সম্পাদকীয়

আলোচনা বাজেট নিয়ে

প্রকাশিত হয়েছে: ১৮-০৬-২০১৯ ইং ০১:০৩:০৯ | সংবাদটি ১০৮ বার পঠিত


চারদিকে আলোচনা সমালোচনার ঝড়। বুদ্ধিজীবী অর্থনীতিবিদ কিংবা মিডিয়া ব্যক্তিত্ব সবাই এ নিয়ে মন্তব্য করছেন। রাজনৈতিক ব্যক্তিরা বলছেন এর পক্ষে বিপক্ষে। আর যা নিয়ে এতো আলোচনা, সেটা হলো বাজেট। ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের জন্য ঘোষিত জাতীয় বাজেট নিয়ে অনেকে বলছেন এটা জনকল্যাণমূলক বাজেট আর অনেকে বলছেন এই বাজেট গরীব মারার বাজেট; এই বাজেটে ধনীরা বেশি সুবিধা পাবে। মোটামুটি প্রতি বছর জুন মাস এলেই শুরু হয় এই ঘটনা। বাজেট ঘোষণার পর এর পক্ষে বিপক্ষে আলোচনা হবে এটা যেমন সত্য, তেমনি বাজেট ঘোষণার পর নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন ধরনের পণ্যের দাম বাড়বে- এটাও সত্য। এবারও এর ব্যতিক্রম হয়নি। ইতোমধ্যেই বাজারে বেশ কিছু পণ্যের দাম বেড়ে গেছে। তবে সরকার সংশ্লিষ্টরা বলছেন বাজেটকে কেন্দ্র করে পণ্য মূল্য বৃদ্ধির কোন সুযোগ নেই। তার পরেও পণ্যমূল্য বাড়বে- এটাই স্বাভাবিক।
তবে এই কথাটি না বললেই নয় যে, বাজেটকে কেন্দ্র করে অতীতে বাজার যেভাবে অস্থির হয়ে উঠতো, ইদানিং তেমনটি হচ্ছে না। অতীতে সংসদে বাজেট ঘোষণার পূর্ব থেকেই বাজারে পণ্যমূল্য বেড়ে যেতো। তখন রীতিমতো একটা আতংকের নাম ছিলো বাজেট। তবে প্রতি বছরই বাজেট নিয়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে থাকেন এদেশের বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগ (সিপিডি) বলেছে- এবারের বাজেটে ধনীরা বেশি সুবিধা পাবেন, ক্ষতিগ্রস্ত হবে মধ্যবিত্ত শ্রেণি। তাদের মতে ব্যাংক ও শেয়ার বাজারসহ বিভিন্ন খাতে যারা সুবিধা ভোগ করছেন, মূলত এদের পক্ষেই যাচ্ছে এবারের বাজেট। ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ বলেছে, বাজেটে কালো টাকা, সাদা করার সুযোগ দিয়ে পক্ষান্তরে দুর্নীতির একচ্ছত্র আধিপত্য প্রতিষ্ঠা করারই সুযোগ দেয়া হয়েছে। তারা সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতা বাড়ানো সহ কয়েকটি উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছে। অপরদিকে ব্যবসায়িক সংগঠনগুলো বাজেটকে স্বাগত জানিয়ে বলেছে, ব্যবসা সহজীকরণ ও বিনিয়োগ বান্ধব বাজেট। আর সরকারি দল ছাড়া অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলো তো যথারীতি বাজেটের কঠোর সমালোচনা করে চলেছে।
প্রতি বছর জুন মাসে রুটিন মাফিক পরবর্তী অর্থ বছরের বাজেট ঘোষণা করা হয়। সেই অনুযায়ী উন্নয়ন কার্যক্রমসহ সরকারের সব ধরনের কর্মযজ্ঞ পরিচালিত হয়। তবে বাজেটে ‘জনস্বার্থ’ নামক একটা বিষয় সম্পৃক্ত রয়েছে। অর্থাৎ সুপরিকল্পিত বাজেট ঘোষণা করলে কিংবা জনস্বার্থের কথা চিন্তা করে বাজেট তৈরি করলে, তার সমালোচনা হবে না। এবারের বাজেটে যেমন প্রশংসনীয় কিছু উদ্যোগ রয়েছে, তেমনি রয়েছে কিছু জনস্বার্থ বিরোধী সিদ্ধান্তও। তবে আমরা চাই সব সমালোচনার উর্ধ্বে ওঠে বাজেট যাতে সাধারণ মানুষের পক্ষেই থাকে, সেভাবেই প্রয়োজনীয় সংশোধনী আনা হবে।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT