বিশেষ সংখ্যা

কোটি মানুষের মুখপত্র

সৈয়দ আছলাম হোসেন প্রকাশিত হয়েছে: ১৮-০৭-২০১৯ ইং ০২:৩৪:৫৪ | সংবাদটি ৫৭ বার পঠিত

প্রতিদিনের ঘটনাগুলো লিপিবদ্ধভাবে সাজিয়ে এর সত্যতা নিশ্চিত হয়ে সাংবাদিকদের কাছ থেকে সংবাদ এসে যখন সম্পাদকের কাছ থেকে সম্পাদনার পর পত্রিকায় ছাপা হয় তখনই পাঠকের হাতে যায় একটি সংবাদপত্র। এই সংবাদপত্রের চুলচেরা বিশ্লেষণ সাপেক্ষে পাঠকের হৃদয় বেছে নেয় গ্রহণযোগ্য একটি প্রিয় পত্রিকা। শত শত পত্রিকার পাশাপাশি তার মনের গভীরে একটি পত্রিকাকে সর্বোচ্চ আসনে স্থান দেয়। আমার বিশ্বাস দৈনিক সিলেটের ডাক শুধু আমাকে নয়, কোটি মানুষের হৃদয়ের খোরাক হয়ে দীর্ঘদিন থেকে পাঠকদের মন ভরে তার যাত্রা অব্যাহত রাখছে।
আনন্দের সাথে গর্ব করে আমরা বলতে চাই আমাদের প্রিয় মুখপত্র দৈনিক সিলেটের ডাক ১৮ জুলাই ২০১৯ ইং ৩৬ বছরে পা রাখছে। কোনো গুরুত্বপূর্ণ নিউজ অন্য পত্রিকায় ছাপা হওয়ার পরও পাঠকের সন্দেহ থাকে সংবাদটি কতটুকু সত্য। কিন্তু দৈনিক সিলেটের ডাক এ কোনো নিউজ ছাপা হলে পাঠকের সন্দেহের কোন অবকাশ থাকেনা সত্যতার ব্যাপারে। এ ব্যাপারে দৈনিক সিলেটের ডাক অনেক ধাপ এগিয়ে তার মান রক্ষা করে পাঠকের মন জয় করে নিয়েছে।
আমি এক ক্ষুদ্র সাহিত্যকর্মী হিসেবে দৈনিক সিলেটের ডাক এর কাছে চিরঋণী হয়ে গেলাম। আমি বিশ্বাস করি আমার মত শত শত লেখক তার জীবনের সফলতার পেছনে এই পত্রিকার ঋণ শোধ করতে পারবে না। আমাদের কাঁচা হাতে লেখাকে গ্রহণ করে সংযোজন বিয়োজনের পর পাঠকদের কাছে পৌঁছে দিয়ে আমাদেরকে যে অনুপ্রেরণা দিয়ে যাচ্ছেন তার জন্য সম্পাদনা পরিষদের দায়িত্বশীলদের প্রাণঢালা অভিনন্দন জানাই। অনেক শিশুর হাতে আঁকা ছবি ছাপা করে তার উৎসাহ উদ্দীপনা বৃদ্ধির জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে পত্রিকাটি। সম্পাদনা পরিষদের সঠিক সিদ্ধান্তে সকল প্রকার লেখককে এখানে মূল্যায়ন করা হয়। মহিলা সমাজ, শিশু মেলা, সাহিত্য পাতা, ইতিহাস ঐতিহ্য সহ সকল রুচির পাঠকের মনের খোরাক আছে এই মুখপত্রে। আমরা সম্পাদনা পরিবারের সবাইকে অভিনন্দন জানাই। নবীনদের সুপ্ত প্রতিভা বিকাশের মাধ্যমে আগামী প্রজন্মের হাতে অস্ত্রের পরিবর্তে কলমকে ধরতে উৎসাহ দিচ্ছেন বলে আমরা অবসরে কিছু লিখতে পছন্দ করি।
যেদিন দৈনিক সিলেটের ডাক এ আমার লেখা প্রথম ছাপা হয়েছিলো সেদিন অনেকে আমাকে ফোন দিয়ে সংবাদটি দিয়ে অনুপ্রাণিত করেছিলেন। সেদিন নিজ চোখে দেখার পূর্ব পর্যন্ত বিশ্বাসই হচ্ছিলনা আমার লেখা এই পত্রিকায় স্থান পাবে। এখন বুঝতে পারলাম দৈনিক সিলেটের ডাক নির্দিষ্ট কারো জন্য নয় এটি আপনার, আমার সকলের জন্য। পত্রিকাটির গুণগত মান বৃদ্ধি পাচ্ছে বলেই অনলাইনের যুগে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে পাঠকরা এই পত্রিকাটি পড়ার সুযোগ পেয়ে উপকৃত হচ্ছেন। আমি এই পত্রিকার কর্তৃপক্ষের কাছে একটি প্রত্যাশা করতে চাই লেখকদের উৎসাহ উদ্দীপনা আরো বৃদ্ধির জন্য যদি প্রতি মাসে একজন কবি, লেখক, গল্পকার বা যেকোন প্রকার লেখার গুণগত মান বিচার বিশ্লেষণ করে একজনকে সম্মাননা দেয়া হয় এবং প্রতি বছর একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তা পৌঁছে দেয়া হয় তবে পত্রিকার সাথে পাঠক ও লেখকের প্রাপ্তি ও প্রত্যাশার পরিমাণ বৃদ্ধি পাবে ও শুধু সিলেট নয় এটি বাংলাদেশের সীমানা ছাড়িয়ে গোটা বিশ্বের মধ্যে পাঠক হৃদয়ে স্থায়ীভাবে স্থান করে নেবে বলে আমার বিশ্বাস। আমি পত্রিকাটির সম্পাদক, প্রকাশক, পাঠক, লেখক, বিজ্ঞাপনদাতা সহ শুভানুধ্যায়ীদের জানাই প্রাণঢালা অভিনন্দন ও সম্পাদকমন্ডলীর সভাপতি দানবীর রাগীব আলীকে শ্রদ্ধা ও মরহুমা রাবেয়া খাতুন এর বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও শান্তি কামনা করি এই ৩৬তম বছরে। শুভ কামনা অবিরত সিলেটের ডাক-এর জন্য।
লেখক : কবি ও কলামিস্ট।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT