে পড়বে। বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সমুদ্রের উচ্চতা বেড়ে যাবে কমপক্ষে ২০ ফুট। যে কারণে সমুদ্রগর্ভে তলিয়ে যাবে বিস্তীর্ণ জনপদ। অপরদিকে তাপমাত্রা বৃদ্ধির সাথে সাথে কমছে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ। বিশ্বের বৃহৎ বনাঞ্চলের বৃক্ষরাজি ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। যা মরুকরণেরই পূর্বাভাস দিচ্ছে। পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে বিশ্ববাসী কতোটুকু প্রস্তুতি নিয়েছে, অথবা আমাদের মতো তৃতীয় বিশ্বের একটা উন্নয়নশীল দেশের পক্ষে এই মরুকরণ প্রক্রিয়া মোকাবেলা করার কতোটুকু সামর্থ্য আছে, এইসব বিষয়ে ভাবতে হবে। বৈশ্বিক জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব পড়েছে আমাদের দেশেও। কমছে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ। বিল, ডোবা, জলাশয় শুকিয়ে যাচ্ছে, ভরাট হচ্ছে। মরে যাচ্ছে নদ-নদী। খর¯্রােতা অনেক নদীই বিলীন হওয়ার পথে। হাওর-বাওরের পানি কমে যাচ্ছে। নৌপথের পরিমাণ কমছে। হাওর-বাওর, নদীতে মৎস্য উৎপাদন কমে যাচ্ছে। ভরা বর্ষা মওসুমেও বৃষ্টিহীন থেকে যাচ্ছে দিনের পর দিন। ফসলের মাঠ ফেটে চৌচির। সেই সঙ্গে ভূ-গর্ভস্থ পানির স্তর নেমে যাচ্ছে নিচে। পানি উঠছে না দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের নলকূপে। যে কারণে বিশুদ্ধ পানির তীব্র অভাব দেখা দিয়েছে। ভূগর্ভের পানির রিজার্ভও কমছে দিন দিন। ভূপৃষ্ঠের পানির উৎস হ্রাস পাচ্ছে। স্বাধীনতার পর এ পর্যন্ত দেশের জলাভূমি কমেছে ৭০ ভাগ। এই সময়ে সারা দেশে নৌপথ হারিয়ে গেছে কমপক্ষে আট হাজার কিলোমিটারের বেশি।
প্রতিবেশী দেশ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে মরুকরণ পরিস্থিতি দিন দিন প্রকট হচ্ছে। দেখা দিয়েছে তীব্র পানি সংকট। বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চলসহ বিভিন্ন এলাকায়ও এমন পরিস্থিতির মুখোমুখি লাখ লাখ মানুষ। তাই মরুকরণ প্রতিরোধে সচেতন হতে হবে আমাদের। এর জন্য সবচেয়ে জরুরি হচ্ছে পরিবেশ বিপর্যয় ঠেকানো। বনাঞ্চল সংরক্ষণের মাধ্যমে বৃক্ষ সম্পদ বাড়াতে হবে; রক্ষা করতে হবে পরিবেশের ভারসাম্য। দেশের আয়তনের সর্বোচ্চ দশ শতাংশ জমিতে রয়েছে বনাঞ্চল। এটাকে ২৫ শতাংশে উন্নীত করতে হবে। যথেচ্ছভাবে ভূগর্ভের পানি উত্তোলন করা যাবে না। এই ব্যাপারে আইন করতে হবে। অর্থাৎ সময়োপযোগী পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে মরুকরণ প্রতিরোধ করা সম্ভব।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT