সম্পাদকীয়

বিশ্ব বন্ধু দিবস আজ

প্রকাশিত হয়েছে: ০৪-০৮-২০১৯ ইং ০০:০৮:১৪ | সংবাদটি ১৯৯ বার পঠিত

আজ বিশ্ব বন্ধু দিবস। বন্ধুত্বের বন্ধন সুদৃঢ় করতে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও প্রতি বছর আগস্ট মাসের প্রথম রোববার দিবসটি পালিত হয়। এর ইতিহাস খুবই পুরনো। ১৯৩৫ সালে দিবসটি পালন শুরু হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। সে বছর মার্কিন কংগ্রেস ঘোষণা করে যে, প্রতি আগস্ট মাসের প্রথম রোববার বন্ধু দিবস হিসেবে পালিত হবে। তখন থেকেই শুরু হয় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্ব বন্ধু দিবস পালন। আর তা খুব দ্রুতই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে এবং আন্তর্জাতিক বন্ধু দিবস-এ রূপলাভ করে। পরবর্তীতে ২০১১ সালে জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে ৩০-এ জুলাইকে বিশ্ব বন্ধু দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়। তবে ভারত, বাংলাদেশসহ বেশ কয়েকটি দেশে আগস্ট মাসের প্রথম রোববারই বিশ্ব বন্ধু দিবস পালন করা হয়।
বন্ধুত্ব একটি পবিত্র, অমলিন সম্পর্কের নাম। মা, বাবা, ভাই-বোন, আত্মীয়-স্বজন রক্তের সব সম্পর্কের বাইরে একটি সম্পর্ক হচ্ছে বন্ধুত্ব। অনেক সময় বন্ধুত্বের সম্পর্কটা রক্তের সব সম্পর্কের গভীরতাকে যেন ছাড়িয়ে যায়। বন্ধু হয় কারণে-অকারণে, মান-অভিমানে, আবার বন্ধু হয় বন্ধুত্বে কিংবা শত্রুতায়। গুণীজন বলেন, পৃথিবীর নিষ্পাপ সম্পর্কের নাম বন্ধুত্ব। তৃষ্ণার্ত মানুষের কাছে শীতল জল যেমন আরাধ্য, তেমনি প্রতিটি মানুষের কাছে একজন প্রকৃত বন্ধুর অবস্থান। সৃষ্টির আদিতে বন্ধুত্ব ছিলো, এখনও আছে, থাকবে অনন্তকাল। বন্ধুকে অনেকে আত্মার আত্মীয় বলে অভিহিত করেছেন। তাই বন্ধুত্বের এই সম্পর্ক প্রতিদিনই সমান গুরুত্বপূর্ণ হলেও বন্ধুকে একটু আলাদা করে মূল্যায়ন করার জন্য এই দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। সবচেয়ে বড় কথা বন্ধু শব্দের সাথে মিশে আছে যেন নির্ভরতা ও বিশ্বাস। বন্ধু আর বন্ধন একই মুদ্রার এপিঠ ওপিঠ। শক্ত বন্ধনের ভিত্তিই হচ্ছে বন্ধুত্ব। জীবনের নানা ক্ষেত্রে বন্ধুত্বের অবদান আর তাদের প্রতি সম্মান জানানোর লক্ষ্যে বিশ্ব বন্ধু দিবস পালন করা হচ্ছে। আর কঠিন বাস্তবতার নিরিখে মানুষের যখন ক্রমেই মনুষ্যত্ব বোধ হারিয়ে যাচ্ছে তখন নিরেট বন্ধুত্ব হয়ে উঠতে পারে ভরসা।
প্রতিটি মানুষের জীবনে একজন ভালো বন্ধুই হতে পারে আশীর্বাদ। তবে বন্ধুকে চিনতে হবে, জানতে হবে। আত্মার সঙ্গে আত্মার মিল না থাকলে সে বন্ধু হয় না। সে হবে বন্ধুত্বের মুখোশধারী একজন শত্রু। এই ধরণের বন্ধুর দ্বারা কোন উপকার হয় না, বরং ক্ষতি হয় বেশী। আমাদের সমাজে প্রচলিত একটি বাণী হচ্ছে ‘বিপদে বন্ধুর পরিচয়’। বন্ধুর বিপদে যদি এগিয়ে না আসে তবে সে কীমের বন্ধু? দুঃখজনক হলেও সত্য যে, যতো দিন যাচ্ছে ততোই মানুষের মধ্যে বন্ধুত্বের চিরন্তন তাৎপর্য লোপ পাচ্ছে। মানুষ নিজেকে নিয়েই বেশী ব্যস্ত হয়ে উঠছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অসংখ্য বন্ধু-বান্ধব তৈরী করা গেলেও এদের মধ্যে প্রকৃত বন্ধু ক’জন? আজকের এই বিশ্ব বন্ধু দিবসে জয় হোক বন্ধুত্বের।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT