সম্পাদকীয় মানুষ যা লাভ করেছে, তার মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ হচ্ছে সুন্দর স্বভাব। -আল হাদিস

ডেঙ্গু প্রতিষেধক টিকা

প্রকাশিত হয়েছে: ২২-০৭-২০১৯ ইং ০০:৩৭:২৪ | সংবাদটি ১০১ বার পঠিত

চলে এসেছে টিকা। মহামারি ডেঙ্গুর প্রকোপ কমাতে এর ভ্যাক্সিন বা টিকা ব্যবহার শুরু হয়েছে। এটি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে ব্যবহার শুরু হয়েছে। ফ্রান্সের তৈরি এই টিকা বাংলাদেশেও আমদানী হয়েছে। ইতোমধ্যেই ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর একে অনুমোদন দিয়েছে। ২০১৫ সালে উদ্ভাবিত টিকাটি ফিলিপাইনের ডেঙ্গু আক্রান্ত আট লাখ মানুষের ওপর প্রয়োগ করে প্রত্যাশিত ফল পাওয়া গেছে। দেখা গেছে ডেঙ্গু আক্রান্ত নয় বছর বা তদুর্ধ বয়সীদের ক্ষেত্রে এই টিকা ৭৬ শতাংশ কার্যকর। তাছাড়া, গর্ভবতী মা এবং গর্ভের শিশুর ওপর এই টিকার নেতিবাচক প্রভাব নেই। টিকা গ্রহীতা আশি ভাগ মানুষের মধ্যে ডেঙ্গুর সংক্রমণ দেখা দিলেও সেটি মারাত্মক আকার ধারণ করে না। তাই ডেঙ্গু প্রতিরোধে এই টিকা সহজলভ্য করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞগণ।
রীতিমতো আতংক হয়েই দেখা দিয়েছে ডেঙ্গু। সাধারণত বর্ষা মওসুমেই এর প্রকোপ দেখা দেয় বেশি। এডিস মশার কামড়ে মানবদেহে ডেঙ্গু জ্বর ছড়িয়ে পড়ে। এবার ডেঙ্গুর প্রকোপ অন্যান্যবারের তুলনায় বেশি। দেখা গেছে, গত ছয় মাসে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে চার হাজার তিনশ’ রোগী ডেঙ্গু জ্বর নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়। এর মধ্যে তিন হাজার তিনশ’ জন ছাড়পত্র পায় এবং চিকিৎসাধীন রয়েছে এক হাজার। অবশ্য এর মধ্যে মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে খুব কমই। সম্প্রতি রাজধানীতে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে তিন জনের মৃত্যু হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। ডেঙ্গু বিশ্বব্যাপী মশাবাহিত একটি সংক্রামক রোগ। যেহেতু এর প্রকোপ দিন দিন বেড়ে চলেছে, তাই এ বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরী। এক্ষেত্রে ডেঙ্গু প্রতিষেধক টিকা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদনের পর এটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়বে। যদিও এটি আমাদের দেশে আমদানী করা হয়েছে, তবে তা এখনও সহজলভ্য হয়নি। অচিরেই এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ সোচ্চার হবেন বলেই আমরা আশাবাদী।
ডেঙ্গু প্রতিষেধক টিকা আবিস্কৃত হয়েছে; এটি ডেঙ্গু জনিত জটিলতা ও মৃত্যুহার অনেকটাই কমাবে। তবে এই টিকার পাশাপাশি সচেতনতাও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এডিস মশা কামড়ায় মানুষকে সাধারণত সকালে সূর্য ওঠার আগে এবং সন্ধ্যায় সূর্য ডুবে যাওয়ার পূর্ব মুহূর্তে। তাই এই সময়টিতে সতর্ক থাকতে হবে। যেসব স্থানে এডিস মশার জন্ম ও বিস্তার ঘটে সেগুলো ধ্বংস করতে হবে। সর্বোপরি পরিস্কার পরিচ্ছন্নতাই হচ্ছে আসল। ডেঙ্গুর ব্যাপারে প্রায় সারাবছরই সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানো জরুরী বলে আমরা মনে করি।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT