বিশেষ সংখ্যা

প্রিয় কাগজ, সাহসী কাগজ

মো: শামসুল ইসলাম সাদিক প্রকাশিত হয়েছে: ১৮-০৭-২০১৯ ইং ০৩:০২:১৪ | সংবাদটি ১৬১ বার পঠিত

যদি বইকে বলা হয় ‘জ্ঞানের ভান্ডার’, তাহলে পত্রিকা হবে সেই জ্ঞানের উৎস। পত্রিকা অধ্যয়নের দ্বারা জ্ঞানের পরিধি বিস্তৃত হয়। সমসাময়িক দেশ-বিদেশের সকল তথ্য আমরা পত্রিকাতেই পেয়ে যাই। আর সময়কে জয় করে একটি পত্রিকা হয়ে ওঠে সমাজের প্রতিচ্ছবি। তবে বর্তমান প্রেক্ষাপটে শুধু সমাজ বললে তা এখন ভুল হবে, বরং এখন সমাজ, রাষ্ট্রের প্রতিচ্ছবি।
দৈনিক সিলেটের ডাক সিলেট অঞ্চলের সকল শ্রেণি পেশার মানুষের অধিকার নিয়ে কথা বলে।
১৯৮৪ সালের ১৮ জুলাই থেকে সিলেটের প্রতিটি সংগ্রামে কলম সৈনিক হয়ে ন্যায় ও সত্যের পক্ষে সংগ্রাম করছে পত্রিকাটি। যখন অহরহ ঝুঁকি বাড়ছে সাংবাদিকতা পেশায়, যখন পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে নির্যাতন, নিপীড়নের শিকার হচ্ছেন সাংবাদিকরা তখনো মানুষের মৌলিক অধিকার রক্ষায় কলম-যুদ্ধ চালাচ্ছে দৈনিক সিলেটের ডাক।
দৈনিক সিলেটের ডাক শুধু মানুষের খবরের খোরাকই মিটায়নি। ভাষা, সংস্কৃতি, ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে রক্ষা করছে পত্রিকার পরতে পরতে। বর্তমানে দৈনিক সিলেটের ডাক নানা দিকে বিস্তৃত। দেশ-বিদেশে, শিল্প-সাহিত্য, শিক্ষা, সংস্কৃতি, খেলাধূলা, বিজ্ঞান, মতামত প্রভৃতি বিষয়ের খবরাখবর, সুন্দর ও সাবলীলভাবে প্রকাশ করছে। তরুণ শিক্ষার্থীরা নতুন নতুন ধারণা পেশ করছে; প্রযুক্তি নির্ভর তথ্য নিয়ে উদ্যোক্তা হচ্ছে। পুরনো ধ্যান-ধারণা ত্যাগ করে সমাজ পরিবর্তনের নতুন নতুন রূপ খুঁজে বেড়াচ্ছে। যানজট, সড়ক দুর্ঘটনা, বাল্যবিবাহ, গুম, হত্যা, ধর্ষণ, শিশু ও নারী শিক্ষা, বয়স্কদের সম্মান প্রদর্শন, নৈতিকতা প্রভৃতি সমাজসচেতনমূলক কর্মকান্ডে মানুষ দৈনিক সিলেটের ডাক থেকে সহায়তা নিচ্ছে।
পরাধীনতার শিকল হতে মুক্ত থেকে গণমানুষের দাবি-দাওয়া, অসহায় ও নির্যাতিতদের আর্তনাদ, বঞ্চিতদের বেদনা তুলে ধরে সকলের মনে আলোড়ন সৃষ্টি করছে ডাক। দৈনিক সিলেটের ডাক পেয়েছে গ্রহণযোগ্যতা, গণমানুষের ভালোবাসা এবং পাঠকপ্রিয়তা। যে লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য নিয়ে আত্মপ্রকাশ করেছিল পত্রিকাটি সকলের ভালোবাসার মাধ্যমে তা অর্জিত হয়েছে। কিন্তু দৈনিক সিলেটের ডাকের প্রয়োজনীয়তা শেষ হয়ে যায়নি। বরং দায়িত্ব ও কর্তব্য বহুগুণ বেড়ে গেছে। সিলেটের ডাকের ৩৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর দিবসে বলতে চাই, সত্যের পথে সদা অকুতোভয় থেকে সুন্দর হোক দৈনিক সিলেটের ডাকের আগামীর পথ চলা।
লেখক : শিক্ষার্থী, এম.সি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ।

 

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT