সম্পাদকীয়

দুধ নিয়ে তুলকালাম

প্রকাশিত হয়েছে: ০৯-০৭-২০১৯ ইং ০০:৩৪:৩০ | সংবাদটি ১০৯ বার পঠিত

বাজারের দুধ নিয়ে চলছে ‘তুলকালাম কা-’। বেশির ভাগ তরল দুধেই রয়েছে মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর রাসায়নিক উপাদান। বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়িয়েছে। ফলে ভোক্তা সাধারণ বেশ উদ্বেগ উৎকন্ঠার মধ্যে আছেন। বাজার থেকে সংগৃহীত কাঁচা তরল দুধের ৯৬টি নমুনার মধ্যে ৯৩টিতেই সিসা এবং এন্টিবায়োটিক অণুজীব পাওয়া গেছে। দইতেও পাওয়া গেছে উচ্চ মাত্রার বিভিন্ন রাসায়নিক। জনস্বাস্থ্য ইন্সটিটিউটের একটি গবেষণায় বেরিয়ে এসেছে এসব তথ্য। এটাই প্রথম নয়; বাজারের প্যাকেটজাত তরল এবং গুঁড়ো দুধ নিয়ে এর আগেও বিভিন্ন সময় নানান ঘটনার জন্ম হয়েছে। মাস কয়েক আগে গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইসিডিডিআরবি’র গবেষণায় বাজারের পাস্তুরিত দুধে মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার সন্ধান পাওয়া যায়। গবেষকরা জানান, দুগ্ধ খামার থেকে শুরু করে বিক্রয়ের দোকান পর্যন্ত প্রতিটি পর্যায়ে দুধ ব্যাকটেরিয়া দ্বারা দূষিত। যা জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক মানদ- অনুযায়ী গ্রহণযোগ্য নয়।
দুধ মানুষের জন্য একটি অতি অপরিহার্য খাদ্য। এতে রয়েছে প্রচুর পুষ্টি উপাদান। দুধে থাকে ¯েœহ পদার্থ, প্রোটিন, ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন সি। দেশে চাহিদার ৩০ শতাংশ দুধ উৎপাদিত হয়। আর ৭০ শতাংশ ঘাটতি পূরণের জন্য বছরে কমপক্ষে চার হাজার কোটি টাকার গুঁড়ো দুধ বিদেশ থেকে আমদানী করা হয়। আর এই আমদানীকৃত দুধ কিংবা দেশে উৎপাদিত দুধে ভেজাল মেশানো হচ্ছে অহরহ। তরল দুধে পানি মেশানোর বিষয়টি আর নতুন করে বলার প্রয়োজন নেই। এছাড়া স্টার্চ, ইউরিয়া ও ডিটারজেন্টের গুঁড়া মেশানো হচ্ছে দুধে। সর্বোপরি দুধে ফরমালিন মেশানোর মতো জঘন্য অপকর্মও চালানো হচ্ছে। দুধে এইসব ক্ষতিকর পদার্থ মেশানোর পাশাপাশি দুধ সংগ্রহ ও প্যাকেটজাতকরণের বিভিন্ন ধাপে দুধে ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ ঘটছে। অথচ এই ব্যাকটেরিয়া এবং রাসায়নিক পদার্থ মানবদেহের জন্য খুবই ক্ষতিকর। এতে নানা ধরনের রোগে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ।
বিভিন্ন ধরনের খাদ্যদ্রব্যে ভেজাল মেশানোর ঘটনা এখানে নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার। প্যাকেটজাত পণ্য থেকে শুরু করে তরল দ্রব্যেও মেশানো হচ্ছে মানব দেহের জন্য ক্ষতিকর রাসায়নিক পদার্থ। এ ব্যাপারে সরকারও যে নীরব ভূমিকা পালন করছে, তা নয়; তবে তাদের কোন তৎপরতাই সফল হচ্ছে না। পণ্যের মান নিয়ন্ত্রণকারী প্রতিষ্ঠান বিএসটিআই এর ভূমিকা নিয়েও জনমনে প্রশ্ন রয়েছে। অনেক সময় এই প্রতিষ্ঠানের অনুমোদন ছাড়াই পণ্য বাজারজাত করা হচ্ছে। অতি সম্প্রতি দেশের সর্বোচ্চ আদালত যথাযথ গুণগত মান না থাকার অভিযোগে বেশ কয়েকটি খাদ্যপণ্য বাজার থেকে প্রত্যাহার করার নির্দেশনা দিয়েছেন। তারপরেও এই সব পণ্য বাজারে বিক্রি হওয়ার অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে। তাই ভেজাল ও নি¤œমানের পণ্যের বিরুদ্ধে দরকার সর্বাত্মক অভিযান। সেই সঙ্গে দরকার মানুষের সচেতনতা।

 

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT