প্রথম পাতা পৃথক দুটি তদন্ত কমিটি গঠন

চারটি কারণ চিহ্নিত

মোহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম, কুলাউড়া থেকে ফিরে প্রকাশিত হয়েছে: ২৫-০৬-২০১৯ ইং ০৩:১১:০০ | সংবাদটি ২১০ বার পঠিত

সিলেট থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া আন্ত:নগর ‘উপবন এক্সপ্রেস’ দুর্ঘটনা তদন্তে রেলওয়ের পক্ষ থেকে দুটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। রেলওয়ের চিফ মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার (পূর্বাঞ্চল) মিজানুর রহমানকে প্রধান করে গঠন করা চার সদস্যের তদন্ত কমিটিতে তিন কার্যদিবসের মধ্যে রিপোর্ট দাখিল করতে বলা হয়েছে বলে রেল সচিব মো: মোফাজ্জেল হোসেন জানিয়েছেন। এছাড়া, ঢাকা বিভাগের বিভাগীয় পরিবহন কর্মকর্তা মাঈনুল ইসলামকে প্রধান করে চার সদস্যের অপর একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে।
চারটি কারণ চিহ্নিত ॥ মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ট্রেন দুর্ঘটনার জন্য চারটি কারণকে চিহ্নিত করে তদন্ত কার্যক্রম চলছে। এর মধ্যে রয়েছে-লাইনের দুর্বলতা, চাকার কম্বিনেশন, দ্রুতগতিতে ট্রেন চালনা এবং ট্রেনে অতিরিক্ত যাত্রী বহন।
আলাপকালে রেলওয়ে মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: মোফাজ্জেল হোসেন জানান, লাইনের দুর্বলতা কিংবা চাকার কম্বিনেশনের কারণে ঘটতে পারে এ দুর্ঘটনা। তিনি জানান, একটি ট্রেনে সচরাচর ১২-১৪টি বগি থাকে। কিন্তু, দুর্ঘটনা কবলিত ট্রেনটিতে বগি লাগানো হয়েছিল ১৭টি। প্রতিটি বগিতে সিট ছিল ৬৫টি। এ হিসাবে ট্রেনটিতে প্রায় ১১০৫ জন যাত্রী ছিলেন। এর বাইরে আরো অনেক যাত্রী স্ট্যান্ডবাই (দাঁড়িয়ে) ছিলেন।
রেলওয়ে সচিব জানান, দুর্ঘটনা কবলিত ট্রেনের সর্বশেষ বগি বড়ছড়া ব্রিজের নিচে পড়ে যায়। পরে দুটি বগি উল্টে যায় এবং এর পরের দুটি বগি রেলে দাঁড়ানো অবস্থায় কাত হয়ে পড়ে।
সচিব জানান, তদন্তকারীরা দুর্ঘটনা কবলিত ট্রেন এবং ব্রিজের ছবি নিয়ে গেছে। তদন্ত কমিটি সার্বিক বিষয়াদি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে। তিনি জানান, দুর্ঘটনার কারণে প্রায় ৮শ’ গজ রেললাইন ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
রেলওয়ে কুলাউড়ার ঊর্ধ্বতন উপসহকারী প্রকৌশলী মো: জুয়েল আহমদ বলেন, বড়ছড়া ব্রিজটি অনেক দিন আগে নির্মিত হয়েছে। ট্রেন দুর্ঘটনা ব্রিজের কারণে নয়, লাইনে ত্রুটির কারণে ঘটতে পারে তার ধারণা। তিনি জানান, ট্রেনে অতিরিক্ত যাত্রী ছিল এবং স্প্রিংগুলো ছিল অনেক পুরাতন। দুর্ঘটনার পেছনে এটাও কারণ হতে পারে।
কুলাউড়ার ইউএনও মো: আবুল লাইছ ট্রেনটিতে অতিরিক্ত যাত্রী ছিল বলে এ প্রতিবেদককে জানান।
রেলসচিব জানান, দুর্ঘটনায় চার জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত দুই শতাধিক লোক বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন। দুর্ঘটনায় আহত ট্রেনের গার্ড মোঃ জাহিদকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। আহতদের মধ্যে কুলাউড়া হাসপাতালে ৬৮জন, মৌলভীবাজার হাসপাতালে ৭ জন, সিলেট ওসমানী হাসপাতালে ২৪ জন চিকিৎসা নেন। দুর্ঘটনার পর সিলেটের সঙ্গে সারাদেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়ে। তবে, গতকাল সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ৪৫ মিনিটে রেল যোগাযোগ স্বাভাবিক হয়।
বিশেষ ট্রেনে এলেন রেল সচিব-ডিজি ॥ দুর্ঘটনার খবর পেয়ে রেলসচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন, রেলওয়ের ডিজি কাজি রফিকুল ইসলামসহ রেলের পদস্থ কর্মকর্তারা রাতে ঢাকা থেকে বিশেষ ট্রেনে করে কুলাউড়ার উদ্দেশ্যে রওয়ানা হন। তারা ভোরে এসে ঘটনাস্থলে পৌঁছেন। সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন গতকাল সোমবার দুপুরে এ প্রতিবেদককে জানান, রবিবার রাতেই স্থানীয়দের নিয়ে প্রশাসন ও রেলের লোকজন উদ্ধার কাজ সম্পন্ন করেন। সচিব বলেন, আল্লাহর রহমতে খালে পানি কম থাকায় বড় ধরনের ক্ষয়-ক্ষতি থেকে অনেকটাই রক্ষা হয়েছে।
সরেজমিনে যা দেখা যায় ॥ রোববার বেলা ১টার দিকে সেখানে গিয়ে দেখা যায়, বড়ছড়া ব্রিজের উপর রেললাইন বাঁকা হয়ে আছে। একটি সিগন্যাল লাইট দুমড়ে-মুচড়ে গেছে। লাইনচ্যুত একটি বগি উঠানো হচ্ছে। অপর বগিগুলোরও উদ্ধার কার্যক্রম চলছে। এর আগে আখাউড়া থেকে রিলিফ ট্রেন আনা হয়। অন্যদিকে প্রায় ৮শ’ মিটার ক্ষতিগ্রস্ত রেললাইন ও কাঠের স্লিপার মেরামত কাজ চলছে। রেলসচিবের উপস্থিতিতে তখন লাইনের মেরামত কাজ চলছিল।
রেল যোগাযোগ বন্ধ, অত:পর ॥ দুর্ঘটনার পর থেকে সিলেটের সঙ্গে সারা দেশের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়ে। রাতেই লাইনে থাকা সাতটি বগি নিয়ে কুলাউড়া জংশন থেকে দুর্ঘটনা কবলিত ট্রেনটি ঢাকা যায়। এছাড়া সকালে আরো পাঁচটি বগি কুলাউড়া জংশনে টেনে নেওয়া হয়েছে। আর লাইনচ্যুত বগি সরিয়ে রাস্তা চালু করতে সকাল থেকে কাজ শুরু করে রেলওয়ের প্রকৌশল ও ট্রাফিক বিভাগের কর্মীরা। অবশ্য, সন্ধ্যা ৬টা ৪৫ মিনিটের দিকে লাইনের মেরামত কাজ সম্পন্ন হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা যা বলেন ॥ স্থানীয় বরমচাল গ্রামের বাসিন্দা জাকারিয়া আলম জানান, রোববার রাতে সিলেট-ঢাকা রেল রুটের মোগলাবাজারে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা আন্ত:নগর কালনী এক্সপ্রেসকে ক্রসিং দিতে উপবন এক্সপ্রেসের প্রায় আধা ঘণ্টা সময় ব্যয় হয়। এ সময় পোষাতে চালক ট্রেনটি দ্রুতগতিতে চালাচ্ছিলেন। দুর্ঘটনার পেছনে এটা অন্যতম কারণ হতে পারে বলে জানান জাকারিয়া। তিনি জানান, দুর্ঘটনার পর স্থানীয় দুটি মসজিদে মাইকিং করা হয়। এরপর লোকজন উদ্ধার তৎপরতায় নেমে পড়েন। স্থানীয় লোকজনের প্রচেষ্টার কারণে জানমালের অনেক ক্ষয়-ক্ষতি রোধ করা গেছে বলে জানান তিনি।
