শেষের পাতা

সিলেটসহ সাত জেলায় চুরি-ডাকাতিতে জড়িত আন্তবিভাগীয় চক্রের ১১ সদস্য গ্রেফতার

প্রকাশিত হয়েছে: ২৬-০৮-২০১৯ ইং ০৩:০৭:২৬ | সংবাদটি ৮২ বার পঠিত

ডাক ডেস্ক॥ সিলেট, মৌলভীবাজারসহ দেশের সাত জেলায় বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে রাতের বেলা সাটার ভেঙে চুরির করতো তারা। বাধা পেলে ব্যবহার করার জন্য তারা সঙ্গে অস্ত্র রাখতো। গত শনিবার রাতে চট্টগ্রাম লালদিঘীর পাড় এলাকার একটি আবাসিক হোটেল থেকে অস্ত্রসহ ১১ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ ।
এই চক্র দেশের সাতটি জেলায় দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ‘কয়েকশ’ চুরি ও ডাকাতির সঙ্গে জড়িত বলে জানিয়েছে পুলিশ। গতকাল রোববার চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের এক সংবাদ সম্মেলনে উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) এস এম মেহেদী হাসান বলেন, “এরা একটি আন্তঃবিভাগীয় চক্র। তাদের কাছ থেকে দুটি এলজি ও চারটি কার্তুজ এবং দোকানের শাটার ভাঙার সরঞ্জাম পাওয়া গেছে।”
এরা হলেন-মো. হানিফ ওরফে হাতপোড়া হানিফ (৩৮), কামাল হোসেন (২৮), লিয়াকত হোসেন (২৪), আকরাম ওরফে আরমান ওরফে সাগর (২৩), মো. তৌফিক (২৬), মো. মিজান (২৫০, মাসুম (২৬), নয়ন মল্লিক (২২), মিলন (২৫), জামাল উদ্দিন (৩০) ও কামাল ওরফে ভুষি কামাল (৩২)।
প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা জেলায় জেলায় চুরি-ডাকাতির সঙ্গে জড়িত থাকার কথা ‘স্বীকার করেছে’ বলে পুলিশের সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়।
উপ-কমিশনার মেহেদী হাসান বলেন, “এদের দলনেতা হানিফ। তার অধীনে ৯-১০টি ছোট গ্রুপে মোট ৫০ জন সদস্য আছে। অন্য জেলাগুলোতে আমরা এ বিষয়ে তথ্য জানিয়েছি।”
পুলিশ বলছে, এই চক্রটি ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, মৌলভীবাজার, সিলেট ও ময়মনসিংহ জেলার বিভিন্ন এলাকায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে রাতের বেলা সাটার ভেঙে চুরির সঙ্গে জড়িত। বাধা পেলে ব্যবহার করার জন্য তারা সঙ্গে অস্ত্র রাখে।
এই চক্রের সদস্যরাই গত জুন ও ফেব্রুয়ারিতে চট্টগ্রাম শহরের দুটি দোকান থেকে যথাক্রমে পৌনে দুই লাখ ও ১২ লাখ টাকার মালামাল লুটে নিয়ে যায় বলে সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়।
অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া কোতোয়ালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামরুজ্জামান বলেন, “বড় চুরি হলে হানিফ একাধিক ছোট গ্রুপকে একত্রিত করে। তারপর চুরি করে। কোনো একটি গ্রুপের সদস্যরা গ্রেফতার হলে অন্য গ্রুপ দিয়ে হানিফ চুরি করায়। সেই চুরির টাকায় সদস্যদের পরিবার ও মামলার খরচ চালায়।”
সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, হানিফ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে শো-রুম, বড় কাপড়ের বা মুদি দোকান, বিপণন অফিসসহ বিভিন্ন ধরনের প্রতিষ্ঠান ‘টার্গেট’ করতেন।
এরপর চক্রের আরেকজন সেই প্রতিষ্ঠানটি ‘রেকি’ করে আসতেন। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে নির্ধারণ করা হত কতজন এই চুরিতে অংশ নেবে।
পরিদর্শক কামরুজ্জামান বলেন, “হানিফ ফোনে তাদের সাথে যোগাযোগ করে নির্দিষ্ট স্থানে আসতে বলত। চক্রের সদস্যদের আসা-যাওয়ার জন্য টাকা পাঠানো হত। চুরিতে সফল হতে না পারলেও সদস্যদের খরচ দিত দলনেতা।”
কোতোয়ালি থানার ওসি মো. মহসীন বলেন, “দোকানের সাটার ছোট হলে তারা তালা ভেঙ্গে প্রবেশ করে। আর সাটার বড় আকারের হলে কৌশলে দুই পাশে টেনে ফাঁকা করে একজন বা দুই জন দোকানে প্রবেশ করে টাকা, মোবাইল, কম্পিউটার ও দামি জিনিস নিয়ে বেরিয়ে আসে।’’
“পুরো কাজে তাদের ৫ থেকে ১০ মিনিট সময় লাগে। চট্টগ্রাম শহরে একটি ডাকাতির প্রস্তুতি নিয়ে তারা জড়ো হয়েছিল। তাদের সাথে অস্ত্র ছিল। বাধা পেলে তারা অস্ত্র ব্যবহার করত।”
আইন অনুসারে সংঘবদ্ধ চক্র অস্ত্রসহ মালামাল ও টাকা ছিনিয়ে নিলে বা চুরি করলে তা ডাকাতি হিসেবে গণ্য হয়।
পুলিশের সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, গ্রেফতার সবার স্থায়ী ঠিকানা কুমিল্লা জেলায়। তাদের মধ্যে হানিফ বর্তমানে চট্টগ্রামের হালিশহর থানার নয়াবাজার ধোপাপাড়া এলাকায় থাকতেন। আর কামাল থাকতেন ঢাকার যাত্রাবাড়ী থানার দরবার গলি এলাকায়।
নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (দক্ষিণ) শাহ মো. আবদুর রউফ বলেন, “গ্রেফতারকৃতদের আদালতে হাজির করে রিমান্ড চাওয়া হবে। পুরো চক্রের সব সদস্যকে চিহ্নিত করে গ্রেফতার করার জন্য অভিযান চালানো হবে।”

শেয়ার করুন
শেষের পাতা এর আরো সংবাদ
  • অভিজিতের বাবা অজয় রায় আর নেই
  • চিকিৎসক-ইঞ্জিনিয়ারসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ নেবে জাপান: পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী
  • ছবি
  • দুর্নীতি প্রতিরোধে সামাজিক আন্দোলনের বিকল্প নেই
  • বেগম রোকেয়ার সংগ্রামের পথ ধরে নারীদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে
  • দৈনিক সিলেটের ডাক বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতার পথিকৃত
  • ‘হুমকি’ হয়ে উঠতে পারে নিপা ভাইরাস
  • কমলগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে যুবক নিহত
  • ৭ আসামীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা
  • মহানগর আওয়ামী লীগের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
  • ওসমানীনগরে অজ্ঞাত তরুণীর মস্তক উদ্ধার
  • লিডিং ইউনিভার্সিটিতে উচ্চশিক্ষায় স্কলারশীপ প্রাপ্তি বিষয়ক সেমিনার
  • রুম্পার ‘প্রেমিক’ চারদিনের রিমান্ডে
  • বিজয়ের মাস
  • বিশ্ব মানবাধিকার দিবস জেলা বিএনপির শোভাযাত্রা কাল
  • আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস আজ
  • ছবি
  • শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে নিল শাবি প্রশাসন ॥ ক্যাম্পাসে বিজয় মিছিল
  • সাফল্যের জন্য লক্ষে অবিচল থাকতে হবে ॥ প্রফেসর কামরুজ্জামান চৌধুরী
  • সাংস্কৃতিক জাগরণের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণের প্রত্যয়
  • Developed by: Sparkle IT