শেষের পাতা মাছ ধরা নিয়ে হামলায় যুবক মৃত্যুপথযাত্রী

মুক্তিপনের জন্য লাখাই’র শিশু বরিশালে খুন : মামা আটক

প্রকাশিত হয়েছে: ১৮-০৬-২০১৯ ইং ০২:৩০:২২ | সংবাদটি ৯৬ বার পঠিত

হবিগঞ্জ জেলা প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলায় সিয়াম আহমেদ নামে ৯ বছরের এক শিশুকে অপহরণের পর মুক্তিপণ না পেয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহত শিশুর মামা সাফায়াত হোসেনকে (২২) আটক করেছে পুলিশ। নিহত সিয়াম উপজেলার জিরুন্ডা গ্রামের হাফেজ নূর উদ্দিনের পুত্র। গত শনিবার বরিশাল জেলার হিজলা উপজেলার চর আবুপুর গ্রামের দুর্গম চর থেকে নিহত সিয়ামের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে ডিবি পুলিশ। পরে ময়নাতদন্ত শেষে তার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হলে গত রোববার গ্রামের বাড়ি জিরুন্ডায় সিয়ামের মরদেহ কবর দেয়া হয়।
পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, সিয়ামের বাবা নরসিংদী জেলার শিবপুর উপজেলার করারচর বেসিক শিল্পনগরী এলাকায় হোটেল এন্ড রেস্টুরেন্টের ব্যবসা করেন। ব্যবসার সুবাদে তারা সপরিবারে সেখানেই থাকেন। সিয়াম সেখানকার একটি কিন্ডার গার্টেনে তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ে। গত ২ জুন সিয়াম বাড়ির বাইরে গেলে তার চাচাতো মামা সাফায়াত হোসেন তাকে অপহরণ করে। এ ঘটনায় সিয়ামের বাবা শিবপুর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। এরপর নরসিংদী জেলার গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) বিভিন্ন স্থানে সিয়ামকে খুঁজতে থাকে। এক পর্যায়ে পুলিশ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে সন্দেহজনক হিসেবে গত ১৩ জুন ঢাকার সায়েদাবাদ থেকে সাফায়াতকে আটক করে। সাফায়াত ব্রাক্ষণবাড়িয়া জেলার নাসিরনগর উপজেলার মাছমা গ্রামের হাবীব মিয়ার পুত্র।
পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে সাফায়াত জানায়, মুক্তিপণের জন্যই মূলত সে ও তার কয়েকজন সহযোগী সিয়ামকে অপহরণ করে। সাফায়াত কন্ঠ পরিবর্তন করে নিহত সিয়ামের মায়ের কাছে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। কিন্তু সিয়ামের পরিবার তা দিতে অনীহা প্রকাশ করে। পরদিন আবার ৩০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করলে তা বিকাশের মাধ্যমে দিয়ে দেন নিহত সিয়ামের পরিবার। কিন্তু পরিচয় জেনে যাওয়ার ভয়ে সিয়ামকে নিয়ে ঢাকার সদরঘাট থেকে লঞ্চে বরিশালে চলে যায় সাফায়াত। পরে তাকে বরিশাল জেলার হিজলা উপজেলার চর আবুপুর গ্রামের দুর্গম চরে নিয়ে হত্যা করে মরদেহ ফেলে রেখে চলে আসে। পরে তার দেয়া তথ্যমতে গত শনিবার নিহত সিয়ামের অর্ধগলিত লাশ উদ্ধার করে ডিবি পুলিশ।
লাখাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এমরান হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, শিশু সিয়াম হত্যার ঘটনায় তার চাচাতো মামা সাফায়াতকে আটক করা হয়েছে। ইতিমধ্যে সিয়ামের মরদেহ দাফন করা হয়েছে।
অপরদিকে, একই উপজেলার শিবপুর গ্রামের দুলাল মিয়া এবং আনোয়ার হোসেন স্থানীয় হাওরে মাছ ধরতে গিয়ে বিরোধে জড়ায়। এক পর্যায়ে আনোয়ার টেটা (দেশীয় প্রাণ নাশক অস্ত্র) দিয়ে দুলালের বুকে আঘাত করে। তাকে আশংকাজনক অবস্থায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় আনোয়ার হোসেনকে আটকে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হচ্ছে। আহত দুলালের অবস্থা আশংকাজনক বলে পুলিশ জানিয়েছে।

শেয়ার করুন
শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  •  সিকৃবিতে সাসটেইনেবল ফিসারিজ শীর্ষক আন্তর্জাতিক সম্মেলন ২৫ আগস্ট থেকে
  • সারাদেশে বজ্রপাত ও বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে ১১ জনের মৃত্যু
  •     মৌলভীবাজার-শমশেরনগর ও কমলগঞ্জ সড়কের বেহাল দশা, যান চলাচল ঝুঁকিপূর্ণ
  • ফেঞ্চুগঞ্জে দুটি স’মিলকে জরিমানা
  • আদালত থেকে ডিএনএ টেস্টের নির্দেশ দোয়ারাবাজারে সন্তান জন্মের ৫ বছর পর পিতৃপরিচয় নিয়ে তুলকালাম
  •     শ্রীমঙ্গলে সড়কের বেহাল দশা চলছে ‘দায়সারা’ সংস্কার
  • শাবিতে শোক দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা
  • বাজারে নিয়ন্ত্রণ নেই ব্যবসায়ীদের কাঁচা চামড়া রপ্তানীর দাবি
  • ওসমানী মেডিকেলে অবসরপ্রাপ্ত
  • ছবি
  • ভগবান শ্রীকৃষ্ণের জন্মাষ্টমী আজ
  • মাউন্ট এডোরা হাসপাতালের সাথে শাবি’র স্বাস্থ্যসেবা চুক্তি স্বাক্ষরিত
  • একাধিক মামলার পলাতক আসামী জাকির গ্রেফতার জেলহাজতে প্রেরণ
  • বিশ্বনাথে ৪ প্রতিষ্ঠানকে ১৩ হাজার টাকা জরিমানা
  • আবদুস সবুর মাখন এর গল্প গ্রন্থ ‘হিমশীতল স্পর্শ’র প্রকাশনা আজ
  • মৌলভীবাজারে ৫ হাজার হেক্টর জমিতে বাড়তি আমন চাষাবাদের সম্ভাবনা
  • জাহালমকা- : ১১ জনের বিরুদ্ধে মামলার কথা হাইকোর্টে জানাল দুদক
  • ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা কমছে না
  • কাজিরবাজার থেকে শিলং তীর নামক জুয়া খেলার দায়ে ৫ জন আটক
  • রায়নগর থেকে বিদেশি সিগারেটের চালানসহ এক ব্যক্তি আটক
  • Developed by: Sparkle IT