সিলেটের ব্লু বার্ড স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্র ইমরান আহমদ, রবিরবাজারের বাসিন্দা এআইইউ এর ছাত্র আহমদ তোফায়েল, কাদিপুরের পলাশ ও নোয়াখালির ফাতেমা আক্তার আনু জানান, ট্রেনটি কখনো দ্রুতগতিতে, কখনো মন্তর গতিতে চলছিলো। বরমচাল স্টেশনে প্রবেশের সময় ট্রেনটির গতি ছিল সর্বোচ্চ। দুর্ঘটনাস্থলের পার্শ^বর্তী গ্রামবাসী জানান, রোববার অস্বাভাবিক গতিসম্পন্ন ছিল উপবন। বরমচাল স্টেশনের চা-দোকানী ফারুক আহমদ জানান, তারা রাতে বিকিকিনি শেষে স্টেশনে বসে গল্প করছিলেন। উপবন ট্রেন ছেড়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর বিকট শব্দ শুনে দৌড়ে যান ঘটনাস্থলে। সেখানে গিয়ে দেখেন ট্রেনের বগি খালে পড়ে আছে। নারী-পুরুষের আর্ত চিৎকারে এলাকা একাকার। তখন তারা দ্রুত উদ্ধার কাজ শুরু করেন। তিনি মহিলাসহ কয়েকটি লাশ বের করেছেন বলে জানান। এসময় অনেক সিএনজি অটোরিক্সা বিনাভাড়ায় তাদের হাসপাতালে পৌঁছায়।
সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের শাহবাজপুরের ব্রিজ গত মঙ্গলবার ভেঙে গেলে ঐদিন থেকে সিলেটের সাথে ঢাকার সরাসরি সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে পড়ে। এর ফলে ট্রেনের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েন ঢাকাগামী যাত্রীরা।
দুর্ঘটনাস্থলে জড়ো হওয়া এলাকার অধিকাংশ বাসিন্দা অভিযোগ করেন, রেল লাইনের স্লিপারের নাট-বল্টু, হুক-ক্লিপ একেবারে লুজ হয়ে গেছে। কাঠের স্লিপারগুলোও ছিল দুর্বল। দীর্ঘদিন ধরে এ অবস্থা বিরাজমান থাকলেও এগুলো সংস্কারের কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর।
উদ্ধার কাজে ফায়ার সার্ভিসের ১৩ টি ইউনিট ॥ ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের সিলেট বিভাগের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আলী জানান, ‘দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১৩টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার কাজ শুরু করে। এসময় সেখানে তাদের পাঁচটি অ্যাম্বুলেন্সও ছিল।’ ফায়ার সার্ভিস ছাড়াও রেলওয়ে পুলিশ, থানা পুলিশ এবং বিজিবির একটি দলও উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের কুলাউড়া শাখার ইনচার্জ উপেন কুমার সিং জানান, ঘটনার খবর পাওয়ার পরই কুলাউড়া থেকে দুটি ইউনিট, মৌলভীবাজার থেকে একটি ইউনিট, বড়লেখা থেকে একটি ও ফেঞ্চুগঞ্জ থেকে দুটি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে। এছাড়া, রেলওয়ে ও মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসন সিলেট বিভাগীয় প্রশাসনের কর্মকর্তা কর্মচারীগণ উপস্থিত থেকে উদ্ধারে সহযোগিতা করেছেন।
ট্রেনের টিকেট ফেরত: প্লেনের টিকেট পাওয়া যাচ্ছে না: গতকাল সোমবার দুপুর ১২টায় সিলেট রেলস্টেশনে গিয়ে দেখা যায়, অনেক যাত্রী আগাম নেওয়া ট্রেনের টিকেট ফেরত দিচ্ছেন টিকেট কাউন্টারে। টিকেট কাউন্টার থেকে জানানো হয়, টিকেট বিক্রয় আপাতত বন্ধ । অন্যদিকে, অনেকে বিমানে সিলেট থেকে ঢাকা যেতে চাইলেও টিকেট পাচ্ছেন না। কিছু টিকেট পাওয়া গেলেও অনেক ক্ষেত্রে যাত্রীদের দ্বিগুণ দাম দিতে হচ্ছে।
গত রোববার রাত পৌণে ১২টায় এই মর্মান্তিক দুর্ঘটনা ঘটে সিলেট থেকে ৩৫ কিলোমিটার দূরে ‘বরম চাল’ স্টেশনের বড়ছড়া ব্রিজের উপর । ওই ট্রেনের ৫টি বগি যাত্রীসহ লাইনচ্যুত হয়। এর মধ্যে ৩টি বগি ‘বড়ছড়া’ খালে কাত হয়ে উল্টে পড়ে। ব্রিজটিরও ক্ষতি সাধিত হয়। এ দুর্ঘটনায় চারজনের মৃত্যু ঘটে। আহত হন দুই শতাধিক।

 

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • হবিগঞ্জে ট্রিপল মার্ডার মামলায় ৪ জনের যাবজ্জীবন
  • সব অনিয়মে আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সংশ্লিষ্টতা রয়েছে: টিআইবি
  • টমটম গাড়ির জন্য জগন্নাথপুরের কিশোর চালককে রশিদপুরে নিয়ে খুন
  • পররাষ্ট্র মন্ত্রী একে মোমেন সিলেট আসছেন আজ
  • দক্ষিণ সুনামগঞ্জের কালনী নদী থেকে ভাসমান লাশ উদ্ধার
  • মাধবপুরে ট্রাকের ধাক্কায় ২ মোটর সাইকেল আরোহী নিহত
  • ফিরতে রাজি হয়নি কেউ, শুরু হয়নি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন
  •     রোহিঙ্গাদের অনাগ্রহ দুঃখজনক: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
  •   সড়ক দুর্ঘটনা রোধে শিগগিরই টাস্কফোর্স গঠন করা হবে
  • বিমান বহরে তৃতীয় ড্রিমলাইনার গাংচিল উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী
  • গ্রন্থটি সমাজ বিনির্মাণের হাতিয়ার হিসেবে কাজ করবে
  • কদমতলীতে এডিস মশার লার্ভা ও পূর্ণাঙ্গ মশার অস্তিত্ব সন্ধান দুটি প্রতিষ্ঠানকে অর্থদন্ড
  • দুর্নীতি নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূলে নিরলসভাবে কাজ করছে কমিশন : দুদক চেয়ারম্যান
  • ২৮ আগস্টের মধ্যে শাপলা ফিলিং স্টেশনে ডাকাতির টাকা উদ্ধার না হলে কঠোর কর্মসূচি
  • সংসদ অধিবেশন বসবে ৮ সেপ্টেম্বর
  • ২১ আগস্টের হামলায় আ. লীগ জড়িত কি না : প্রশ্ন রিজভীর
  • বাহুবলে দিনে দুপুরে চা শ্রমিকদের ভাতার ১২ লাখ টাকা ছিনতাই
  • কুলাউড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় ইউরো ফার্মা’র এরিয়া ম্যানেজার নিহত
  • প্রধানমন্ত্রী বিমানের ‘গাংচিল’ উদ্বোধন করবেন আজ
  • সিলেটে আরো কমেছে ডেঙ্গু রোগী
  • Developed by: Sparkle IT