প্রথম পাতা

সিলেটে বেড়েছে পেঁয়াজের ঝাঁজ !

এনামুল হক রেনু প্রকাশিত হয়েছে: ১৩-০৭-২০১৯ ইং ০২:১৮:৩০ | সংবাদটি ১০৯ বার পঠিত

সিলেটে হঠাৎ করে বেড়ে গেছে পেঁয়াজের দাম। এক সপ্তাহের ব্যবধানে প্রতি কেজি পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ১৫-২০ টাকা। এক সপ্তাহ আগে দেশি পেঁয়াজ প্রতি কেজির দাম ছিল ৩০-৩৫ টাকা। আমদানি করা (ভারতীয়) পেঁয়াজের কেজি ছিল ২৫-৩০ টাকা। কিন্তু গতকাল শুক্রবার সিলেটে খুচরা বাজারে গিয়ে দেখা গেছে, দেশি পেঁয়াজ ৪০-৪৫ টাকা আর স্থান ভেদে আমদানি করা পেঁয়াজ ৩৫-৪০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।
হঠাৎ করে পেঁয়াজের দাম বাড়ার পেছনে অতিরিক্ত গরম আর বৃষ্টিকে দায়ী করছেন ব্যবসায়ীরা।
তবে ভোক্তারা বলেছেন, এটা অজুহাত। সরকারকে দাম বাড়ার কারণ খুঁজে বের করতে হবে। এর তদন্ত করে দোষী ব্যবসায়ীদের আইনের আওতায় আনতে হবে। নতুবা বছরের পর বছর এই রীতি চলতে থাকবে।
ভোক্তাদের অভিযোগ, প্রতিবছর কোরবানির ঈদ সামনে রেখে কারসাজি করে পেঁয়াজের দাম বাড়ায় বিক্রেতারা। পাশাপাশি রসুন, আদা ও ডিমের দামও বাড়ছে।
নগরীর বন্দরবাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা জাতীয় মানবাধিকার সোসাইটি’র সিলেট জেলা সভাপতি এডভোকেট আল আসলাম মুমিন বলেন, ৭/৮ দিন আগেও ২৫-৩০ টাকা দামে পেঁয়াজ কিনেছি। বন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানিও হচ্ছে। তবু সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম দ্বিগুণ হওয়াটা বিস্ময়কর। ব্যবসায়ীরা কৃত্রিম সংকট তৈরি করে পেঁয়াজের দাম বাড়িয়েছেন। আর এভাবে পেঁয়াজের দাম বাড়লে সাধারণ মানুষের ব্যয় মেটানো কষ্টসাধ্য হয়ে পড়বে বলে জানান তিনি। তার মতে, সরকারের উচিত এখনি বাজার মনিটরিং করা। নতুবা কোরবানির ঈদকে ঘিরে দাম আরো বাড়াবে বিক্রেতারা।
এ বিষয়ে নগরীর কালীঘাটের পেঁয়াজের আড়তদার শাপলা এন্টারপ্রাইজের ডাইরেক্টর শরীফ হোসেন বলেন, প্রতিবছর এমন সময়ে বন্দর দিয়ে প্রচুর পরিমাণে পেঁয়াজ আমদানি হলেও এবার কম আসছে। এছাড়াও, ভারতে যে পেঁয়াজ গতসপ্তাহে প্রতি কেজি ৫ থেকে ৬ রুপি ছিল, তার দাম এখন ১০ থেকে ১১ রুপি। ভারতীয় রফতানিকারকরা সরকার থেকে প্রতি কেজিতে যে প্রণোদনা পেতো, কিন্তু তাও প্রত্যাহার করা হয়েছে। এর ওপর অতিরিক্ত গরমের কারণে পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে, এ কারণে ভারতের বাজারে চাহিদা মোতাবেক পেঁয়াজের সরবরাহ নেই। বন্দর দিয়ে আমদানি কমার কারণে দেশে পেঁয়াজের দাম বাড়ছে বলে তার মন্তব্য। তার মতে, ঈদুল আজহা’তে দেশে পেঁয়াজের চাহিদা বাড়লেও, দাম তেমন আর বাড়বে না।
সিলেট জেলা বাজার কর্মকর্তা শাহ মো. মোরশেদ কাদের বলেন, সিলেটে কারসাজি করে দ্রব্যমূল্য বাড়ানোর সুযোগ নেই। পেঁয়াজ, রসুন ও আদার মূল্য সারাদেশেই বেড়েছে। অতিরিক্ত বৃষ্টিতে পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যাওয়ায় ভারতে মূল্য বৃদ্ধি ও পেঁয়াজ রপ্তানিতে ভারত প্রণোদনা তুলে নেয়ায় এসব পণ্য আমদানী হচ্ছে কম। এ কারণ দেখিয়ে পাইকাররা দাম বাড়িয়েছে। ফলে খুচরা বাজারেও বেড়েছে।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বিষয়টি গুরত্বের সাথে তদারকির উদ্যোগ নিয়েছে।
তিনি বলেন, কোরবানীর ঈদকে কেন্দ্র করে সিলেটে যাতে কোনো অসাধু ব্যবসায়ী পণ্য সামগ্রী কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করে মূল্য বৃদ্ধি করতে না পারে-এ ব্যাপারে তাদের মনিটরিং অব্যাহত আছে।

 

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • লন্ডন পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী
  • আদালতে মিন্নির স্বীকারোক্তি
  • কোম্পানীগঞ্জে জেএসসি পরীক্ষার্থী ও জামালগঞ্জে পিতা-পুত্রের মৃত্যু
  • সারা দেশে মাঝারি মাত্রার ভূকম্পন অনভূত
  • কুলাউড়ায় ঢাকাগামী জয়ন্তিকা ট্রেনের একটি কামরা লাইনচ্যুত
  • ট্রাম্পের কাছে প্রিয়ার নালিশ খতিয়ে দেখা হবে: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী
  • কুলাউড়ায় ১৩ দিন পর স্কুলছাত্রীর লাশ উত্তোলন
  • রোববার থেকে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা বাড়তে পারে
  • প্রধানমন্ত্রী লন্ডন যাচ্ছেন আজ
  • বন ও পরিবেশমন্ত্রী সিলেট আসছেন আজ
  • রিফাত হত্যার পরিকল্পনায় মিন্নিও: পুলিশ
  • পণ্যের দাম নির্ধারণে সরকারি ৫ প্রতিষ্ঠানকে আইনি নোটিশ
  • জেলায় ৯শ’ টন চাল, নগদ ১৫ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ---------------দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণপ্রতিমন্ত্রী
  • সম্মিলিত প্রচেষ্টার মাধ্যমে পত্রিকাকে আরো এগিয়ে নেয়ার প্রত্যয়
  • বরিশালে মহাসমাবেশ জনসমুদ্রে পরিণত হবে: রিজভী
  • জাতীয় পার্টির নতুন চেয়ারম্যান জিএম কাদের
  • সিলেট থেকে বিমানের সরাসরি হজ ফ্লাইট শুরু
  • ‘সিলেট বিভাগে ৩৩ বিদ্রোহীকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত’
  • জিপিএ-৫ পেলো এমসি কলেজের ২৫৮ জন
  • সিলেট বোর্ডে পাশের হার বেড়ে ৬৭.০৫%
  • Developed by: Sparkle IT