পাঁচ মিশালী

বউ ও শাশুড়ি

মানসী চৌধুরী প্রকাশিত হয়েছে: ০৬-০৭-২০১৯ ইং ০০:১৩:২১ | সংবাদটি ২০৪ বার পঠিত

আমাদের সমাজের প্রায় ঘরে ঘরে নির্যাতিত হচ্ছে নারী। ধনী গরীব ও মধ্যবিত্ত প্রতিটি পরিবারেই। তবে মধ্যবিত্ত পরিবারে নারীরা এসব সমস্যা বা দৃশ্য আড়ালে রাখে। সম্মানের ভয়, লজ্জার ভয়ে কাছের কাউকেই বলতে পারে না। এমনকি মা-বাবাকেও বলে না কষ্ট পাবেন বলে। আমাদের সমাজে সবাই নিজের সুখ নিয়ে ব্যস্ত, শুধু নিজের চিন্তায় মগ্ন। অন্যের অবস্থা বা দুঃখে ফিরে দেখার সময় নেই। তবে সমালোচনা করতে পারে এই রকমই আমাদের সমাজ। বোঝে না যে, অন্যকে হাসির পাত্র করলে নিজেকে হতে হয় একদিন।
শ্বশুর শাশুড়ি নিজের মেয়েকে যেভাবে দেখেন, সেভাবে দেখে না পুত্রবধূকে। ভাবেন না এও যে তাদের আরেক মেয়ে। তাদের উপর ভরসা করে এসেছে নিজের ঘর ছেড়ে। অন্যায়-অত্যাচার ক্রমশ চলে তার উপর। মজার বিষয়, নিজের মেয়ের কষ্ট বুঝে সবাই। কিন্তু অন্যের মেয়ের কষ্ট বুঝতে গেলেই হয় অবুঝ। কী দৃষ্টিভঙ্গি আমাদের পরিবারের। একটি প্রচলিত প্রবাদ আছে, বউ মরলে বউ পাওয়া যায়, মা মরলে মা পাওয়া যায় না। এই প্রবাদের কারণে আবেগ প্রবণ হয়ে ছেলেরা নিজের মাকে মনে করে দেবতুল্য। ঢাকতে চান মায়ের দোষগুলোকে কালো চাদরের আড়ালে। মা-বাবা সত্যিই মহান, মানি সে কথা। ঈশ্বরের পরেই আমাদের মা-বাবা। কিন্তু যদি কোনো মা-বাবা অন্যায় করেন, এবং সে অন্যায়ের ফল নিষ্পাপ কোনো জনকে ভোগ করতে হয়, তবে সেটা কি ঠিক।
আমার নিজের মা-বাবা হলেও তাদের ভুলগুলো ধরিয়ে দেওয়া উচিত। কারণ তারাও মানুষ। কিন্তু আমাদের পরিবার মায়ের কথা শুনে শুরু করে স্ত্রী ও সন্তানের উপর নির্যাতন। কে সত্যি বলছে, মা না স্ত্রী, তা যাচাই করার সময় আছে কার। বন্ধ করে দেয়া হলো মা-সন্তানের খাওয়া-দাওয়া, ঔষধ। কী করবেন তখন অসহায় মা কী করে খিদের কান্না বন্ধ করবেন সন্তানের অসুস্থ হলে পথ্য কোথা থেকে জোগাড় করবেন। ভাবতে পারেন কি? কিন্তু সে পরিবারের সদস্যদের দেখলে মনে হয় যেন তাদের থেকে ভালো মানুষ আর কেউ নেই। ক্ষুধার্ত মা ও শিশুর সামনে সুস্বাদু খাবার রান্না করে খান পরিবারের সদস্যরা। একটি বারের জন্যও কি তাদের মনে আবেগ নাড়া দেয় না, তারা কী ভাবেনা যে এক নিষ্পাপ শিশুর সামনে যে আমরা খাচ্ছি, সে চেয়ে চেয়ে দেখছে। হয়তবা অপেক্ষাও করছে। তার ইচ্ছেটা তার মা ঠিকই বোঝতে পারছে, কিন্তু কিছু বলতে পারছেন না। আজ শিশুটি যা দেখছে, তা কি কাল মেনে নিতে পারবে, মেনে নিতে পারবে কি তার স্বজনদের, যারা দিনের পর দিন অত্যাচার চালিয়ে গেছেন, তার একমাত্র সঙ্গী তার মা। হায় আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি।

 

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT