সম্পাদকীয়

বাড়ছে রেলের দুর্নীতি

প্রকাশিত হয়েছে: ১০-০৮-২০১৯ ইং ০০:৪৪:৪৩ | সংবাদটি ৮৬ বার পঠিত


ঈদ সন্নিকটে। এখন ব্যস্ত সবাই। এই ব্যস্ততারই একটি অংশ হচ্ছে বাড়ি ফেরা; প্রিয়জন সান্নিধ্যে ঈদ কাটাতে বাড়ি ফিরছেন সবাই। বাস-ট্রেনের অগ্রিম টিকিট দেয়া হচ্ছে। ঈদ পরবর্তী ফিরতি টিকিটও বিক্রি করা হয়েছে। ঈদের প্রাক্কালে যাত্রীরা ভ্রমণে আরামদায়ক মনে করে ট্রেনকেই প্রথমে বেছে নেন। শুধু ঈদ ভ্রমণ নয় অন্যান্য সময়ও ভ্রমণে যাত্রীদের প্রথম পছন্দ ট্রেন। অথচ এই রেলই চরম দুর্নীতি-অব্যবস্থাপনায় জর্জরিত। বলা যায় এর প্রতি উদাসীন সরকার। যে কারণে প্রতি বছর রেলওয়েকে লোকসান গুণতে হচ্ছে। জানা গেছে, গত অর্থ বছরে বাংলাদেশ রেলওয়ের লোকসানের পরিমাণ এক হাজার ছয়শ’ কোটি টাকা। আর গত পাঁচ বছরে লোকসান হয়েছে প্রায় ছয় হাজার কোটি টাকা। অর্থাৎ রেলওয়ে অব্যাহতভাবে লোকসান দিয়ে যাচ্ছে।
সরকারের আর দশটি প্রতিষ্ঠানের মতোই চলছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। তার মানে হলো, সবকটি সরকারি প্রতিষ্ঠানেই অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা বিরাজ করছে; চলছে ঘুষ, দুর্নীতি, লুটপাট। এর বাইরে নয়, রেলওয়ে। বরং দুর্নীতির তালিকায় প্রথম সারির কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের মধ্যেই থাকবে রেলওয়ের নাম। শতবর্ষ পুরনো একটি সরকারি প্রতিষ্ঠান হচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। প্রতিদিন হাজার হাজার যাত্রী ভ্রমণ করছেন ট্রেনে। বর্তমানে সারাদেশে রেল লাইনের পরিমাণ দুই হাজার সাতশ’ ৬৮ কিলোমিটার। নানা কারণে বেশ কিছু শাখা লাইন ইতোমধ্যে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তারপরেও উল্লেখযোগ্য সংখ্যক যাত্রী ট্রেনে ভ্রমণ করছেন। তার সঙ্গে রয়েছে মালামাল বহন। সব মিলিয়ে রেলের আয়ের পরিমাণ মোটেই নগণ্য কিছু নয়। কিন্তু তারপরেও রেলওয়ে লোকসান দিচ্ছে, এটা খুবই দুঃখজনক। বিশেষজ্ঞদের মতে, রেলওয়েতে প্রয়োজন বিবেচনা না করে তথা সঠিক ও লাভজনক খাত চিহ্নিত না করে অলাভজনক খাতে ব্যয় করা হয়েছে। গত দশ বছরে রেলওয়ের উন্নয়নে ব্যয় হয়েছে ৩৮ হাজার কোটি টাকা। আর এই সময়ে রেলওয়ে লোকসান দিচ্ছে কমপক্ষে ১২ হাজার কোটি টাকা। রেলওয়ের উন্নয়নে অতি সম্প্রতি আরও উন্নয়ন প্রকল্প গৃহীত হয়েছে। এর পাশাপাশি লোকসানের হারও বেড়ে চলেছে।
রেলওয়েতে চলছে নানা ধরনের অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা দুর্নীতি। রেল কর্মকর্তা কর্মচারীরা বছরের পর বছর দুর্নীতি লুটপাটের সঙ্গে জড়িত। তারা রেল সম্পদ আত্মসাৎ সহ আরও অনেক দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত। অভিযোগ রয়েছে, রেলওয়ের জনপ্রিয়তা কমাতে, এর প্রতি মানুষের আস্থা হারাতে কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা সার্বিক সেবার মান উন্নত করতে ‘প্রতিবন্ধকতা’ সৃষ্টি করছে। দুর্নীতির এই বেড়াজাল থেকে রেলওয়েকে মুক্ত করতে না পারলে লোকসান শুধু বেড়েই চলবে।

শেয়ার করুন

Developed by: Sparkle IT