প্রথম পাতা শিলংয়ে ডিসি-ডিএম সীমান্ত সম্মেলন

সীমান্ত নিরাপদ ও সম্পর্ক উন্নয়নে এক সাথে কাজ করার অঙ্গিকার

প্রকাশিত হয়েছে: ২১-০৮-২০১৯ ইং ০৩:০৯:০১ | সংবাদটি ১২১ বার পঠিত

নুরুল ইসলাম, মেঘালয়(ভারত) থেকে : ভারতের উত্তর পূর্ব রাজ্য মেঘালয়ের রাজধানী শিলংয়ে বাংলাদেশ-ভারত ডিসি-ডিএম পর্যায়ে বর্ডার কনফারেন্স গতকাল মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৈঠকে বাংলাদেশের ৪৯ সদস্য বিশিষ্ট প্রতিনিধিদল অংশগ্রহণ করে। বাংলাদেশের পক্ষে দলের নেতৃত্ব দেন জামালপুর জেলার ডিসি আহমেদ কবীর। মেঘালয় রাজ্য সরকারের পক্ষে ৩১ সদস্য প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন ইস্ট খাসি হিলস জেলার ডেপুটি কমিশনার এম ওয়ার নংবোরে আইএএস।
বৈঠক শেষে উভয় দেশের টিম লিডার সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে সীমান্ত নিরাপদ ও শান্তিপূর্ণ রাখতে এবং সম্পর্ক উন্নয়নে এক সাথে কাজ করার অঙ্গীকারের কথা জানান। স্থানীয় পাইন উড হোটেলে সকাল ১০টায় বৈঠকের উদ্বোধন করেন মেঘালয় রাজ্য সরকারের চীফ সেক্রেটারি আর ভি সুচাং। বৈঠক সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত চলে। সীমান্ত এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখা, চোরাচালান, গবাদিপশু ও মানব পাচার বন্ধ, অবৈধ অনুপ্রবেশ রোধ, মাদকদ্রব্য পাচার প্রতিরোধ, বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী জেলার মানুষের সাথে সম্পর্ক উন্নয়নসহ উভয় দেশের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণ, সড়কপথে যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতিকরণ, পর্যটনশিল্প বিকাশ, সাহিত্য সাংস্কৃতিক বিনিময়সহ দ্বি-পাক্ষিক বিভিন্ন বিষয় আলোচনায় স্থান পায়।
প্রতিনিধি দলের সাথে সম্মেলনে অংশ নেন সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম, সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ আব্দুল আহাদ, কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক মোছা: সুলতানা পারভীন, ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মো: মিজানুর রহমান, নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম ও শেরপুর জেলা প্রশাসক আনার কলি মাহবুব। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ বাংলাদেশ-ভারত ম্যাজিষ্ট্রেট ক্লাষ্টার-৯-এর আওতায় ডিসি-ডিএম পর্যায়ে মেঘালয় রাজ্যের রাজধানী শিলং-য়ে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে মেঘালয় রাজ্যের সীমান্তবর্তী ডিষ্ট্রিক জৈন্তিয়া হিলস, ইষ্ট খাসি হিলস ওয়েষ্ট খাসি হিলস ,ইষ্ট গারো হিলস ও ওয়েষ্ট গারো হিলস ডিষ্ট্রিক’র ডেপুটি কমিশনার, সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ, পুলিশ সুপার কাষ্টম্সসহ মেঘালয় রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন। বাংলাদেশের উত্তর-পশ্চিম সীমান্ত অঞ্চলের জেলাগুলো এবং মেঘালয় রাজ্যের সবকটি ডিস্ট্রিক ম্যাজিস্ট্রেট ও সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে বাংলাদেশ-ভারত ডিসি-ডিএম পর্যায়ের দ্বি-পাক্ষিক বৈঠক অত্যন্ত আন্তরিকতাপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে জানিয়েছেন।
বৈঠকে বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন জামালপুর জেলা পুলিশ সুপার দেলোয়ার হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ও জেলা অতিরিক্ত ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ সুহেল মাহমুদ, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা, বকশীগঞ্জ উপজেলা নিবার্হী অফিসার দেওয়ান মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম, জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো: শাহ নেওয়াজ, শেরপুর জেলা পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম, অতিরিক্ত জেলা অতিরিক্ত ম্যাজিষ্ট্রেট এবিএম এহসানুল মামুন, পানি উন্নয়ন বোর্ড’র বিভাগীয় নিবার্হী প্রকৌশলী মো: মাজহারুল ইসলাম, ঝিনাইগাতী উপজেলা নিবার্হী অফিসার রুবেল মাহমুদ, বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ কর্মকর্তা মো: কামরুজ্জামান, নেত্রকোনা জেলা পুলিশ সুপার মো: আকবর আলী মুন্সী, ৩১ বিজিবি নেত্রকোনা ব্যাটেলিয়ন পরিচালক লে: কর্ণেল মো: শাহজাহান সিরাজ, জেলা অতিরিক্ত ম্যাজিষ্ট্রেট মো: আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, দূর্গাপুর উপজেলা নিবার্হী অফিসার ফারজানা খানম, কমলাকান্দা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাকির হোসেন, ময়মনসিংহ জেলা পুলিশ সুপার মো: শাহ আবিদ হোসেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ মাহবুব মুরাদ, জেলা অতিরিক্ত ম্যাজিষ্ট্রেট সমর কান্তি বসাক, হালুয়াঘাট উপজেলা নিবার্হী অফিসার রেজাউল করিম, ধোবাউড়া উপজেলা নিবার্হী অফিসার মো: রফিকুজ্জামান, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর সহকারী পরিচালক জাহিদ হাসান মোল্লা, সিলেট জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ফরিদ উদ্দিন, জেলা অতিরিক্ত ম্যাজিষ্ট্রট মোহাম্মদ আবুল কালাম, সড়ক ও জনপথ বিভাগের নিবার্হী প্রকৌশলী রিতেশ বড়–ুয়া, গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী অফিসার বিশ্বজিত কুমার পাল, সিলেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার সুমাইয়া ফেরদৌস, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মলয় ভুষণ চক্রবর্তী, সুনামগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো: মিজানুর রহমান, ২৮ বিজিবি সুনামগঞ্জ ব্যাটেলিয়ন পরিচালক লে: কর্নেল মো: মাকসুদ আলম, জেলা অতিরিক্ত ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ মুখলিছুর রহমান, বিশ্বম্ভরপুর উপজেলা নিবার্হী অফিসার সমর বিশ্বাস, সদর উপজেলা নিবার্হী অফিসার ইয়াসমিন নাহার রুমা, ধর্মপাশা উপজেলা নিবার্হী অফিসার মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান, দোয়ারাবাজার উপজেলা নিবার্হী অফিসার সোনিয়া সুলতানা, কুড়িগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার মহিবুল ইসলাম খান, ১৫ বিজিবি লালমনিরহাট ব্যাটেলিয়ন পরিচালক লে: কর্নেল আনোয়ার উল আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান, রাজবাড়ি উপজেলা নিবার্হী অফিসার মো: মেহেদী হাসান, পানি উন্নয়ন বোর্ড’র নিবার্হী প্রকৌশলী মো: আরিফুল ইসলাম, জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর সহকারী পরিচালক মো: মাসুদ হোসেন, সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা রৌমারী শুল্ক ষ্টেশন আফতারুল ইসলাম ও ঢাকা ভূমি রেকর্ড অধিদপ্তর কর্মকর্তা মো: আব্দুল কাদির।
সীমান্ত সম্মেলনে ভারতের পক্ষে আরো উপস্থিত ছিলেন ওয়েষ্ট জৈন্তিয়া হিলস জেলার ডেপুুিট কমিশনার গাড়থ, ইষ্টে জৈন্তিয়া হিলস জেলার ডেপুটি কমিশনার এফ এম ডপথ, সাউট গারো হিলস জেলার ডেপুটি কমিশনার রাম কুমার আইএএস, ওয়েষ্ট গারো হিলস জেলার ডেপুটি কমিশনার রাম সিংহ আইএএস, ৩০ বিএসএফ কমান্ডিং অফিসার সাইফুর রহমান খান, পুলিশ সুপার সিএ লাংগো।
বাংলাদেশ প্রতিনিধি দলের টিম লিডার জামালপুর জেলা প্রশাসক আহমেদ কবীর জানান, বাংলাদেশ ভারতের মধ্যে ঐতিহাসিক সর্ম্পক রয়েছে। শিলংয়ে ডিসি-ডিএম সম্মেলনে বাংলাদেশ-ভারত দ্বি-পাক্ষিক বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। সীমান্ত এলাকার ভূমি সমস্যার সমাধান, অবৈধ অনুপ্রবেশ, চোলাচালান প্রতিরোধ, ব্যবসা-বানিজ্য সম্প্রসারণ, সীমান্ত এলাকায় হত্যা বন্ধ, মাদকদ্রব্য প্রাচার প্রতিরোধ কাজে উভয় দেশের সীমান্ত রক্ষী বাহিনী আরো সমন্বিত হয়ে কাজ করবেন।
বৈঠকে সিলেটের জেলা প্রশাসক এম কাজী এমদাদুল ইসলাম তার বক্তব্যে, মেঘালয় রাজ্যের বিভিন্ন কারাগারে সাজার মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার পরও জেলে বন্দি বাংলাদেশী নাগরিকদের মুক্তির বিষয়টি উত্থাপন করেন। কোম্পানীঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ জিরো পয়েন্ট পর্যন্ত বাংলাদেশ লিংক রোড নির্মাণ কাজে বিএসএফ রাজি হয়েছে বলেও তিনি জানান। তিনি সারী নদী-ডাউকি নদীর পানি দূষণ রোধ বিষয়ে বিভিন্ন প্রস্তাবও উত্থাপন করেন।
মেঘালয় প্রতিনিধি দলের টিম লিডার শিলংয়ের ডেপুটি কমিশনার এম ওয়ার নংবোর আইএএস জানান, বাংলাদেশের সাথে ভারত সব সময় বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রাখার চেষ্টা করে। মেঘালয় সরকার প্রতিবেশী দেশের সাথে ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারিত করে অর্থনৈতিক সামাজিক ও সাংস্কৃতিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। দুই দেশের সীমান্ত এলাকা স্বাভাবিক রাখতে ডিসি-ডিএম ম্যাজিষ্ট্রেট পর্যায়ে সভা অব্যাহত রাখার কথা জানান তিনি।
আজ বুধবার তামাবিল সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

 

শেয়ার করুন
প্রথম পাতা এর আরো সংবাদ
  • নিরাপত্তা চেয়ে সিলেটের ৫৬ টেলিভিশন সাংবাদিকের জিডি
  • শাবি উপাচার্যের বিরুদ্ধে বেনামে শে^তপত্র প্রকাশ উন্নয়ন প্রকল্পে হরিলুট করতে চায় একটি চক্র: উপাচার্য
  • সিলেটে সমাবেশ করার জন্য প্রস্তুত বিএনপি
  • জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে যোগ দিতে নিউইয়র্কের পথে প্রধানমন্ত্রীর আবুধাবী ত্যাগ
  • গুলশানে তিনটি স্পা সেন্টারে অভিযান, আটক ১৯
  • ব্যর্থ সরকার জুয়ার আশ্রয় নিয়েছে: ফখরুল
  • টেন্ডারবাজ, চাঁদাবাজ ও দখলবাজদের রক্ষা নেই: কাদের
  • তিন উপজেলায় লিফলেট বিতরণকালে আটক ১২
  • নদীতে লাফ দিয়ে নিখোঁজের ১৩ ঘন্টা পর ছাতকে যুবলীগ নেতার লাশ উদ্ধার
  • প্রেসিডিয়াম গঠন আজ ॥ সভাপতিসহ তিনটি পদে মনোনয়ন জমা দিয়েছে দুটি প্যানেল
  • লিডিং ইউনিভার্সিটি উচ্চ শিক্ষার অনন্য সূতিকাগার
  • সংখ্যাগরিষ্টতা পেয়েছে সম্মিলিত ব্যবসায়ী পরিষদ
  • আফগানদের হারালো বাংলাদেশ
  • দুর্নীতির দায় নিয়ে সরকারের পদত্যাগ করা উচিত : বিএনপি
  • সারাদেশে পর্যায়ক্রমে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান পরিচালিত হবে -------ওবায়দুল কাদের
  • ডা.দেওয়ান নূরুল হোসেন চঞ্চলের মৃত্যুবার্ষিকী আজ
  • জি কে শামীম ১০ দিনের রিমান্ডে
  • ঝুঁকিপূর্ণ সিলেট রেলপথ
  • কলাবাগান ক্রীড়াচক্রের ফিরোজ ১০ দিনের রিমান্ডে
  • ভোলাগঞ্জ সাদা পাথর থেকে দুই জনের লাশ উদ্ধার
  • Developed by: Sparkle IT